শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ০৪:৫২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ভারতীয় নাগরিকের পিটুনীতে বাংলাদেশী খুন ॥ লাশের অপেক্ষায় স্বজনরা বানিয়াচংয়ের বিভিন্ন বাজারে সেনাবাহিনীর জনসচেতনতামূলক প্রচারাভিযান শ্রীমঙ্গলে ৬৭ টি মামলায় ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা নবীগঞ্জে সরকারের অর্থ সহায়তার তালিকায় নারী কাউন্সিলরের পরিবারের ৬ সদস্যের নাম শচীন্দ্র লাল সরকারের সমাধীতে জেলা সিপিবি, উদীচী, কিবরিয়া ফাউন্ডেশন, সচেতন নাগরিক কমিটি ও মাতৃছায়া কেজি এন্ড হাইস্কুলের পুষ্পস্তবক অর্পন দৈনিক খোয়াই পত্রিকার সার্কুলেশন ম্যানেজার সাইফুলের পিতার ইন্তেকাল নবীগঞ্জে ভাতিজার হাতে চাচা খুন শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শ্রীমঙ্গল পৌরসভার কাউন্সিলর আব্দুল আহাদের মৃত্যু বানিয়াচঙ্গের হাওর থেকে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার হবিগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১
মাধবপুরের শাহজালাল কলেজের চাকুরী হারানো শিক্ষকদের নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের রুল

মাধবপুরের শাহজালাল কলেজের চাকুরী হারানো শিক্ষকদের নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের রুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মাধবপুরের শাহজালাল কলেজ থেকে অধ্যক্ষের ঘুষ ও দুর্নীতির কারনে চাকুরী হারানো শিক্ষকদের কলেজের বিভিন্ন বিষয়ে নিয়োগে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে কলেজ কর্তৃপক্ষকে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। গত ১৪ নভেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ও শেখ হাসান আরিফের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ আবেদনকারী প্রার্থীদের পক্ষে এই রুল জারি করেন। একই সাথে আবেদনকারীদের মধ্যে যারা বর্তমানে শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তাদের চাকুরির বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করার জন্য কলেজের এডি ইনজাংশন জারী করেন হাইকোর্টের ওই বেঞ্চ। আবেদনকারীদের পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন। ভুক্তভোগী আবেদনকারীরা জানান, কলেজ অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নিয়োগ দেননি। কলেজটি জাতীয়করণের তালিকাভুক্ত। ভুক্তভোগী শিক্ষকদের মধ্যে আটজন অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে অভিযোগও জমা দিয়েছেন। ভূক্তভোগীরা আরো জানান, অধ্যক্ষসহ কমিটির একটি অংশের ঘুষ দুর্নীতির কারনে শিক্ষকদের চাকুরী স্থায়ীকরণ হচ্ছে না। তারা প্রত্যেকের চাকুরী স্থায়ীকরণের জন্য জনপ্রতি ২ লাখ টাকা করে ঘুষ চান বলেও তারা অভিযোগ করেন। অধ্যক্ষ ও কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারনে শিক্ষকদের সোনালী ভবিষ্যত নষ্ট হচ্ছে। তারা আরো জানান, শিক্ষকরা সকলেই ডিগ্রী ও অনার্স পর্যায়ে ২০০৯ সাল থেকে বিভিন্ন সময় নিয়োগ লাভ করেন। কিন্তু এরপর কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের নিয়োগ বৈধকরণের কথা বলে আরও কয়েকবার সার্কুলার দিয়ে তাদের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়। সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর আবারও তাদের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়া হয়। কিন্তু তাদেরকে স্থায়ী নিয়োগ দেয়া হয়নি। এরপর কয়েকবার সভা মিটিং করে তাদের কোন বৈধ নিয়োগ দেয়া হয়নি। ফলে তারা বাধ্য হয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। রিটের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।
এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক জানান, হাইকোর্টের নির্দেশনা কলেজে আসেনি। সরকারী নির্দেশনা কলেজে আসার পর গভর্ণিং বডির সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com