বৃহস্পতিবার, ১৮ Jul ২০১৯, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন

পইল গ্রামে মুক্তার ঝোপ থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ॥ হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে আটক দুই

পইল গ্রামে মুক্তার ঝোপ থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ॥ হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে আটক দুই

আজিজুল ইসলাম সজীব ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দক্ষিণ পইল গ্রামের টেনু মিয়ার পুকুর পাড়ে মুক্তার ঝোপ থেকে ফাহিমা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধুর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি পইল উত্তরপাড়া গ্রামের জুয়েল মিয়ার স্ত্রী এবং পার্শ্ববর্তী এড়ালিয়া গ্রামের মৃত মহরম আলীর কন্যা। ফাহিমার পিতার পরিবারের দাবি তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ ওই স্থানে ফেলে রাখা হয়েছে। ফাহিমার স্বামী জুয়েল মিয়াও হত্যার কথা স্বীকার করে একই এলাকার জনৈক আব্দুল খালেককে ফোনে জানিয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে। ফাহিমার ভাই আমির আলী জানান, প্রায় ৪ বছর পূর্বে ফাহিমা আক্তারকে জুয়েল মিয়ার সাথে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর বেশ কিছু দিন তাদের ঘর-সংসার ভালভাবে কাটলেও সম্প্রতি তাদের মধ্যে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কলহ সৃষ্টি হয়। এনিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত। দুই বছর আগে ফাহিমার স্বামী জুয়েল কুমিল্লা চলে যায়। সেখানে ২য় বিয়ে করে টমটম চালিয়ে জীবকা নির্বাহ করে। বিয়ের বিষয়টি জুয়েল নিজেই ফাহিমাকে ফোনে জানায়। এতে তাদের ঝগড়া আরও চরম আকার ধারণ করে। প্রায় মাস খানেক আগে ২য় স্ত্রীর সাথে ঝগড়া করে জুয়েল কুমিল্লা থেকে বাড়িতে চলে আসে। বাড়িতে আসা পর জুয়েল অপর এক নারীর সাথে পরকিয়া প্রেমে আসক্ত হয়ে পড়ে। এনিয়ে ফাহিমা এবং জুয়েলের মধ্যে ঝগড়া তীব্র আকার ধারণ করে। জুয়েল প্রায়ই ফাহিমাকে মারপিট করত। বিষয়টি সে তার ভাইকে জানাত। গতকাল শনিবার সকালে স্থানীয়রা টেনু মিয়ার পুকুর পাড়ে মুক্তার ঝোপে ফাহিমার লাশ পড়ে থাকতে দেখে। এ খবর পেয়ে ফাহিমার ভাইসহ স্বজনরা এসে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ওই স্থান থেকে লাশ উদ্ধার করে।
স্থানীয়রা জানান, জুয়েল ফোন করে তাদেরকে বলেছে যে ফাহিমাকে সে হত্যা করেছে। বর্তমানে কুমিল্লা রয়েছে বলেও সে জানায়। এ ব্যাপারে ওসি ইয়াছিনুল হক জানান, ধারণা করা হচ্ছে এটি হত্যাকাণ্ড। তবে পুলিশ এ বিষয়ে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে এবং জুয়েলকে ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে। বিকেলে ময়না তদন্ত শেষে ফাহিমার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আরএমও বজলুর রহমান জানান, লাশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
এ ঘটনায় পইল গ্রামের জব্বার মিয়ার পুত্র খালেক মিয়া (৪২) ও একই গ্রামের আব্দুল সহিদের পুত্র শাহিন মিয়াকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com