বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল ॥ এমপি আবু জাহির সভাপতি আলমগীর চৌধুরী সম্পাদক হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এমপি ॥ আওয়ামীলীগে কোন দূষিত রক্ত থাকতে পারবে না সাতছড়ি উদ্যানে ঘুরতে গিয়ে গণ ধর্ষণের শিকার প্রেমিকা ॥ ৩ লম্পট আটক সর্বোচ্চ ভ্যাট পরিশোধকারী হিসেবে ক্রেস্ট ও সম্মাননা স্মারক পেলেন মেসার্স শরীফ এমপি আবু জাহিরের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ নবীগঞ্জে সিএনজি স্ট্যান্ড নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২৫ নবীগঞ্জে আনোয়ারখালী খাল পানি ব্যবস্থাপনা সমিতির নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন দাখিল নবীগঞ্জে জাতীয় পার্টির কর্মী সভায় দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে জাপা নেতা মুরাদ আহমদ বহিস্কার যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশসহ নিহত ৬ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দরগা গেইটে ট্রাক চাপায় শিশু নিহত
খোয়াই চরের ১৪০ বিঘা জমি দখলে নিতে বিএসএফ’র শক্তি প্রদর্শন ॥ চাষাবাদ রেখে কৃষকদের পলায়ন

খোয়াই চরের ১৪০ বিঘা জমি দখলে নিতে বিএসএফ’র শক্তি প্রদর্শন ॥ চাষাবাদ রেখে কৃষকদের পলায়ন

বাংলাদেশে অবস্থিত খোয়াইচরে বিএসএফ’র টহল।

স্টাফ রিপোর্টার, চুনারুঘাট থেকে ॥ চুনারুঘাটের বাল্লা সীমান্তের খোয়াই চর থেকে ১২ জন কৃষককে তাড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বিএসএফ। গতকাল বুধবার সকালে খোয়াই চরে চাষাবাদ করতে গেলে সিংগীছড়া ক্যাম্পের একদল বিএসএফ জোয়ান কৃষকদেরকে তাড়িয়ে দেয়। ওই কৃষকরা বিজিবি’র অনুমতি নিয়ে খোয়াই চরে বিগত ৬ মাস যাবৎ চাষাবাদ করে আসছিলেন বলে জানান। আক্তার ও নুরুল হক নামের কৃষক জানান, ৬ মাস পূর্বে ১২ জন কৃষক বাল্লা সীমান্তের মোকামঘাট নামক স্থানে অবস্থিত খোয়াই চরে চাষাবাদ শুরু করেন। খোয়াই চরটি কাঁটা তাঁরের বেড়া থেকে প্রায় ৬’শ হাত দূরে অবস্থিত। ভারতীয় কৃষকরা কাঁটা তারের বেড়া ফেরিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে চাষাবাদ অব্যাহত রাখলেও বাংলাদেশী চাষীদেরকে ফসল ফলাতে দিচ্ছেনা বিএসএফ। খোয়াই চরে বাংলাদেশী কৃষকের ১৪০ বিঘা জমি রয়েছে। এলাকাবাসি জানান, ১৯৯২ সালে মোকামঘাট নামক স্থানে অবস্থিত খোয়াই চরে যাতায়াতের জন্য চাষীরা বাঁশের সাঁকো নির্মান করলে বিএসএফ বাধা দেয়। এনিয়ে তৎকালিন বিডিআর-এর সাথে বিএসএফ জোয়ানদের উত্তেজনা দেখা দেয়। উভয় সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করার পর নিরাপত্তার প্রশ্নে-সীমান্তবাসিরা নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যান। স্থানে স্থানে পরিখা খনন করে রণ সাজে টহল পরিচালনা করে সীমান্তরক্ষীরা। টানা ১ মাস উত্তেজনাকর পরিস্থিতির ইতি ঘটে পতাকা বৈঠকের সিদ্ধান্তের পর। পতাকা বৈঠকের পর কয়েক দফা সীমানা জরিপ চালানো হয়। নির্মিত হয় নতুন সীমানা পিলার। ঢাকা-দিল্লী বৈঠক শেষে খোয়াই চর বাংলাদেশের বলে চিহ্নিত হয়। ফাঁকে চলে চিঠি চালা-চালি। এরপর চলে কাঁটা তাঁরের বেড়া নির্মান কাজ। ২ বছর পূর্বে খোয়াই চরের বিপরীতে অবস্থিত ত্রিপুরা রাজ্যের দূর্গানগর এলাকায় বেড়া নির্মান সমাপ্ত করে ভারত সরকার। এতে খোয়াই চরের পুরো এলাকা বাংলাদেশ অংশে চলে আসে, কিন্তু ইন্দ্রিরা-মুজিব চুক্তি অজু হাতে বিএসএফ খোয়াই চরে অবস্থিত ১৪০ বিঘা জমি অস্ত্রের ভয়ে দখলে নেয়। এ সুযোগে ভারতীয় চাষীরা কাঁটা তার ফেরিয়ে খোয়াই চরে চাষাবাদ চালিয়ে যায়।
গত ৬ মাস পূর্বে বিজিবি’র অনুমতি নিয়ে চাষীরা খোয়াই চরে চাষাবাদ শুরু করে। এরই মধ্যে গতকাল বুধবার হঠাৎ বিএসএফ জোয়ানরা বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে চাষীদেরকে খোয়াই চর থেকে চলে যেতে নির্দেশ দেয়। এতে আতকিংত কৃষকরা চাষাবাদ রেখে চলে আসতে বাধ্য হন। এ ব্যাপারে বাল্লা বিজিবি’র কোম্পানী কমান্ডার বলেন, বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com