মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:১৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
উচ্ছেদ ঃ আজ থেকে দখলমুক্ত হচ্ছে পুরাতন খোয়াই নদী চুনারুঘাটে ৩ হাজার ৪শ পিছ ইয়াবাসহ আটক ৩ নবীগঞ্জে রাজনৈতিক সিন্ডিকেটের মাধ্যমে শেষ হলো সরকারি ধান ক্রয়ের কার্যক্রম ॥ বঞ্চিত হলো সাধারণ কৃষক পুরাতন খোয়াই নীদতে ২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে “খোয়াই রিভার সিস্টেম” নদী রক্ষা কমিশনের তালিকায় হবিগঞ্জে ৬শ’ অবৈধ দখলদার সরকারি সফরে যুক্তরাষ্ট্র গেছেন এডঃ মোঃ আবু জাহির এমপি সংবাদ প্রকাশের পর হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের কর্মচারী জাহিরের দৌড়ঝাপ মাধবপুরে মাদকসেবীর ভ্রাম্যমান আদালতে তিন মাসের জেল জেলা সাংবাদিক ফোরামের নির্বাচনে আরো ৪ বিনা প্রতিন্দ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ফুটবল বাংলাদেশের অত্যন্ত জনপ্রিয় খেলা-এমপি মিলাদ গাজী
সরকারী টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে দুদক

সরকারী টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে দুদক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারী কোষাগারে জমা না দিয়ে নিজেই বিপুল অর্থ আত্মসাতের দায়ে মুখলেছুর রহমান নামে বন বিভাগের এক সাবেক রেঞ্জ কর্মকর্তাকে আটক করেছে হবিগঞ্জ দুদক। দুদক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক খন্দকার খলিলুর রহমানের নির্দেশে সরকারী টাকা আত্মসাতের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সহকারী পরিচালক মোঃ ফখরুল ইসলাম মঙ্গলবার দুপুরে হবিগঞ্জ শহরের রাজনগরস্থ দুদক কার্যালয় থেকে মুখলেছুরকে আটক করেন। গ্রেফতারকৃত মুখলেছুর রহমান জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলাধীন রায়েরপাড়া গ্রামের লুৎফুর রহমানের পুত্র। হবিগঞ্জ দুদক কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোঃ ফখরুল ইসলাম জানান, আটকের পরপরই এই বনকর্মকর্তাকে হবিগঞ্জ সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, থানা কর্তৃপক্ষ তাকে হবিগঞ্জ আদালতে হাজির করার পর মৌলভীবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের উদ্দেশ্যে হবিগঞ্জ থেকে প্রেরন করা হবে।
তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই রেঞ্জ কর্মকর্তাকে আটকের বিষয়ে বিগত ২০১৬ সালের ১৮ এপ্রিল দায়েরকৃত মামলার বিবরন দিয়ে জানান, মৌলভীবাজার জেলাধীন জুরীতে রেঞ্জ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত থাকাবস্থায় মুখলেছুর রহমান বনবিভাগের বিভিন্ন খাতের আয় থেকে প্রাপ্ত টাকা সরকারী কোষাগারে জমা না দিয়ে ৭ লাখ ৩০ হাজার ৪’শ ৪২ টাকা নিজেই আত্মসাত করেন। এর পর তার বিরুদ্ধে ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ ২নং আইনের ৫ (২) ধারার অপরাধ করার অভিযোগে ওই মামলা করে দুদক। মামলা নং-৪০৯। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফখরুল ইসলাম আরও জানান, প্রাথমিকভাবে ওই টাকা আত্মসাতের দায়ে মুখলেছুর রহমান জড়িত থাকার প্রমান মেলায় তাকে আটক করা হলেও তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার তদন্ত চলবে। দুর্নীতি প্রতিরোধে যেমন রয়েছে শক্ত অবস্থানে, তেমনি দুর্নীতির সাথে কেউ জড়িত হলে দুদক তাকে ছাড় দেবে না। দুদক এ ব্যাপারে জিরো ট্রলারেন্স ঘোষনা করেছে।
এদিকে ওই কর্মকর্তা হবিগঞ্জ অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল কোর্টে বন মামলা পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন বলে জানান তার সহকর্মীরা। তার আটকের খবর পেয়ে জুডিসিয়াল কোর্টের বন কর্মচারীরা থানায় জড়ো হন। চলতি মাসের বেতন ওই কর্মকর্তার কাছে থাকায় কর্মচারিরা তাদের বেতনের টাকাও দাবি করেন। এ সময় ওই বন কর্মকর্তা কোন সুদত্তর না দিয়ে চুপ থাকেন।
এ ব্যাপারে আটক বন কর্মকর্তা জানান, তার চাকুরীর ১৯ দিন বাকী আছে। এরপর তিনি পেনশনে চলে যাবেন। তিনি টাকা আত্মসাত করেননি। তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। আজ বুধবার তাকে কোর্টে প্রেরণ করা হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com