শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯, ০৫:১৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সদর উপজেলার যমুনাবাদে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু চুনারুঘাটে চোরাই সেগুন কাঠ উদ্ধার যুক্তরাজ্যে হবিগঞ্জবাসীর উদ্যোগে ঈদ পূনর্মিলনী “আনন্দ সন্ধ্যা” নবীগঞ্জের বনকাদিপুর আমজাদ ॥ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আর নেই বঙ্গবন্ধু ছিলেন আধুনিক বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা ॥ এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জে বিষাক্ত সাপের কামড়ে গৃহবধু আহত সীমেরগাঁও গ্রামে সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধ ২ জনসহ আহত ১০ সৌদি আরবের জেদ্দা কনস্যুলেট এর উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালন ॥ বিশেষ অতিথি হিসাবে মন্ত্রী মাহবুব আলীর যোগদান মাধবপুরে সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী গ্রেপ্তার নবীগঞ্জ উপজেলা ও পৌর জাতীয় পার্টির ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্টিত
মওসুমের শুরুতেই পর্যটক আসতে শুরু করেছে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে

মওসুমের শুরুতেই পর্যটক আসতে শুরু করেছে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে

চুনারঘাট প্রতিনিধি ॥ মওসুমের শুরুতেই পর্যটক আসতে শুরু করেছে চুনারুঘাটের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে। ডিসেম্বর মাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর এবং শীত বাড়ার সাথে সাথে প্রতিদিন বাড়ছে পর্যটকদের ভিড়। ভ্রমন পিপাসুদের বাড়তি আনন্দ দিতে নানা সাজ সজ্জায় সাজানো হয়েছে পর্যটন এলাকা। পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে পর্যটন পুলিশের পাশা পাশি উদ্যান এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থাও রয়েছে বলে জানান কর্তৃপক্ষ।
স্কুলের পরীক্ষা শেষ হওয়ায় শিক্ষক ছাত্র/ছাত্রী সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ নগর জীবনের যান্ত্রিকতা থেকে একটু মুক্তির লক্ষ্যে প্রকৃতিকে উপভোগ করতে ছুটে আসছেন জাতীয় উদ্যানের পিকনিক স্পটে। সারাদিন ছোটাছোটি, খেলাধুলা আর হই হুল্লোর শেষে ক্লান্ত দেহ মন নিয়ে সন্ধ্যায় নীড়ে ফিরছেন প্রকৃতি প্রেমী মানুষগুলো। ৭টি ছড়ার একটি মোহনার নাম সাতছড়ি। পর্যটন এলাকার চার পাশে রয়েছে নয়নাভিরাম চা বাগান যা সহজেই প্রকৃতি প্রেমী পর্যটকদের হাতছানি দিয়ে ডাকে। পাশাপাশি সাতছড়ি উদ্যান এলাকার ছড়া ও চা বাগানের লেকগুলোতে সুদুর সাইবেরিয়া সহ বিভিন্ন দেশ থেকে ছুটে আসা অতিথি পাখির কিচিরমিচির শব্দ ছাড়াও পাহাড়ের জীব বৈচিত্র পশুপাখির কলতান ভ্রমন পিপাসুরা মন ভরে উপভোগ করেন। পর্যটন মৌসুম ছাড়াও বছর জুড়েই পর্যটকরা পরিবার পরিজন নিয়ে পাহাড়ি লতাপাতা নয়নাভিরাম চা বাগান আর জীব বৈচিত্রের সান্নিধ্য পেতে ছুটে আসেন সাতছড়ি পর্যটন এলাকায়। এ নিয়ে কথা হয় সাতছড়ি পর্যটন এলাকায় বেড়াতে আসা বি-বাড়িয়া জেলার বিজয় নগর থানার সজিব আহমেদের সাথে, তিনি জানান, এ উদ্যানে আগেও আমার একবার আসা হয়েছিল। এবারও এসেছি সবুজ প্রকৃতিকে উপভোগ করতে। কিন্তু উদ্যান এলাকায় তেমন একটি পরিবর্তন দেখতে পাইনি। তবে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানকে আরও পরিকল্পিত ভাবে গড়ে তুলা প্রয়োজন বলে মনে করছেন পর্যটকরা।
এ ব্যাপারে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে কর্মরত হিসাব রক্ষক জসিম উদ্দিন জানান, উদ্যান এলাকাকে দ্রুত পর্যটক মুখি হিসেবে গড়ে তুলতে নানা পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষের রয়েছে। তিনি বলেন, ডিসেম্বরের শেষ থেকে উদ্যানে পর্যটক বাড়ছে। আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত পর্যটকদের এমন ভীর থাকবে। থাকবে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পিকনিক পার্টিরও।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com