বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
চুনারুঘাটে খোয়াই নদী থেকে নির্বিচারে বালু উত্তোলন হুমকির মুখে প্রতিরক্ষা বাঁধ হবিগঞ্জ সদর কালনী গ্রামের দু’পক্ষের দীর্ঘ দিনের বিরোধ নিষ্পত্তি করে দিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম নবীগঞ্জে হত্যা মামলায় ১ ব্যক্তির যাবজ্জীবন জেল বানিয়াচংয়ে আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ॥ বালুখেকো ও মাদক কারবারিদের প্রতি কঠোর হুশিয়ারি হবিগঞ্জে নতুন করে ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মুফতি আলা উদ্দীন জিহাদীর মুক্তির দাবিতে আলা হযরত ইমাম আহমদ রেযা (রাহ.) ফাউন্ডেশনের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল একাধিক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও স্কুল-কলেজের অনুদানের চেক বিতরণ করলেন ডাঃ মুশফিক মুফতি আলা উদ্দীন জিহাদী’র মুক্তির দাবীতে পানিউম্দায় মানববন্ধন অনুষ্টিত হবিগঞ্জে বহিস্কৃত ৩ যুবলীগ কর্মীর আচরণে বিব্রত কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী চুনারুঘাটে আদিবাসি স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ মামলা দায়ের
বানিয়াচঙ্গের চমকপুর বাজারে সংঘর্ষ ॥ আহত অর্ধশতাধিক

বানিয়াচঙ্গের চমকপুর বাজারে সংঘর্ষ ॥ আহত অর্ধশতাধিক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং উপজেলার চমকপুর বাজারে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ২০ জনকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে এবং আশংকাজনক অবস্থায় ২জনকে সিলেট মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ সময় বাজারের বেশ কয়েকটি দোকান ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রাত ৮টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
এলাকাবাসী, প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত সূত্রে জানা যায়, দোকানের সামনে ময়লা ফেলা নিয়ে চমকবাজারের মোদী মালের ব্যবসায়ী চমকপুর গ্রামের শাহবাজ আলী ও পাশের চা-ষ্টল ব্যবসায়ী বাঘহাতা গ্রামের দেওয়ান আলীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার খবর উভয়ে বাড়ি পৌছুলে উভয় গ্রামের লোকজন উত্তেজিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাজারে এসে রাত ৮ টার দিকে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। প্রায় ২ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষ চলাকালে বাজার রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। আশপাশের লোকজন খবর পেয়ে বাজারে এসে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। এ সময় বেশ কয়েকজন মুরুব্বী আহত হন। সংঘর্ষ চলাকালে কয়েকটি দোকানে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষর্দীরা জানান। পরে স্থানীয় লোকজনের দীর্ঘ চেষ্টার পর রাত ১০ টার দিকে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আসে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে কামাল মিয়া, রুস্তম আলী, ইব্রাহিম, আব্দুল আজিজ, রামিন, মধু মিয়া, হারিছ মিয়া, আবু ছালেক, জাহির মিয়া, আবিদ আলী, মিজান, তোফাজ্জুল, আবেদ আলী, জয়নাল মিয়া, আবু কালাম, আব্দুর রহমান, আবিদ মিয়া, কামাল, হাফিজুর, বদর আলীসহ প্রায় ২০জনকে হবিগঞ্জ আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া গুরুতর আহত মৃত আব্বাস আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৪৫) ও মৃত ছমর উদ্দিনের ছেলে ঝার উদ্দিন (৫০)কে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com