বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে বাচ্চা চুরির ১ ঘন্টার মধ্যে উদ্ধার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার কালো দিবসের আলোচনা ॥ তারেক জিয়ার মৃত্যুদন্ড দাবি করেছেন এমপি আবু জাহির বাহুবলে প্রকাশ্য দিবালোকে চা শ্রমিকদের ॥ ভাতার ১২ লাখ টাকা ছিনতাই অভিযানে অর্ধেক টাকা উদ্ধার বানিয়াচঙ্গে হত্যা মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান সহ ৪ আসামী বিরুদ্ধে নারাজীর আবেদনের শুনানীর তারিখ পিছিয়েছে কুলাউড়ায় ট্রাক-সিএনজি সংঘর্ষে ॥ চুনারুঘাটের ১ ব্যক্তি নিহত ॥ স্ত্রী-সন্তান আহত নবীগঞ্জে দু’দলের সংঘর্ষে আহত ৪ চুনারুঘাটে সাংবাদিক নাছিরের উপর হামলা ॥ প্রতিবাদে সভা শায়েস্তাগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে মোটরসাইকেল আটক হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বারাপইলে দুধ ব্যবসায়ীর উপর প্রতিপক্ষের হামলা ॥ নগদ টাকা ও মোবাইল লুট মাধবপুরে ২শ পিস ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
নবীগঞ্জে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রের গলা কাটা লাশ উদ্ধার ॥ খুনিরা ধরাছোয়ার বাহিরে ৩ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি কেউ

নবীগঞ্জে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রের গলা কাটা লাশ উদ্ধার ॥ খুনিরা ধরাছোয়ার বাহিরে ৩ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি কেউ

স্টাফ রিপোর্টার, নবীগঞ্জ থেকে ॥
নবীগঞ্জ উপজেলার ক্রাইমজোন হিসাবে খ্যাত দীঘলবাক ইউনিয়নের বোয়ালজুর গ্রামে ৮ম শ্রেনীর ছাত্র শাহনাজের গলা কাটা লাশ উদ্ধারের ঘটনায় খুনিরা এখনও রয়েছে ধরাছোয়ার বাইরে। থানায় মামলা হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতারের খবর পাওয়া যায়নি। অপরদিকে সন্তান হারানোর বেদনায় কিশোর শাহনাজের মা ময়না বিবিসহ তার স্বজনদের আহাজারিতে এলাকার আকাশ বাতাশ ভারি হয়ে উঠেছে। তাদের বাড়ীতে এখনও চলছে কান্নার রোল। ঘটনার খবর পেয়ে গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আ স ম শামসুর রহমান ভুইয়া, সহকারী পুলিশ সুপার দক্ষিন সার্কেল রাসেলুর রহমান ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র দাশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নিহত শাহনাজের স্বজন ও গ্রামের লোকজনের সাথে কথা বলে আশ্বস্থ করেছেন হত্যাকারীদের গ্রেফতারে পুলিশের সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত।
উল্লেখ্য, গত ৪ ডিসেম্বর রবিবার রাত ১০টার দিকে ওই গ্রামের ইউনুছ মিয়ার ছেলে ৮ম শ্রেণীর ছাত্র শাহনাজকে ফুটবল খেলার পোস্টার বিতরনের জন্য ঘর থেকে ডেকে নেয় একই গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের পুত্র জসিম আহমদ লিজু, সাজু মিয়া, আব্দুল জলিলের পুত্র তুয়েল মিয়া, আব্দুর রহিমের পুত্র ফরহাদ মিয়া, মাসুক মিয়ার পুত্র খালেদ মিয়াসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন। এর পর থেকে শাহনাজ আর বাড়িতে ফিরেনি। সারা রাত শাহনাজের পরিবারের লোকজন তাকে গ্রামের বিভিন্নস্থানসহ আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে খোজাখুজি করেন। এক পর্যায়ে পরের দিন ৫ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ৭টার দিকে স্থানীয় লোকজন দেখতে পান কালিগঞ্জের নিকটে জোয়ালভাঙ্গা হাওরে পড়ে আছে শাহনাজের গলা কাটা লাশ। পরে খবর পেয়ে সকাল ১০টার দিকে নবীগঞ্জ থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করে লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে। পোষ্টমর্টেম শেষে ওই দিন রাত ৯টায় শাহনাজের লাশ নিজ বাড়ীতে আসলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়। গ্রামের আকাশ বাতাশ ভারি হয়ে উঠে। পরে রাত সাড়ে ৯টায় নিহতের জানাযার নামাজ শেষে গ্রামের পঞ্চায়েত কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে নিহতের ভাই শাহিদ মিয়া বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
এদিকে নিহতের মা হুসনা বেগম ওরপে ময়না বিবি অভিযোগ করে বলেন, আমার ছেলেকে পাষন্ডরা নির্মমভাবে হত্যা করেছে। ঘটনার ৩দিন অতিবাহিত হলেও খুনিদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আমি আমার ছেলে হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতারের দাবী জানাই। এ ব্যাপারে আসম শামসুর রহমান ভূইয়া বলেন, আমি গতকাল তদন্তকাজে সহযোগিতার তাদের বাড়িতে গিয়েছি। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। তাদের উভয় পক্ষের মাঝে একাধিক মামলা মোকদ্দমা রয়েছে। পুলিশ সকল বিষয় মাথায় নিয়ে কাজ করছে। আসা করছি খুব শিঘ্রই হত্যাকান্ডে মুটিভ উদঘাটন করতে পারব। এবং এর সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হব। তাছাড়া তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ পুলিশের কোন গাফিলতি হলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com