বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৬:২০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়িতে বিজিবির অভিযান রকেট লাঞ্চারের ১৮টি গোলা উদ্ধার হবিগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ম্যারাথন এর উদ্বোধন সাতছড়ি উদ্যানে পূর্বের ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে উদ্ধার হওয়া রকেট লাঞ্চারের গোলাগুলো খুব বিপজ্জনক আলোচনায় কাহালু ও চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র নোয়া হাটি সংবর্ধনা সভায় মেয়র সেলিম ॥ আমি হবিগঞ্জ পৌরবাসীর ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে চাই হবিগঞ্জ পৌরসভার নব-নির্বাচিত ২ কাউন্সিলরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নবীগঞ্জে মাদকাসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ॥ হুমকির মুখে নিরিহ পরিবার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়রের সঙ্গে ব্যাংকারদের শুভেচ্ছা বিনিময় নবীগঞ্জে শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ প্রতিযোগীতায় ॥ ২৩ বিজয়ী
নবীগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলের চেষ্টা ॥ সংঘর্ষে ২০ জন আহত

নবীগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলের চেষ্টা ॥ সংঘর্ষে ২০ জন আহত

বিশেষ প্রতিনিধি, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জে ইনাতগঞ্জে একটি স্টুডিওতে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্ততঃ ২০ জন আহত হয়েছে। গতকাল সকালে ইনাতগঞ্জ বাজারের প্রাইম ডিজিটাল ষ্টুডিওতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়য়ন্ত্রণে আনে। এনিয়ে বাজার ব্যবসায়ীদের মধ্যে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। গুরুতর আহত ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম আজাদকে (৫৮) সিলেট মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যান্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি এবং প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের দীঘিরপাড় গ্রামের বিএনপি নেতা আবুল কালাম আজাদ এবং একই গ্রামের আলিম উদ্দিনের মধ্যে ইনাতগঞ্জ বাজারে অবস্থিত মোস্তফাপুর মৌজার খাস খতিয়ানভুক্ত ৩৩০ দাগের ভুমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধীয় ভূমিটি ২০০৪ সালে উভুম/নবী/হাঃস্বঃ/একসনা/বন্দোঃ/৩-১৮/০৪ নং স্মারকমুলে লিজ নেন আবুল কালাম। লিজ নিয়ে ঘর নির্মাণ করে ষ্টুডিও এবং ফটোষ্ট্যাট ব্যবসায় নিয়োজিত রয়েছেন তিনি। গতকাল শুক্রবার সকালে আলীম উদ্দিনের নেতৃত্বে ২০/৩০ জনের একদল  লোক অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলের চেষ্টা করে। এনিয়ে দু’পক্ষে সংঘর্ষ হয়। ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় নগদ টাকা, মালামাল লুট ও ব্যাপক ভাংচুর হয়েছে মর্মে অভিযোগ রয়েছে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে, জুবায়ের আহমদ (৩০), বদরুল আলম (২০), নুরে আলম (২৩), শাহাজান মিয়া (৩৩) ও জাবেদ আলমকে (২৫) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নির্বাচনকালীন মুহুর্তে সংঘর্ষের ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। এরিপোর্ট লিখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com