বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ১১:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ডাঃ ফাতেমা খানম দশ টাকা কেজির চাল হাতে দিয়ে লোকজনকে ঘরে থাকার আহবান জানালেন এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জের বেসরকারি চিকিৎসকদের পিপিই প্রদান করলেন ডাঃ মুশফিক চৌধুরী মাধবপুরে করোনা সতর্কতা ॥ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সরানো হল বাজার মাধবপুরে পিস্তলের গুলি বের হয়ে এএসআই আহত বানিয়াচঙ্গে গ্রামবাসীর উদ্যোগে ৩০টি গ্রাম লকডাউন “আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে” এ স্লোগান এখন চা শ্রমিকের ঘরে ঘরে শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে লোকসমাগম কমাতে কাঁচা বাজার স্থানান্তর হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম বানিয়াচংয়ে আইন অমান্য করে ব্যাবসা প্রতিষ্টান খোলা রাখায় অর্থদন্ড
বাহুবলে পাচারকালে জনতার হাতে ৫ বস্তা সরকারি চাল আটক

বাহুবলে পাচারকালে জনতার হাতে ৫ বস্তা সরকারি চাল আটক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাহুবলে ১০ টাকা কেজি দরের ৫ বস্তা সরকারি চাউল হতদরিদ্রদের মাঝে বিক্রি না করে কালোবাজারে পাচারকালে জনতার হাতে আটক হয়েছে। গত সোমবার রাত সাড়ে ১০টায় পাচারের উদ্দেশ্যে উপজেলার ডুবাঐ ভিতর বাজারের তাজুল ইসলামের চালের আড়তের সামনে স্থানীয় লোকজন চালের বস্তাগুলো দেখতে পান। এ সময় স্থানীয় জনতার উপস্থিতি আচ করতে পেরে পাচারকারী চালের বস্তাগুলো রেখে পালিয়ে যায়। বাজারের পাহারাদার ও স্থানীয় জনতা তাৎক্ষনিক বিষয়টি পুলিশকে খবর দিলে পুটিজুরী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইয়াছিন রাসেলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে চালগুলো জব্দ করে। পরে চালের বস্তাগুলো পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে থাকায় স্থানীয় ইউপি মেম্বার সুন্দর আলীর জিম্মায় রাখা হয়। এব্যাপারে বাজারের পাহাদার সাজিদ মিয়ার সাথে কথা বললে জানাযায়, সরকারি চালের বস্তাগুলো বাজারের আড়তে নিয়ে আসতে দেখেন। তখন তিনি বিষয়টি স্থানীয় গন্যমান্য ও বাজার কমিটিকে জানালে লোকজন এসে ঐ দোকানের সামনে রাখা চালের বস্তাগুলো আটক করেন এবং বিষয়টি পুলিশকে জানান। তিনি আরও বলেন স্থানীয় জনতা তখন ৫ বস্তা চাল আটক করলেও চালের আড়ত ব্যবসায়ী আরও চালের বস্তা রয়েছে। ঐ ঘটনার পর থেকে ব্যবসায়ী দোকান ঘরে তালাবদ্ধ রেখে পলাতক রয়েছেন।
বিষয়টি সম্পর্কে স্থানীয় ইউপি মেম্বার সুন্দর আলী জানান, গত সোমবার রাতে চালের বস্তাগুলো আটক করে পাহারাদার ও স্থানীয় লোকজন আমাকে জানালে আমি দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। পরে পুলিশ ৫ বস্তা সরকারি চাল পরিত্যাক্ত অবস্থায় পরে থাকায় আমার জিম্মায় রাখেন। বর্তমানে চালের বস্তাগুলো আমার জিম্মায় রয়েছে।
বিষয়টি সম্পর্কে পুটিজুরী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইয়াছিন রাসেলকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, সরকারি চালের বস্তা পাচারের বিষয়টি সম্পর্কে খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে যাই এবং বস্তাগুলো জব্দ করে স্থানীয় মেম্বারের জিম্মায় রাখি। আমি তখনই ঘটনাস্থলে থাকা লোকজনের সাথে কথা বলে যা জানতে পারলাম ঐ ঘটনার সাথে স্থানীয় ডিলার ও চাল ব্যবসায়ী জড়িত। আমি বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে জড়িতদের খোঁজে বাহির করে আইনের আওতায় নিয়ে আসব।
সরকারি চাল হতদরিদ্রের মাঝে বিক্রি না করে কালো বাজারে বিক্রির বিষয়টি সম্পর্কে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ নজির মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি প্রথমে বিষয়টি সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে জানান। পরে তিনি খোঁজ নিয়ে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং ঐ ঘটনার সাথে স্থানীয় ডিলার জড়িত আছেন বলেও তিনি জানতে পেরেছেন। ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় তার ডিলারশীপ বাতিল হবে বলেও তিনি জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com