রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ১১:৫২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
লাখাইয়ে পারিবারিক বিষয় নিয়ে বাকবিতন্ডা ॥ পুত্রের হাতে পিতা খুন হবিগঞ্জে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম ॥ রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনই উত্তম পন্থা শহরের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের সামন থেকে ১২ রোমিও আটক পরিবারের মুছলেখায় মুক্তি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে চুনারুঘাটের ১ জনের মৃত্যু নবীগঞ্জে বউ-শাশুড়ীর ঝগড়া প্রাণ গেল সবুর হোসেনের বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে পিছিয়ে দিয়েছিল-এমপি মিলাদ গাজী বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলা গড়াই হোক জাতীয় শোক দিবসের অঙ্গীকার-এমপি মজিদ খান পইলে শহীদ এনাম স্মৃতি সংঘের ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত তিতখাই-চান্দপুর সড়কটি সংস্কার কাজ বন্ধ ॥ জনদুর্ভোগ চরমে বানিয়াচঙ্গে চেক ডিজঅনার মামলার সাজা প্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার
নবীগঞ্জের দিনারপুরে নিহত কাওছারের পিতাকে হত্যার চেষ্টা ॥ এক দুর্বৃত্ত আটক

নবীগঞ্জের দিনারপুরে নিহত কাওছারের পিতাকে হত্যার চেষ্টা ॥ এক দুর্বৃত্ত আটক

নবীগঞ্জ সংবাদদাতা ॥ নবীগঞ্জ উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের দেওলাবাড়ি গ্রামের কাওছার মিয়াকে নৃশংসভাবে হত্যার পর এবার তার (কাওছারের) পিতা হায়দর মিয়াকে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় এক দুর্বৃত্তকে জনতা আটক করে। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। আটক দুর্বৃত্তের নাম জালাল মিয়া। তিনি বাহুবল উপজেলার পূর্ব জয়পুর গ্রামের ইউসুফ মিয়ার পুত্র।
স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,
মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে এক যুবক হায়দর মিয়ার বাড়ির উঠান থেকে পানি খাওয়ার জন্য ডাকডাকি শুরু করে। এ সময় দায়দর মিয়ার পরিবারের লোকজনের ঘুম ভেঙ্গে যায়। সে সময় হায়দর মিয়া দরজার ফাঁক দিয়ে ৬/৭ জন যুবককে বাড়ির উঠানে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন। বিপদ আচ করতে পেরে হায়দর মিয়া মোবাইল ফোনে প্রতিবেশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন দৌড়ে হায়দর মিয়ার বাড়িতে ছুটে আসেন। এসময় যুবকরা দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। লোকজনও ধাওয়া দিয়ে জালাল মিয়াকে আটক করতে সক্ষম হন। তবে অন্যান্যরা পালিয়ে যায়। গতকাল বুধবার সকালে আটক জালালকে পানিউমদা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে নেয়া হয়। সেখানে ইউপি চেয়ারম্যান ইজাজুর রহমান তাকে বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদে জালাল জানায় যে, হায়দর মিয়ার ৩য় কন্যা মাসেদা বেগমের স্বামী লিটন মিয়া তাকে এখানে নিয়ে আসে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১ বছর পূর্বে হায়দর মিয়ার ৩য় কন্যা মাসেদা বেগমকে চুনারুঘাট উপজেলার সকর আলীর পুত্র লিটন মিয়ার কাছে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকেই মাসেদা বাবার বাড়িতে বসবাস করে আসছে। বিয়ের কিছুদিন পর মাসেদা এবং লিটনের মধ্যে মৌখিকভাবে ডির্ভোস হয়ে যায়। এরপরও বিভিন্নভাবে লিটন তার শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করে। এছাড়াও সে বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে জড়িত আছে বলে সূত্রে জানা গেছে। হায়দর মিয়ার মেয়ের জামাই লিটনের চলাফেরা সন্দেহজনক তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই কাওছার হত্যাসহ সকল রহস্য বেরিয়ে আসবে বলে দাবী করেছেন এলাকাবাসী।
এবিষয়ে হায়দর মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্য আমার বাড়িতে ৬/৭ জন যুবক হানা দিয়েছিল। স্থানীয়দের মাধ্যমে একজনকে আটক করা হয়েছে। এসবের পিছনে আপনার মেয়ের জামাতা জড়িত থাকতে পার কি-না প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আটককৃত জালাল আমার মেয়ের জামাই লিটন তাকে এখানে এনেছে বলে জানিয়েছে। তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়া গত ৩১ জুলাই হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত দৈনিক হবিগঞ্জ এক্সপ্রেস পত্রিকায় হায়দর আলীর নাম ব্যবহার করে যে প্রতিবাদ লিপি ছাপানো হয়েছে তাও ওই লিটন মিয়ার কাজ বলে দাবী করছেন হায়দর আলী। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সব বেরিয়ে আসবে বলে তিনি আশাবাদী।
পানিউমদা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইজাজুর রহমান বলেন, সকালে জালাল নামে এক যুবককে ইউনিয়ন কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করি সে কার সঙ্গে হায়দর মিয়ার বাড়িতে এসেছে। প্রতিউত্তরে সে জানায় হায়দর মিয়ার মেয়ের জামাই লিটন তাকে এখানে নিয়ে এসেছে। পরে তাকে নবীগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয় ।
নবীগঞ্জ থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) নুরুল ইসলাম বলেন, জালালকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এবিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।
প্রসঙ্গত, প্রায় ৩ মাস আগে হায়দর মিয়ার ছেলে কাওছার খুন হয়। বাড়ি থেকে বেশ কিছু দূরে কাওছারের মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে একজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। কিন্তু পুলিশ দীর্ঘদিনেও নিহত কাওছারের মাথা উদ্ধার করতে পারেনি। কয়েকদিন আগে এলাকার একটি ব্রিজের ওপর কাওছারের মাথা দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। পরে খবর দিলে পুলিশ মাথাটি জব্দ করে নিয়ে যায়।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com