রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সায়হাম গ্রুপের কর্ণদার সৈয়দ মোঃ ফয়সল সেরা করদাতা নির্বাচিত বেকারত্ব দূর করতে ভূমিকা রাখতে পারেন ডিপ্লোমা প্রকৌশলীরা-এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জ-বাহুবলের সাবেক এমপি আব্দুল মোছাব্বির এর কুলখানি অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জ ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের কমিটি ও উপদেষ্ঠা পরিষদ গঠন নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিল সম্পন্ন দাঙ্গা-হাঙ্গামায় সহযোগিতা নয় প্রতিরোধ করুন-রবিউল ইসলাম নবীগঞ্জ আউশকান্দি ইউনিয়ন বিএনপির ওয়ার্ড কমিটি গঠন হজ্ব পালনের বিভিন্ন নিয়মাবলী সম্পর্কে ধারণা দিলেন এমপি আবু জাহির বাসদ নেতা হুমায়ূন খানের বড় বোনের ইন্তেকাল ॥ শোক নবীগঞ্জের চৌকি গ্রামে ঠাকুর অনুকুল চন্দ্রের বিশেষ সৎসঙ্গ অধিবেশন
নবীগঞ্জে গোপলার ব্রীজ নির্মাণ নিয়ে আত্মমর্যাদার প্রতিযোগিতা

নবীগঞ্জে গোপলার ব্রীজ নির্মাণ নিয়ে আত্মমর্যাদার প্রতিযোগিতা

এম এ বাছিত, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জে পাহাড়ী জনপদখ্যাত গোপলা নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের বিষয়টি আত্মমর্যাদার প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে। প্রস্তাবিত ব্রীজ নিয়ে দুই এমপির পৃথক ডিও এবং আওয়ামীলীগ নেতার দৌড়ঝাপ নিয়ে তোলপাড় চলছে। পরগণায় ভোট ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ এবং আত্মমর্যাদার প্রশ্নে তুমুল প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। ব্রীজটি নির্মিত হলে কয়েক লক্ষাধিক জনতার দৈন্যদশা লাঘব হবে। ৩০কিলোমিটারের স্থলে মাত্র ৪ কিলোমিটার পরই মৌলভীবাজার জেলার সাথে সংযুক্ত হবে পরগণার লোকজন। পর্যটন এলাকায় পরিণত হবে ওই এলাকার জনপদ।
সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য কেয়া চৌধুরী সমর্থিত সূত্র জানায়, দুর্ভোগ লাঘবে অচিরেই উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের গোপলা ও বিজনার মিলন মোহনায় ব্রীজ নির্মিত হচ্ছে। মহাসড়কের সংযোগ সড়ক কান্দিগাঁও ও দক্ষিণ কায়স্থগ্রাম সড়কের শেষ প্রান্তে অবস্থিত গোপলায় নদীর উপর ব্রীজ নির্মিত হলে যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে। গোপলা ব্রীজের অপর প্রান্ত থেকে ৪ কিলোমিটার পরই মৌলভীবাজার জেলা শহরের অবস্থান। পইদনাপুর ও পূর্বের হাওরে সংযুক্ত কাগাবলা এলাকায় ঐতিহাসিক পরিবর্তন সাধিত হবে। পরগণার প্রায় ৭৫% জনতার জৈবিক চিত্র পাল্টে যাবে। মহাসড়কের পার্শ্ববর্তী কায়স্থগ্রাম, লোগাঁও, মামদপুর, শংকরসেনা, নিশাকুড়ি, শিয়ালের পুঞ্জি, কান্দিগাঁও, বনগাঁও, গজনাইপুর, লামরোহ, শতক ও কামারগাঁও এলাকার সাথে মৌলভীবাজার জেলার দুরত্ব কমে আসবে মাত্র ৪ কিলোমিটার। প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষ ৯০ মিটার দীর্ঘ ও সাড়ে ৫মিটার প্রস্থ ব্রিজ নির্মাণে ডিও দেন আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী এমপি। ডিও সূত্রে প্রকাশ, নদীর এক প্রান্তে গজনাইপুর ইউনিয়নের কায়স্থ গ্রাম এবং অপর প্রান্তে পূর্ব কায়স্থ গ্রামের সড়ক অবস্থিত। ব্রিজটি নির্মাণ হলে ১০/১৫টি গ্রামের লোকজন খেয়া (নৌকা) ছাড়া পারাপার করতে পারবে। যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হবে। স্থানী লোকজনের দাবির প্রেক্ষিতে পূর্ব কায়স্থগ্রাম পরিদর্শন শেষে ওই ব্রিজ নিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রীবর্গের নিকট ডিও প্রদান করেন। