সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৩০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
নবীগঞ্জের নদী খোকোদের তালিকা প্রকাশ ॥ শীঘ্রই উচ্ছেদ অভিযান মাধবপুরে ছোট ভাইয়ের পিটুনীতে বড় ভাই খুন এমপি আবু জাহিরের প্রচেষ্টায় হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ ॥ আজ এক যোগে উদ্বোধন নবীগঞ্জে সন্ত্রাসী মুছা ১০ দিনেও অধরা কর আদায়ের উপর নির্ভর করে পৌরসভার উন্নয়ন-মেয়র ছাবির চৌধুরী নবীগঞ্জে নারী প্রতারক গ্রেপ্তার মানুষ বাঁচে তার কর্মে, বয়সের মধ্যে নয়-মিলাদ গাজী এমপি নবীগঞ্জে সাবেক ইউপি সদস্যের দাফন সম্পন্ন ॥ শোক প্রকাশ ‘হবিগঞ্জের মানুষ অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী-মেয়র মিজান দুর্নীতি আর লুটপাটের মহাসাগরে নিমজ্জিত আওয়ামীলীগের পতন হবেই- জিকে গউছ
সাংবাদিক শোয়েব চৌধুরীর বিরুদ্ধে আরো দু’টি মামলা ॥ মামলায় শোয়েব চৌধুরী ছাড়াও তার সহযোগী অজ্ঞাত অনেককেই আসামী করা হয়েছে

সাংবাদিক শোয়েব চৌধুরীর বিরুদ্ধে আরো দু’টি মামলা ॥ মামলায় শোয়েব চৌধুরী ছাড়াও তার সহযোগী অজ্ঞাত অনেককেই আসামী করা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥
হবিগঞ্জের আওয়ামী লীগ দলীয় ৩ সংসদ সদস্যকে নিয়ে অবমাননাকর সচিত্র সংবাদ প্রকাশ করে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে তাদের সম্মানহানি করায় দৈনিক প্রভাকর সম্পাদক শোয়েব চৌধুরীর বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে হবিগঞ্জ সদর ও বানিয়াচঙ্গ থানায় পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করেন সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শেখ সেকুল আহমেদ ও এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খানের ব্যক্তিগত সহকারি সেলিম উদ্দিন। উভয় মামলায় আসামী শোয়েব চৌধুরী ছাড়াও তার সহযোগী ও ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে অজ্ঞাত অনেককেই আসামী করা হয়েছে।
হবিগঞ্জ সদর মডেল থানায় দায়েরকৃত মামলায় বাদী আরজিতে উল্লেখ করেন- আসামী শোয়েব চৌধুরী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনী ফারুক রশিদের নেতৃত্বাধীন ফ্রিডম পার্টির একজন সক্রিয় সদস্য। তার চাচা দৈনিক প্রভাকরের প্রাক্তন সম্পাদক মরহুম নোমান চৌধুরীও ফ্রিডম পার্টির একজন নেতা ছিলেন। এই কারণে প্রায়শই আসামীর পত্রিকায় স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি এবং প্রধানমন্ত্রীসহ আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে নানানভাবে অপপ্রচার চালানো হয়। এরই ধারাবাহিকতায় আসামী শোয়েব চৌধুরী তার সম্পাদনায় প্রকাশিত প্রভাকর পত্রিকায় হবিগঞ্জ-লাখাই আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির, বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান ও চুনারুঘাট-মাধবপুর আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মাহবুব আলীর ছবি দিয়ে ‘হবিগঞ্জসহ ৬৫ অযোগ্য সাংসদকে বাদ দিবেন হাসিনা’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে সংবাদটি আসামীর প্রভাকর পত্রিকার ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে। এতে জনমনে মারাত্মক আঘাত ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। হবিগঞ্জ সদর-লাখাই আসনের একজন ভোটার হিসেবে আমিও মর্মাহত হয়েছি। এমপি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ১৯৭৫ পরবর্তী সময়ে দুর্দিনের একজন ছাত্রলীগ কর্মী থেকে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপর তিনি জেলায় ছাত্রলীগকে অত্যন্ত সুসংগঠিত ও শক্তিশালী সংগঠনের রূপান্তর করেন। সর্বশেষ তিনি কাউন্সিলরদের ভোটে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে বিএনপি প্রার্থীকে পরাজিত করে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের নির্বাচনে ২য় বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আবু জাহির। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড করেছেন। এতে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি স্বার্থন্বেষী মহল তার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। প্রভাকর পত্রিকার এ সংবাদটি দেখে আমিসহ সংসদ সদস্যদের অনুসারীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয় এবং সর্বমহলের নানা প্রশ্ন সৃষ্টি হয়। সংবাদে কলকাতার আনন্দ বাজার পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের বরাত দেয়া হলেও আনন্দ বাজার পত্রিকায় কোন সংসদ সংদস্যের নাম উল্লেখ করেনি। অথচ আসামী শোয়েব চৌধুরী তার পত্রিকায় শিরোনামের উপরে ৩ সংসদ সদস্যদের ছবি প্রকাশ করেছে হীন উদ্দেশ্যে। এতে আসামী তাদের মানহানিসহ সাইবার ক্রাইম করেছে। এছাড়া উদ্দেশ্যমূলকভাবে সংসদ সদস্যদের সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্ধৃতি দিয়ে লিখেছেন বর্তমানে যে সব সংসদ সদস্য ফুলে ফেপে কলাগাছ হয়ে গেছেন তাদের তালিকা তৈরি শুরু হয়ে গেছে। যারা সাংসদ হয়ে ধরাকে সরা মনে করেছেন শেখ হাসিনা এমন আগাছার মত অপদার্থদের ছাটবেন বলে ইতিমধ্যে আভাস পাওয়া গেছে। আসামী তার পত্রিকায় হবিগঞ্জ জেলার ৩ জন এমপির ছবি প্রকাশ করে তাদের নিচে ‘হবিগঞ্জসহ অযোগ্য ৬৫ জন সাংসদকে বাদ দিবেন হাসিনা’ এই কথাটি লিখে হলুদ সাংবাদিকতার পরিচয় দিয়েছেন। একজন সম্পাদক বা প্রকাশক বা কোন সাংবাদিক জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সংসদ সদস্যগণের বিরুদ্ধে এই ধরণের সংবাদ প্রকাশ করা রাষ্টদ্রোহীতার সামিল। এ ব্যাপারে আসামীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা উচিত মর্মে আমি ও দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ সচেতন মানুষ অনেকেই আশা করেন।
হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি ইয়াছিনুল হক জানান, তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭(২) ধারায় মামলাটি এফআইআর করা হয়েছে।
বানিয়াচঙ্গ থানায় দায়েরকৃত মামলার বাদী এমপি আব্দুল মজিদ খানের ব্যক্তিগত সহকারী সেলিম উদ্দিন মামলার আরজিতে উল্লেখ করেন এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান দীর্ঘদিন সুনামের সাথে আইন পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। তিনি হবিগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সেক্রেটারী ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে ২বার বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর সংসদ সদস্যের জনপ্রিয়তায় ও সরকারের শত কোটি টাকার উন্নয়নে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি স্বার্থান্বেষী ও কুচক্রীমহল বেশ কিছুদিন যাবত তার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর তথ্য পরিবেশন করে তার মানসম্মান ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে প্রভাকর পত্রিকার সম্পাদক শোয়েব চৌধুরী উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে তিনিসহ আরো দু’জন জনপ্রিয় সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে এ ধরণের সংবাদ প্রকাশ করে। যা আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী তথা বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জের মানুষের মনে আঘাত করেছে। বানিয়াচঙ্গ থানার ওসি অমূল্য কুমার চৌধুরী জানান, মামলাটি এফআইআর ভুক্ত করে এসআই মোস্তাক আহমেদকে তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, হবিগঞ্জের বিশিষ্ট সাংবাদিক হারুনুর রশিদ চৌধুরীর দায়ের করা তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় প্রভাকর সম্পাদক শোয়েব চৌধুরী কারাগারে বন্দী রয়েছেন। এই মামলায় শোয়েব চৌধুরীর ৭ দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ। আগামী ২১ নভেম্বর রিমান্ডের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। এই মামলার অপর আসামী দৈনিক প্রথম আলো’র হবিগঞ্জ প্রতিনিধি হাফিজুর রহমান নিয়ন আত্মগোপনে রয়েছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com