বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০২:৫২ অপরাহ্ন

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গোপীনাথপুর পুকুর সংরক্ষণ কমিটির সমন্বয়কারীর থানায় জিডি

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গোপীনাথপুর পুকুর সংরক্ষণ কমিটির সমন্বয়কারীর থানায় জিডি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ শহরের গোপীনাথপুর পুকুর সংরক্ষণ কমিটির সমন্বয়কারী বিপ্লব রায় সুজন ও তাঁর পরিবারের সদস্য গুম করার হুমকি দিয়েছে পুকুর অবৈধ দখলদাররা। নিজেরও পরিবারের জীবনের নিরাপত্তার জন্য বিপ্লব রায় সুজন হবিগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি জিডি এন্ট্রি করেছে। তিনি গতকাল রবিবার এ জিডি দায়ের করেন। জিডিতে তিনি অভিযোগ করেন শহরের রাধানগর এলাকার মাখন মিয়া পুত্র শহিদুল ইসলাম (শহিদ), আলী হোসেনের পুত্র ছালাম মিয়া ও মতলিব মিয়ার পুত্র সোহাগ মিয়া। জিডিতে তিনি উল্লেখ্য, করেন হবিগঞ্জ পৌরসভার ঐতিহ্যবাহী রাধানগর গোপীনাথপুর পুকুরটি অবৈধভাবে দখল করে রেখেছেন অভিযুক্ত। পুকুরটি পূর্নরায় উদ্ধার করে জনসাধারণের অনমুক্তের জন্য গোপীনাথপুর পুকুর সংরক্ষণ কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটিতে অভিযোগকারীকে সমন্বয়কারী হিসেবে রাখা হয়। সচেতন পৌরবাসীসহ স্থানীয় এলাকাবাসী নিয়ে আমরা সংরক্ষণ কমিটির নেতৃবৃন্দ পুকুরটি অবৈধ জবর দখলকারীদের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ ভাবে গণ আন্দোলন গড়ে তুললে পুকুর দখলকারীরা আমাকে দেখে নিবে বলে হুমকি প্রদর্শন করে। ইদানিং এলাকায় প্রচার করছে অভিযোগকারী, তার পরিবার এমনকি তার শিশু পুত্র রিজন রায়কে গুম করবে। অভিযোগে তিনি আরো উল্লেখ্য, করেন তার ছেলে রিজন রায় শহরের মাতৃছায়া কেজি স্কুলে নার্সারীতে লেখা পড়া করে। স্কুলে যাওয়ার পথে যে কোন তাকে অভিযুক্তরা অপহরণ করে গুম করতে পারে।
এছাড়াও ফেসবুকে তার নামে ভূয়া আইডি তৈরী করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এনে দেশ ছাড়া করবে বলে হুমকি প্রদর্শন করে। এমনতায় অবস্থায় তিনি নিজের পরিবারের জীবনের নিরাপত্তার নিশ্চিতের জন্য থানায় জিডি এন্ট্রি দায়ের করেন। জিডি দায়েরকালের থানায় উপস্থিত ছিলেন সমাজ কর্মী আহসানুল হক সুজা, অ্যাডভোকেট নারদ গোপ, সমাজকর্মী আব্দুল রকিব রনিসহ গোপীনাথপুর পুকুর দখলমুক্ত ও সংরক্ষণ কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং স্থানীয় এলাকাবাসী। জিডির অনুলিপি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, ডিআইজি সিলেট রেঞ্জ, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। জিডির নং-৩৩৫।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com