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অর্থে ব্রিজ নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।
এব্যাপারে কেয়া চৌধুরী বলেন, জনগণের দুর্ভোগ লাঘবে ডিও ছাড়াও মন্ত্রীর সাথে একাধিকবার স্বাক্ষাত করেছি। বর্তমানে দাবিটি বাস্তবায়নের পথে। গোপলার ব্রীজ নির্মাণ এখন সময়ের ব্যাপার। কোন ষড়যন্ত্র উন্নয়নের গতি রুখতে পারবেনা।
অপরদিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু সমর্থিত লোকজনের দাবি, বালিধারা থেকে ইমামগঞ্জ বাজার হয়ে গোপলা নদীর উপর ব্রিজ নির্মানের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এমপির বিশেষ বরাদ্দ থেকে দ্রুত ব্রিজ নির্মাণের পদক্ষেপ নেয়া হবে। এখন শুধু ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরুর অপেক্ষায় রয়েছেন ওই এলাকার মানুষ। এছাড়াও পরগণার অভিবাবক হিসেবে পরিচিত প্রয়াত এমপি দেওয়ান ফরিদগাজী তনয় আওয়ামীলীগ নেতা শাহনেওয়াজ মিলাদগাজী বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নে কথা ও কাজে বিশ্বাসী। সারা দেশে উন্নয়নের বিপ্লব চলছে। আমদের এলাকা কেন বাদ যাবে। গ্রামাঞ্চলের উন্নয়নে অংশ হিসেবে গোপলার ব্রিজ নির্মাণ এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। এনিয়ে কোন চক্রান্ত কাজে আসবেনা।
দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, ২৬ জুন এমপি কেয়া চৌধুরীর ডিওর ভিত্তিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের নির্দেশে প্রধান প্রকৌশলী এ ব্রিজটিকে (ডিপিপির) অন্তর্ভূক্ত করেছেন। এতে করে বিজনা নদীর উপরে সেতু নির্মাণের বিষয়টি প্রায় নিশ্চিত হয়েছে। এদিকে, ব্রিজ নির্মাণ নিয়ে তিন ভাগে বিভক্ত স্থানীয় জনপদের মানুষ। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় জাপার সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু, সংরক্ষিত নারী সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা শাহ নেওয়াজ মিলাদগাজীর সমর্থনে ওই বিভক্তি দেখা দেয়। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আবুল খায়ের গোলাপ বলেন, ব্রিজ নির্মানের দাবি পূর্ণ হলে উপজেলার মডেল হবে শিল্পাঞ্চল খ্যাত এলাকার জনপদ। যার প্রচেষ্টায় নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে তাকেই এলাকার লোকজন স্মরণীয় করে রাখবে। বিশিষ্ট সমাজসেবক ও প্রবাসী কমিউনিটি লিডার হারুনুর রশিদ আখঞ্জি বলেন, উন্নয়ন কর্মকান্ডে নেতাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকাটাই স্বাভাবিক। এনিয়ে স্থানীয়ভাবে বিভক্তি কাম্য নয়। যার প্রচেষ্টায় ব্রিজ নির্মাণ ও দুর্ভোগ লাঘব হবে তিনিই পরগণায় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com