শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:৩৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শহরে এক রাতে তিন দোকানে চুরি ॥ টায়ার জ্ব¦ালিয়ে অবরোধ শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ৫০ শয্যার হাসপাতালের সেবা টিনের ঘরে এক চিকিৎসক দিয়ে চলে ! আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় এমপি আবু জাহির ॥ ১২ কোটি টাকায় সংস্কার হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরের প্রধান সড়ক হবিগঞ্জ শহরে মাস্ক না পড়ায় ১৪ ব্যক্তিকে জরিমানা প্রদান বাহুবলে ভাবীকে ধর্ষণের চেষ্টা ॥ আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় শ্বশুর গ্রেপ্তার হবিগঞ্জে নতুন করে ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এম এ গফুর চৌধুরী কল্যাণ ট্রাস্ট এর সৌজন্যে শীতবস্ত্র বিতরণ নবীগঞ্জ পৌরসভার ২টি উন্নয়ন কাজ উদ্বোধন করলেন মেয়র ছাবির নবীগঞ্জে কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ ও সার বিতরণ হবিগঞ্জের পইল গ্রামে রাস্তা সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন
টাকা আত্মসাত মামলার আসামী সহিদের জামিন আবারো না-মঞ্জুর

টাকা আত্মসাত মামলার আসামী সহিদের জামিন আবারো না-মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার ॥ টাকা আত্মসাত মামলার আসামী হবিগঞ্জ শহরের ফায়ার সার্ভিস এলাকার আব্দুল সহিদের জামিন আবারো নামঞ্জুর করেছেন বিজ্ঞ বিচারক। গতকাল সোমবার আব্দুল সহিদ তার আইনজীবীর মাধ্যমে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করেন। ইতোপূর্বে তার বিরুদ্ধে দায়েকৃত মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ না করায় গত ১৬ জানুয়ারি চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে আব্দুল সহিদের বিরুদ্ধে পরোয়ানা ইস্যু করা হয়। ২৯ মার্চ আব্দুল সহিদ আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এর পর আব্দুল সহিদের আইনজীবী ১৯ এপ্রিল পুনরায় বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তার জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করেন।
মামলা সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জ শহরের ফায়ার সার্ভিস এলাকার মৃত আব্দুল জব্বারের পুত্র মোঃ আব্দুল সহিদকে জাতীয় দৈনিক ভোরের কাগজের হবিগঞ্জ জেলার ভারপ্রাপ্ত প্রতিনিধি ও হবিগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ফোরামের সহ-সভাপতি মোঃ সালাম চৌধুরী ২০১২ সালের ২৪ মে হবিগঞ্জ সদর রেজিস্ট্রি এসআর অফিসে একটি জমি ক্রয় করতে ২৭৭৪ বায়না দলিলে ২ লাখ টাকা সমজে দেন। বায়না সম্পাদনের প্রায় ৬ মাস পর সালাম চৌধুরী বাকী টাকা যোগাড় করতে থাকাবস্থায় আব্দুল সহিদ ও তার পুত্র তাদের টাকার বিশেষ প্রয়োজনের কথা বলে আরো ১ লাখ টাকা দিতে সালাম চৌধুরীকে চাপ প্রয়োগ করে। আসামীদের পীড়াপীড়িতে একই বছরের ২৫ নভেম্বর আব্দুল সহিদ ও পুত্র রাজেন মিয়াকে ১ লাখ টাকা সমজে দেন সালাম চৌধুরী। পরে বাকী টাকা যোগাড় করার পর সালাম চৌধুরী আব্দুল সহিদকে জমি রেজিস্ট্রি করে দেয়ার জন্য বললে তারা দেই দিচ্ছি করে সময় ক্ষেপন করতে থাকে। এতে সন্দেহ হলে সালাম চৌধুরী জায়গা সমজে দেওয়ার জন্য চাপ দেন। ২০১৪ সালের ১৯ এপ্রিল রাজেন মিয়া জানায় সে নিজেই জায়গার মালিক। তার পিতা আব্দুল সহিদ ২০০৪ সালের ২০ নভেম্বর ৪২৯৮/০৪ দলিলমূলে তার নিকট বিক্রি করে দিয়েছেন। এ কথা শুনে সালাম চৌধুরী হতভম্ব হয়ে পড়েন। তিনি এর সত্যতা যাচাই করতে স্থানীয় এসআর অফিস থেকে দলিল সংগ্রহ করেন। দলিল সংগ্রহের পর আব্দুল সহিদের প্রতারণার বিষয়টি ধরা পড়ে। অবশেষে সালাম চৌধুরী ২০১৫ সালের ২০ অক্টোবর আব্দুল সহিদ ও তার পুত্রের কাছে তাদেরকে দেয়া টাকা ফেরত চান। কিন্তু তারা টাকা ফেরত না দিয়ে তার সাথে খারাপ আচরণ করে এবং তাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। সালাম চৌধুরীর সরলতার সুযোগ নিয়ে পিতা-পুত্র প্রতারণার মাধ্যমে ৩ লাখ টাকা আত্মসাত করে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com