রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শহরে এক রাতে তিন দোকানে চুরি ॥ টায়ার জ্ব¦ালিয়ে অবরোধ শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ৫০ শয্যার হাসপাতালের সেবা টিনের ঘরে এক চিকিৎসক দিয়ে চলে ! আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় এমপি আবু জাহির ॥ ১২ কোটি টাকায় সংস্কার হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরের প্রধান সড়ক হবিগঞ্জ শহরে মাস্ক না পড়ায় ১৪ ব্যক্তিকে জরিমানা প্রদান বাহুবলে ভাবীকে ধর্ষণের চেষ্টা ॥ আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় শ্বশুর গ্রেপ্তার হবিগঞ্জে নতুন করে ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এম এ গফুর চৌধুরী কল্যাণ ট্রাস্ট এর সৌজন্যে শীতবস্ত্র বিতরণ নবীগঞ্জ পৌরসভার ২টি উন্নয়ন কাজ উদ্বোধন করলেন মেয়র ছাবির নবীগঞ্জে কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ ও সার বিতরণ হবিগঞ্জের পইল গ্রামে রাস্তা সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন
স্মৃতিচারণ সভায় এমপি আবু জাহির সামাজিক বিচারের বড় প্রতিষ্ঠান ছিলেন মরহুম উমদা মিয়া

স্মৃতিচারণ সভায় এমপি আবু জাহির সামাজিক বিচারের বড় প্রতিষ্ঠান ছিলেন মরহুম উমদা মিয়া

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি আলহাজ্ব এডঃ মোঃ আবু জাহির বলেছেন, মরহুম ডাঃ সামছুল হোসেন উমদা মিয়া ছিলেন একজন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক। যুদ্ধের পর অনেকেই মুক্তিযোদ্ধা সেজেছে। অনেকেই অনেক কিছুই করেছে। কিন্তু তিনি ছিলেন লোভ লালসার উর্দ্ধে। অনেক প্রলোভন দিয়েও তাকে আদর্শচ্যুৎ করা যায়নি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যখন হবিগঞ্জে আওয়ামীলীগ নেতৃত্বহীনতা ছিল, সেই সময়ে তিনি দলের হাল ধরেছিলেন। উমদা মিয়া সমাজের শান্তির জন্য নিজের সুখকে বিসর্জন দিয়েছিলেন। নিজের পেশায় ও পরিবারকে সময় না দিয়ে তিনি সমাজের শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আজীবন কাজ করে গেছেন। তিনি ছিলেন সামাজিক বিচারের বড় একটি প্রতিষ্ঠান।
গতকাল রাতে চৌধুরী বাজার জামে মসজিদের সামনে উমদা মিয়া স্মৃতি সংরক্ষণ কমিটির উদ্যোগে মরহুম ডাঃ সামছুল হোসেন উমদা মিয়া স্মরণে স্মৃতিচারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথাগুলো বলেন।
হবিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের প্রধান শিক্ষক আবুল লেইছ এর সভাপতিত্বে ও আব্দুল হানান ফরিদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি এডঃ আব্দুল মজিদ খান। বক্তব্য রাখেন, সাবেক এমপি এডঃ চৌধুরী আব্দুল হাই, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ সাখাওয়াত হাসান জীবন, আব্দুর রহিম জুয়েল, শংকর পাল, ইদু মিয়া, রইছ মিয়া, মোঃ শাবান মিয়া, আতাউর রহমান সেলিম, অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, এডঃ নিলাদ্রী শেখর পুরকায়স্থ টিটো, উসমান গনি, ইউপি চেয়ারম্যান আহাদ মিয়া, মশিউর রহমান শামীম, সৈয়দ কামরুল হাসান, মোঃ মর্তুজ আলী লুদাই, হুমায়ুন কবির রেজা, নিমরাজ মিয়া, ইউনিছ মিয়া, আবুল হাসিম, জালাল উদ্দিন খান, মিজানুর রহমান মিজান, আব্দুর রহমান আফজাল, কাউন্সিলার জুনেদ মিয়া, আমিরুল ইসলাম রফিক, হাবিবুর রহমান হাবিব, রফিকুল ইসরাম রফিক, আব্দুল খালেক টেনু ও উমদা মিয়ার বড় ছেলে ফরহাদ হোসেন কলি।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এমপি আব্দুল মজিদ খান বলেন, বুদ্ধি আর প্রায়োগিক শক্তি সবার একসাথে কাজ করে না। কিন্তু উমদা মিয়া ছিলেন ব্যতিক্রম। বক্তারা বলেন তিনি ব্যবসায় নেতৃত্ব দিয়েছেন। সফল স্কাউটার ছিলেন। রজনীতিতেও সফল ছিলেন। সমাজের উমদা মিয়ার মত লোক যুগে যুগে আসে না। তার স্মৃতি ধরে রাখা প্রয়োজন।
প্রসঙ্গত-হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, মুক্তিযুদ্ধকালীন সর্বদলীয় সংগ্রাম কমিটির সদস্য সচিব, গ্রাম্য সালিশ বিচারের প্রবাদ পুরুষ বিশিষ্ট স্কাউটার ডাঃ সামছুল হোসেন উমদা ১৯৯৮ সালের ১১ ডিসেম্বর ঢাকার বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি বাংলাদেশ স্কাউটস চট্টগ্রাম অঞ্চলের কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন। রাজনৈতিক জীবনে তিনি দেশ স্বাধীনের পর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সাবেক এমপি শরীফ উদ্দিনের মৃত্যুর পর তিনি জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। হবিগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনেও তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। মরহুম সামছুল হোসেন উমদা মিয়া হবিগঞ্জ জেলা তথা বৃহত্তর সিলেট, কিশোরগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অনেক বড় বড় বিরোধ সালিশে নিষ্পত্তি করে ভূয়সী প্রসংশা অর্জন করেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com