সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০, ১১:১২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শহরের খাজা গার্ডেন সিটিতে আগুন ॥ অল্পের জন্য রক্ষা ২৫ পৌরসভার তফশিল ঘোষণা ॥ শায়েস্তাগঞ্জে মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১ ডিসেম্বর ॥ ভোট ২৮ ডিসেম্বর বৃন্দাবন সরকারি কলেজ এলামনাই এসোসিয়েশন যুক্তরাষ্ট্র এর উদ্যোগে আর্থিক সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি আবু জাহির ॥ তরুণ প্রজন্মকে দক্ষতা অর্জনের দিকে আগ্রহী করে তুলতে হবে ভেজাল বিরোধী অভিযানে হবিগঞ্জ শহরের ফুড ভিলেজ ও স্কাই কুইন রেস্টুরেন্টকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা নবীগঞ্জে সিএনজি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১ ॥ মহিলা-শিশুসহ একই পরিবারের ৫ সদস্য আহত শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রুবেল চৌধুরীর মৃত্যুতে আইএফসি নেতৃবৃন্দের শোক শহরের শ্মশানঘাট এলাকায় মোটর সাইকেলের ধাক্কায় আহত মহিবুর চৌধুরী লন্ডনীর ইন্তেকাল বানিয়াচঙ্গে পাখি শিকারীকে আটক করা নিয়ে লঙ্কাকান্ড মাহবুবুল আলম হানিফ ও তাঁর স্ত্রীর সুস্থতা কামনায় জেলা যুবলীগের মিলাদ মাহফিল শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযানে শতাধিক টমটম-সিএনজি আটক
খোশ আমদেদ মাহে রমজান

খোশ আমদেদ মাহে রমজান

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ দোসরা রমজান। রমজান মাস সিয়ামের মাস। সিয়াম পালনকারীকে বলা হয় সায়িম। ফারসীতে সিয়ামকে বলা হয় রোজা এবং সিয়াম পালনকারীকে বলা হয় রোজাদার। রমজানের সিয়াম ইসলামের পঞ্চ স্তম্ভের অন্যতম। এই সিয়াম পালনের মাধ্যমে যে তাকওয়ার প্রত্যক্ষ প্রশিক্ষণ লাভ হয় তা সায়িমকে আধ্যাত্মিক উন্নতির সর্বোচ্চ শিখরে আরোহণ করায়। ৬২৪ খৃস্টাব্দের মধ্য ফেব্র“য়ারী মুতাবিক দ্বিতীয় হিজরীর মধ্য শা’বানে সিয়ামের বিধান দিয়ে আল্লাহ জাল্লা শানুহু ইরশাদ করেন: ওহে তোমরা যারা ঈমান এনেছো! তোমাদেরকে সিয়াম বিধান দেয়া হলো, যেমন বিধান দেয়া হয়েছিলো তোমাদের পূর্ববর্তীদেরকে, যাতে তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পারো (সূরা বাকারা: আয়াত ১৮৩)। যারা তাকওয়া অর্জন করে তাদেরকে বলা হয় মুত্তাকী। মুত্তাকীদের সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে: আল্লাহ মুত্তাকীদের বন্ধু (সূরা জাছিয়া: আয়াত ১৯)। আল্লাহ মুত্তাকীদের ভালোবাসেন (সূরা আল ইমরান: আয়াত ৭৬)। মুত্তাকীদের জন্য রয়েছে উৎকৃষ্ট আবাস (সূরা সদ: আয়াত ৪৯)।
সুবিহ্ সাদিক হওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত সাহরী করা যায়। একটু পানি সিয়ামের উদ্দেশ্যে পান করলেও সাহ্রীর সাওয়াব অর্জিত হয়। প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ সাহ্রী খাও, নিশ্চয়ই সাহ্রীতে রয়েছে বরকত (প্রাচুর্য)। সিয়াম রেখে সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে কিছু খেয়ে বা পান করে সিয়াম ভাঙ্গার নাম ইফতার। প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ মানুষ যতোদিন ত্বরিত (অর্থাৎ সময় হওয়া মাত্র) ইফতার করবে ততোদিন তারা কল্যাণের উপর থাকবে। হাদীসে আছে যে, কেউ কোনো সায়িমকে ইফতার করালে সে সেই সায়িমের সমপরিমাণ পুরস্কার পাবে। এতে সায়িমের পুরস্কার বিন্দুমাত্র কমে যাবে না।
শরী’আতের দৃষ্টিতে প্রাপ্ত বয়স্ক (বালিগ), সুস্থ মস্তিষ্কের অধিকারী (আকিল) এবং শারীরিকভাবে সুস্থ (কাদির) নর-নারীর জন্য রমাদানে সিয়াম পালন করা ফরয। নারীদের মাসিককালীন দিনগুলোতে এবং সন্তান প্রসবজনিত বিশেষ অপবিত্র অবস্থার দিনগুলোতে এটা তাৎক্ষণিকভাবে বর্তায় না। মুসাফির, পীড়িত এবং সাতিশয় বৃদ্ধ-বৃদ্ধার জন্য সুনির্দিষ্ট বিধান রয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com