সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১১:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
মাধবপুরে শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ ॥ সুস্থ্য আউশকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র শিক্ষক ফখরু মিয়া স্যার আর নেই নবীগঞ্জের শ্রীমতপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ীঘরে হামলা ও ভাংচুর ॥ ৩ মহিলা আহত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে চুনারুঘাটে সেনাবাহিনীর প্রচারাভিযান বিশ্বাসের জায়গাটা ছোট হয়ে আসছে নবীগঞ্জে প্রস্তুতিকালে তিন ডাকাত আটক, অস্ত্র উদ্ধার খাবার পৌছে দিয়ে মানুষকে ঘরে থাকার আহবান জানাচ্ছেন এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জে প্রবাসীদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে কাজ করছে সেনাবাহিনী ও প্রশাসন মাধবপুরে চিনে ফেলায় টমটম চালককে খুন ॥ আদালতে ৩ কিশোর কিলারের স্বীকারোক্তি স্তব্ধ রাতে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি চুনারুঘাটের ইউএনও
মাধবপুরে স্কুলছাত্রী বৃষ্টি হত্যা মামলা ॥ দেড় মাস পর ময়না তদন্তের জন্য আজ করব থেকে লাশ উত্তোলন

মাধবপুরে স্কুলছাত্রী বৃষ্টি হত্যা মামলা ॥ দেড় মাস পর ময়না তদন্তের জন্য আজ করব থেকে লাশ উত্তোলন

আবুল হোসেন সবুজ, মাধবপুর থেকে ॥ মাধবপুরের সৈয়দ সঈদ উদ্দিন হাইস্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী শাহ জিনিয়া ইসলাম বৃষ্টি হত্যা মামলার দেড় মাস অতিবাহিত হলেও কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। নিহত বৃষ্টির মা-বাবার অভিযোগ আসামীরা এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে। উল্টো বৃষ্টির মা ও বাবার নামে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বৃষ্টি হত্যা মামলার বাদী তার মা শেখ হাজেরা খাতুন জানান, মাধবপুর উপজেলার ইটাখোলা (কাশিপুর) গ্রামের জলফু মিয়া শানু শাহের মাদকাসক্ত ছেলে আছিবুল ইসলাম শান্ত তার মেয়েকে প্রায়ই উত্যক্ত করত। এক পর্যায়ে গত ৯ নভেম্বর বৃষ্টিকে জোরপূর্বক ধষর্নের পর শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়। হত্যাকান্ডের ঘটনাটি চাঁপা দিতে হত্যাকারীরা প্রভাব খাটিয়ে ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করে। এ ঘটনায় বৃষ্টির পরিবার মামলা করতে চাইলে একটি প্রভাবশালী মহল তাদেরকে মামলা না করতে চাপ দেয়। পরে কোনো উপায়ান্তর না পেয়ে বৃষ্টির মা শেখ হাজেরা খাতুন বাদী হয়ে আছিবুল ইসলাম শান্ত, জলফু মিয়া শানুশাহ, ফেরদৌস মিয়া, শাহীন আক্তার, রিনা বেগম, ফাতেমা হাবিবা নাছরিন ও তাছলামা বেগম সহ ৯ জনকে আসামী করে হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল হাকিম আদালতে মামলা করেন। আদালতের নির্দেশে অনুযায়ী মাধবপুর থানায় হত্যা মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়। থানার উপ-পরিদর্শক মোজাফফর আহম্মেদ মামলাটি তদন্তের স্বার্থে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতে আবেদন করেন। মামলার বাদী  শেখ হাজেরা খাতুন জানান, আসামীরা প্রকাশ্যে এলাকায় ঘুরাফেরা করছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। বৃষ্টির বাবা শামসুল ইসলাম বলেন, আসামীরা এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে থানায় বাড়িঘর ভাংচুর ও চুরির অভিযোগ করেছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মোজাফফর আহম্মেদ জানান, আজ বৃহষ্পতিবার জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আরিফুল ইসলামের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com