সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০৫:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
ফের দায়িত্ব নিলেন মেয়র গউছ

ফের দায়িত্ব নিলেন মেয়র গউছ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরখাস্তের ৪ দিন পর ফের পৌরসভার দায়িত্ব নিয়েছেন হবিগঞ্জ পৌর মেয়র আলহাজ্ব জি কে গউছ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে দায়িত্ব গ্রহণকালে তাকে ফুলে ফুলে সিক্ত করেছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ফুল নিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন দলীয় নেতাকর্মীরাও। জি কে গউছের মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ উপলক্ষে পৌরসভা কার্যালয়কে সাজানো হয় ফুল ও বেলুন দিয়ে। আয়োজন করা হয় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের।
দোয়া শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছি। ২০০৪ সালে প্রথম চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েই পৌরসভার উন্নয়নে কাজ শুরু করি। কিন্তু আমি বার বার বাঁধার সম্মূখিন হয়েছি। ফলে পৌরসভাকে আমি সাজাতে পারিনি। এটি হচ্ছে আমার ব্যর্থতা। আমি যখনই কাজ শুরু করি তখনই চক্রান্তকারীরা আমার পেছনে লেগে যায়।
তিনি বলেন, ১/১১ এর সময় আমার নামে ১১টি মামলা দেয়া হয়েছিল। ৫৯১ দিন দেশের বিভিন্ন কারাগারে আটক রাখা হয়েছিল। প্রত্যেকটি মামলাই আমি বেকসুর খালাস পেয়েছি। বর্তমানে যে মামলাগুলোতে আমি কারাগারে ছিলাম এবং বরখাস্ত হয়েছিলাম সে দু’টি মামলার একটি ১০ বছর এবং অপরটি ১২ বছর পূর্বের ঘটনা। এ মামলাগুলোর তৃতীয় ও চতুর্থ অভিযোগপত্রে আমাকে আসামি শ্রেণিভূক্ত করে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছিল। আমি কারাগার থেকে নির্বাচনে অংশ নিয়ে সরকার সমর্থিত প্রার্থীর চেয়ে অনেক বেশী ভোট পেয়ে তৃতীয় বারের মতো নির্বাচিত হয়েছি। মেয়র গউছ বলেন, স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিরা কাজ করতে কেন্দ্রীয় সরকারের সহযোগিতার প্রয়োজন। আমরা শুনেছি সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী বলেছেন আমাদের বরখাস্তের খবর প্রধানমন্ত্রী জানতেন না। আমরাও এটি বিশ্বাস করি। রাষ্ট্রের অভিভাবক হিসেবে প্রধানমন্ত্রী এবিষয়ে নজর দেবেন বলে তিনি প্রত্যাশা করেন। এর আগে সকাল ১১টায় দলীয় নেতাকর্মীরা তাকে পৌরসভা কার্যালয়ে নিয়ে আসেন। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com