বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়িতে বিজিবির অভিযান রকেট লাঞ্চারের ১৮টি গোলা উদ্ধার হবিগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ম্যারাথন এর উদ্বোধন সাতছড়ি উদ্যানে পূর্বের ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে উদ্ধার হওয়া রকেট লাঞ্চারের গোলাগুলো খুব বিপজ্জনক আলোচনায় কাহালু ও চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র নোয়া হাটি সংবর্ধনা সভায় মেয়র সেলিম ॥ আমি হবিগঞ্জ পৌরবাসীর ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে চাই হবিগঞ্জ পৌরসভার নব-নির্বাচিত ২ কাউন্সিলরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নবীগঞ্জে মাদকাসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ॥ হুমকির মুখে নিরিহ পরিবার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়রের সঙ্গে ব্যাংকারদের শুভেচ্ছা বিনিময় নবীগঞ্জে শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ প্রতিযোগীতায় ॥ ২৩ বিজয়ী
নিখোঁজ দুই শিশুর সন্ধান নেই আজও

নিখোঁজ দুই শিশুর সন্ধান নেই আজও

স্টাফ রিপোর্টার \ এবার আরেক মাদ্রাসা ছাত্র নিখোঁজ হয়েছে। তার নাম তায়েন মিয়া (১৩)। সে হবিগঞ্জ শহরের রাজনগর এতিমখানা সড়কের বাসিন্দা কাশেম মিয়ার ছেলে এবং শায়েস্তাগঞ্জ ফদ্রখলা আনোয়ার মদিনা মাদ্রাসার ছাত্র। গত ৫ মার্চ হবিগঞ্জ শহর থেকে সে নিখোঁজ হয়।
তায়েনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সে শনিবার দুপুরে বাসা থেকে মাদ্রাসার উদ্দেশ্যে বের হয়। মাদ্রাসা ছুটি হয়ে গেলেও সে বাসায় আসেনি। সম্ভাব্য সবস্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে ওই দিন রাতেই তায়েনের চাচা পুলিশ সদস্য মাসুদ আহমেদ সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। তায়েন মিয়া নিখোঁজ হয়েছে নাকি তাকে অপহরণ করা হয়েছে তদন্ত ছাড়া কিছুই বলতে পারছে না পুলিশ।
এদিকে মাদ্রাসা ছাত্র সাইফুর রহমান আনন্দকে ২০ দিনেও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। আনন্দ শায়েস্তাগঞ্জ থানার নিশাপট গ্রামের জমির আলীর ছেলে এবং স্থানীয় সুলতানশী হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র।
গত ১৬ ফেব্র“য়ারি সুলতানশী হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র সাইফুর রহমান আনন্দ সদর উপজেলার দক্ষিণ চরহামুয়া থেকে নিখোঁজ হয়। পরদিন তার বাবা আলকাছ মিয়া সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এরই প্রেক্ষিতে সদর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। গত সোমবার রাতে একটি অপরিচিত নাম্বার থেকে সাইফুরের বাবার কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ বিকাশের মাধ্যমে চাইলে তিনি সদর থানায় বিষয়টি জানান। পরে সদর থানার এসআই পার্থ রঞ্জন চক্রবর্তী, এসআই রকিবুল হাসান ও এএসআই নুরে আলম সিদ্দিক কেশবপুর বাজার এলাকায় সেই বিকাশ এজেন্ট এর কাছে ৫ লাখ টাকা পাঠায়। ওই সময় অপহরণকারী চক্রের এক সদস্য আলাউদ্দিন (২২) টাকা উঠাতে আসলে আগে থেকে ওৎপেতে থাকা পুলিশ তাকে ধাওয়া করে। একপর্যায়ে অলিপুর ইন্ড্রাসিয়াল পার্কের কাছ থেকে তাকে আটক করা হয়। এক সপ্তাহ ধরে পুলিশ ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলেও আনন্দের অপহরণের বিষয়ে আলাউদ্দিনের কাছ থেকে কিছু জানতে পারেনি পুলিশ।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com