বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৩৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
২০ হাজার মানুষের গ্রামে একটি রাস্তাও পাকা নেই ॥ চরম দুর্ভোগ সাবেক মেয়র জিকে গউছের নামে ভূয়া ইউটিউব চ্যানেল ॥ থানায় জিডি নবীগঞ্জে সাংবাদিক আজাদের মায়ের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক নবীগঞ্জে বিদ্যুতপৃষ্টে বৃদ্ধের করুন মৃত্যু ইদুর নিধন অভিযান উপলক্ষে নবীগঞ্জে আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে নবাগত ওসি’র মতবিনিময় কারিতাস সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালন শায়েস্তাগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত বাহুবলের সাবেক চেয়ারম্যান মুদ্দত আলীর বিরুদ্ধে মেয়াদোত্তীর্ণ কাগজ দিয়ে মাটি, বালু উত্তোলনের অভিযোগ আজমিরীগঞ্জে ইমামের পিছনে বসা নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলাসহ আহত ১০
শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কের কাদিরের বাসা থেকে পতিতা সর্দারসহ ৫ জন আটক \ ভ্রাম্যমান আদালতে কারাদণ্ড প্রদান

শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কের কাদিরের বাসা থেকে পতিতা সর্দারসহ ৫ জন আটক \ ভ্রাম্যমান আদালতে কারাদণ্ড প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার \ হবিগঞ্জ শহরের বিভিন্ন বাসার ফ্ল্যাটে মিনি পতিতালয় গড়ে উঠেছে। ডিবি পুলিশের অভিযানে পতিতা সর্দারনী ৩ খদ্দেরসহ আটক হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমান আদালত তাদেরকে কারাদণ্ড প্রদান করেছেন।
আটককৃত পতিতারা হল, সদর উপজেলার গোপায়া ইউনিয়নের দরবেশ আলীর কন্যা পতিতা সর্দারনী মক্ষিরানী নেহার বেগম (৩০), শহরের মোহনপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত সিদ্দিক আলীর পুত্র পতিতা সর্দার মকসুদ মিয়া (৩৫), নরসিংদী জেলার বেলাবো উপজেলার বারচর গ্রামের হানিফ উল­ার কন্যা দেহ ব্যবসায়ী রূপালী আক্তার (২০), সদর উপজেলার বহুলা গ্রামের মৃত রমিজ আলী চৌধুরীর পুত্র খদ্দের সালাম চৌধুরী (৪৫) ও দীঘলবাগ গ্রামের মৃত নবীর হোসেনের পুত্র আয়াত আলী (২৫)।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে হবিগঞ্জ শহরের আবাসিক হোটেল ও ফ্ল্যাট বাসা ভাড়া নিয়ে দেহ ব্যবসার নামে অসামাজিক কাজ চলে আসছিল। এসব ব্যবসায় কতিপয় মহিলাদের পাশাপাশি কলেজ ছাত্রীরাও জড়িত রয়েছে। অধিকাংশ সময় তারা বোরকা ও নেকাব পরে থাকার কারণে ধরাছোয়ার বাইরে থেকে যায়।
স¤প্রতি বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন এলাকার লোকজন পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ জানালে ডিবি পুলিশ গোপনে একটি তালিকা তৈরি করে। আর এ তালিকায় কলগার্লদের পাশাপাশি অনেক ভদ্রঘরের মহিলাদের নামও রয়েছে বলে ডিবি পুলিশ সুত্র জানায়। এ তালিকা অনুযায়ী গতকাল সোমবার দুপুরে ডিবি পুলিশের এসআই সুদ্বিপ রায়, ইকবাল বাহার ও আব্দুল করিমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ শহরের বিভিন্নস্থানে অভিযান চালায়। এ সময় শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কে আব্দুল কাদিরের দোতালা ফ্ল্যাটবাসায় অভিযান চালিয়ে উলে­খিতদের আটক করা হয়। তাদের নিকট থেকে ২০ প্যাকেট কনডম, কয়েকটি জন্ম নিয়ন্ত্রন বড়ি ও অশ্লীল ভিডিও ক্যাসেট জব্দ করা হয়। আটককৃতদের তাৎক্ষনিক জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ভ্রাম্যমান আদালতে নিয়ে আসা হয়। এর আগে নেহার সাংবাদিকদের জানায়, সমাজের এক শ্রেণীর লোক ভদ্রতার মুখোশ পড়ে আমাদের কাছে আসে। আমরা কারো কাছে যাই না। আমরা পতিতা নই, আমরা যৌনকর্মী। সে আরো জানায়, কতিপয় পুলিশ কমিশনের বিনিময়ে তাদেরকে এ ব্যবসার সুযোগ করে দিচ্ছে, আবার তারাই আমাদেরকে গ্রেফতার করছে অসামাজিক কাজের অভিযোগে। আমাদের নির্দিষ্ট কোন স্থান নেই। আমাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করলে আমরা প্রকাশ্যে এসব করবো না। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আলমগীর হোসেন ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে নেহার ও মকসুদকে ২ মাস ও আয়াত আলী, সালাম চৌধুরী ও রূপালীকে ১ মাস করে কারাদণ্ড প্রদান করেন। গতকালই তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com