বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
২০ হাজার মানুষের গ্রামে একটি রাস্তাও পাকা নেই ॥ চরম দুর্ভোগ সাবেক মেয়র জিকে গউছের নামে ভূয়া ইউটিউব চ্যানেল ॥ থানায় জিডি নবীগঞ্জে সাংবাদিক আজাদের মায়ের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক নবীগঞ্জে বিদ্যুতপৃষ্টে বৃদ্ধের করুন মৃত্যু ইদুর নিধন অভিযান উপলক্ষে নবীগঞ্জে আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে নবাগত ওসি’র মতবিনিময় কারিতাস সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালন শায়েস্তাগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত বাহুবলের সাবেক চেয়ারম্যান মুদ্দত আলীর বিরুদ্ধে মেয়াদোত্তীর্ণ কাগজ দিয়ে মাটি, বালু উত্তোলনের অভিযোগ আজমিরীগঞ্জে ইমামের পিছনে বসা নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলাসহ আহত ১০
কাকাইলছেও বছিরা নদীর মাছ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে একটি চক্র

কাকাইলছেও বছিরা নদীর মাছ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে একটি চক্র

স্টাফ রিপোর্টার \ কাকাইলছেও বছিরা নদীর ইজারা স্থগিত হওয়া সত্তে¡ও এলাকার একটি চক্র গত ৩ দিন যাবৎ লাখ লাখ টাকার মাছ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। এতে সরকার হাজার হাজার টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
জানা যায়, আজমিরীগঞ্জের কাকাইলছেও ইউনিয়ের আনন্দপুর ও কাকাইলছেও গ্রামের মধ্যদিয়ে প্রবাহিত বছিরা নদী। এর দৈর্ঘ্য অনুমানিক প্রায় ১৫কিঃমিঃ। ৮/১০ বছর পূর্বে উক্ত নদীর কোন অংশই ইজারা দেয়া হত না। স¤প্রতি একটি প্রভাবশালী চক্র সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে বশ করে ইজারা নেয়া শুরু করে। এ কারণে উভয় তীরে বসবাসকারী সাধারণ জনগন নদীর পানি ব্যবহারের ক্ষেত্রে বিধি নিষেধ আসে। প্রশাসনের নিকট থেকে প্রায় ৭ একর জায়গা ইজারা নিলেও বাস্তবে অনুমানিক প্রায় ২কিঃমিঃ জায়গা বেদখল করে কার্যক্রম চালাতে দেখা গেছে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছর উপজেলা প্রশাসন থেকে ইজারা আনেন এলাকার আনন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা লুৎফুর রহমান। যার পরিমাণ ছিল ৬ দশমিক ৫৯ একর। এর পরিপ্রেক্ষিতে এলাকার রসুলপুর গ্রামের বাসিন্দা উছমান আলীর পুত্র হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে জেলা প্রশাসক হবিগঞ্জ গং কে বিবাদি করে প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ দায়ের করেন বিভাগীয় কমিশনারের আদালতে।
অভিযোগে উলে­খ করা হয়, বছিরা নদীর ৫ দশমিক ৫৯ একর জায়গা ইজারা নেয়া হলেও ভোগদখল করা হচ্ছে অনেক জায়গা বেদখল করে। এতে সরকার হাজার হাজার টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১৮ নভেম্বর রাজস্ব মিস আপীল নং ক-৩৩/২০১৫ ও ১০৪৭ (৭) নং স্মারক মূলে বছিরা নদী ও ডাকু বিলের ইজারা কার্যক্রম স্থগিত করেন অতিরিক্ত কমিশনার (সার্বিক) সিলেট। কিন্তু উক্ত আদেশের তোয়াক্কা না করে, আইনকে উপেক্ষা করে নদীতে একের পর এক বাঁধ নির্মান করে পাওয়ার পাম্প মেশিন লাগিয়ে পানি সেচ করে গত তিনদিন যাবৎ কয়েক লক্ষাধিক টাকার মাছ লুট করে নিয়ে ওই প্রভাবশালী মহল। গত শুক্র, শনি ও রবিবারও দিনভর মেশিন চালিয়ে পানি নিষ্কাশন করে মাছ লুট করে প্রভাবশালী চক্রটি। এ নিয়ে এলাকায় আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com