মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৪:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডের শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরণ-বোনাসের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন

বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডের শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরণ-বোনাসের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডের শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরণ ও বোনাসের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে শ্রমিকরা। গতকাল শুক্রবার সকালে বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডের সামনে শ্রমিকরা মানববন্ধন করে। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ড এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন শ্রমিক নেতা কামরুল ইসলাম, বাবলু আহমেদ, স্থানীয় ইউপি মেম্বার জবা বেগম প্রমুখ। প্রতিবাদ সভায় বক্তারা তাদের চাকুরী স্থায়ীকরণ না হলে কঠোর আন্দোলন করা হবে বলে ঘোষনা দেন।
শ্রমিক নেতা কামরুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে বিবিয়ানায় যখন শেভরন কাজ শুরু করে তখন, বিভিন্ন এজেন্ট এর মাধ্যমে ১৫৪জন শ্রমিক কাজে যোগদান করেন। মাটি খনন থেকে গ্যাস উত্তোলন পর্যন্ত কাজ করে আসলেও তাদের চাকুরী স্থায়ীকরণ করা হয়নি। বরং শেভরন এখন দেশ থেকে চলে যাচ্ছে। শ্রমিকরা ১০ থেকে ১২ ঘন্টা কাজ করলেও ন্যায্য মজুরী পায়নি। তাদের কোন ঝুকি ভাতা ও বীমা নেই। ঈদের সময় দেয়া হয় বেতনের তিন ভাগের একভাগ বোনাস।
তিনি আরও বলেন, শেভরন আমাদের রক্ত চুষে নিচ্ছে। তারা আমাদেরকে স্বপ্ন দেখিয়েছিল ৩০ বছরের জন্য আমাদেরকে চাকুরী দিবে। এখন ১০ বছর পরই তারা চলে যেতে যাচ্ছে। তাদের চাকুরী স্থায়ী এবং বোনাস না দিলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষনার কথাও জানান তিনি।
শেভরন কর্তৃপক্ষ বলছে, ওই শ্রমিকরা তাদের নিয়মিত শ্রমিক নয়। তৃতীয় একটি পক্ষ এই শ্রমিক সরবরাহ করে থাকে। তাদের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারদের। শ্রমিকরা অযৌক্তিকভাবে এই আন্দোলন করছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com