বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
করোনা ভাইরাস ॥ চীন ফেরত শিক্ষার্থী নিয়ে হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগের লুকোচুরি চাঁদাবাজির কারণে থমকে গেছে গুঙ্গিয়াজুরী হাওরে ৪০ হাজার মন ধান উৎপাদন ্॥ কৃষকদের ৪ কোটি টাকা ক্ষতির আশংকা ৯ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে জ্বিনের বাদশা ! ॥ সর্বস্ব খুইয়ে ওই ব্যক্তি পাগল প্রায় ॥ আতঙ্ক গ্রস্থ পরিবার বহুলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেছেন এমপি আবু জাহির শহরের বদরুন্নেছা (প্রাঃ) হাসপাতালের মালিক দাবিদার বদরুন্নেছার বিরুদ্ধে এন্তার অভিযোগ নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য সহকারী ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় দাবী আদায়ের লক্ষ্যে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইনের প্রশিক্ষন বর্জন হবিগঞ্জ শহরে কিশোরকে ছুরিকাঘাত করেছে যুবতী কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নে গণফোরামের ৫ নং পুরানগাঁও ওয়ার্ড কমিটি গঠিত বাহুবলে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান ॥ অমর একুশে বইমেলা মহান ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিকে জাগ্রত রাখছে শায়েস্তাগঞ্জ জিয়াখাল রেল ব্রীজটি হুমকির মুখে
মাধবপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের স্বেচ্ছাচারিতা ॥ ৯ ইউপি সদস্যের অনিয়মের অভিযোগ

মাধবপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের স্বেচ্ছাচারিতা ॥ ৯ ইউপি সদস্যের অনিয়মের অভিযোগ

মাধবপুর প্রতিনিধি ॥ মাধবপুর উপজেলার ৬ নং শাহজাহানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৌফিকুল আলম চৌধুরীর বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে। ইউপি মেম্বারদের বঞ্চিত করে চেয়ারম্যান নিজেই উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ সবকিছু করে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে ওই ইউনিয়নের বঞ্চিত ৯জন মেম্বার জেলা প্রশাসকের কাছে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগকারীরা হলেন নারী ইউপি সদস্য বিষ্ণু দেবনাথ, শেফালী মুন্ডা, বিউটি কৈরী, পুরুষ সদস্য সায়মুন মর্মু, এনামুল হক এনাম, বাচ্চু মিয়া, ফারুক মিয়া, রফিক উদ্দিন খান এবং লতিফ হোসেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুল আলম চৌধুরী তাদের ওয়ার্ডে বিভিন্ন প্রকল্পে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করেনি। নামে মাত্র কাগজে কলমে সভাপতি করা হলেও তারা এ বিষয়ে অবগত নন। প্রকল্প গ্রহণের ক্ষেত্রে পরিষদের সদস্যদের কোনো মতামত নেয়া হয় না। চেয়ারম্যান তার ইচ্ছামাফিক প্রকল্প গ্রহণ করেন। তেলিয়াপাড়া ও সুরমা চা বাগান থেকে প্রতি বছর কর বাবদ মোটা অংকের টাকা আদায় হলেও কিভাবে ব্যয় হয় তা কাউকে জানানো হয় না। পিছিয়ে পড়া চা বাগান এলাকায় ৪টি ওয়ার্ডে সমান অনুপাতে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বরাদ্দ দেওয়া হয় না। এছাড়া এলজিএসপি, কাবিখা, কাবিটা, টিআর, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি ও উন্নয়ন কর ভিজিডি কার্ড, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, পঙ্গুভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা ৯টি ওয়ার্ডে সমভাবে বণ্টন করা হয় না। সরকারিভাবে বিভিন্ন অনুদান ও উন্নয়ন প্রকল্প বরাদ্দ দেয়া হলেও মাসিক সভায় কোনো সদস্যকে অবহিত করা হয় না।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুল আলম চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ইউপি সদস্যদের সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে। এগুলো আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করার চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ইউপি সদস্যদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এটি দুঃখজনক ঘটনা। স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক (ডিডিএলজি) এর মাধ্যমে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com