সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১০:০৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে হবিগঞ্জ শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে এক যুবক ভর্তি পরিবেশ ও নিরাপত্তায় আপোষহীন শিল্প প্রতিষ্ঠান সায়হাম গ্রুপ পানির অভাবে গুঙ্গিয়াজুরী হাওর বিরান ভূমিতে পরিণত বানিয়াচঙ্গে ডোবা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার শায়েস্তাগঞ্জে আপনজনের উদ্যোগে শিক্ষা সহায়ক উপকরণ বিতরণ বিথঙ্গল জেডিসি উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও স্বেচ্ছারিতার অভিযোগ হবিগঞ্জ জেলা যুবদলের সাথে যুবদলের কেন্দ্রীয় মনিটরিং টিমের কর্মীসভা নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নে গণফোরামের ৭নং ওয়ার্ড কমিটি গঠিত সারা বছরই অরক্ষিত থাকে বানিয়াচঙ্গের শহীদ মিনার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা দ্রুত সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে-এমপি আবু জাহির
বিস্ফোরক আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইনে ও নাশকতার অভিযোগে ॥ নবীগঞ্জের ভাইস চেয়ারম্যান মাওঃ আশরাফ আলীসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বিস্ফোরক আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইনে ও নাশকতার অভিযোগে ॥ নবীগঞ্জের ভাইস চেয়ারম্যান মাওঃ আশরাফ আলীসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

জালাল উদ্দিন রুমী/ এমএআই সজীব ॥ হবিগঞ্জে পুলিশের বিশেষ অভিযানে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওঃ আশরাফ আলী, জেলা জামায়াত নেতা এডঃ আব্দুস শহীদ, শায়েস্তাগঞ্জ থানা জামায়াতের সেক্রেটারী ইয়াছির খান সহ আটক ১১ জন সহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে এবং নাশকতার অভিযোগে পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে। হবিগঞ্জ সদর মডেল থানা ও শায়েস্তাগঞ্জ থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দু’টি দায়ের করে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে রবিবার রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে জেলার নবীগঞ্জ, লাখাই, শায়েস্তাগঞ্জ, চুনারুঘাট ও সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়। অভিযান কালে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওঃ আশরাফ আলী, জামায়াত নেতা এডঃ আব্দুস শহীদ, লাখাই জামাতের সেক্রেটারী মোঃ নুরুল আমীন, শায়েস্তাগঞ্জ থানা জামায়াতের সেক্রেটারী ইয়াছির খান, পৌর শিবিরের সেক্রেটারী হোসাইন আহমেদ, নিজাম উদ্দিন এবং আজিজুল হক সহ ২৫ জনকে আটক করা হয়। পরে যাচাই বাচাই শেষে নিরপরাধ ১৪ জনকে ছেড়ে দেয়া হয়। অভিযান কালে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওঃ আশরাফ আলীকে রবিবার তার নিজ বাস ভবন থেকে মধ্যরাতে পুলিশ আটক করে। রাতেই তাকে হবিগঞ্জ ডিবি অফিসে নিয়ে আসা হয়। এদিকে গভীর রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে হবিগঞ্জ শহরের কোর্টষ্টেশন রোডে অবস্থিত জামায়াত নেতা এডঃ আব্দুস শহীদের বাসায় অভিযান চালানো হয়। পুলিশ জানায়, তার বাসার একটি কক্ষে জামায়াতের অফিস রয়েছে। ওই অফিস থেকে লিফলেট, বই পাওয়া যায়। এ কারণে এডঃ আব্দুস শহীদকে আটক করা হয়। আটক মাওঃ আশরাফ আলী, এডঃ আব্দুস শহীদ সহ আটক ৭জন সহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল বিকেলে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই কৃষ্ণমোহন বাদী হয়ে াবশেষ ক্ষমতা আইনে এ মামলাটি দায়ের করেন। আটককৃত অপর অভিযুক্তরা হচ্ছেসদর উপজেলার রায়ধর গ্রামের শামীম আহমেদ, নোয়াখালীর সেনবাগের মানিক মিয়া, নবীগঞ্জের পারকুল গ্রামের সানোয়ার আলী, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের ইমরান আহমেদ এবং সুনামগঞ্জের সুফিয়ান। ওই মামলায় আমায়াত শিবিরের আরো ৭ নেতা কর্মীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এরা পলাতক বলে পুলিশ সূত্র জানায়।
অপর দিকে অভিযান কালে রাত ১২ টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জ মনিকা সিলেমা হলের পাশে অবস্থিত দিগন্ত ডায়গনস্টিক এন্ড কন্সালটেন্ট সেন্টারের পিছনে একটি ম্যাচ থেকে ৫টি তাজা ককটেল, ককটেল তৈরীর সরঞ্জাম, ১২টি মোবাইল, ১টি নম্বরবিহীন টিভিএস মোটর সাইকেল, বিপুল পরিমাণ ইসলামী বই ও সরকার বিরোধী লিফলেট উদ্ধার করে। এ সময় শায়েস্তাগঞ্জ থানা জামায়াতের সেক্রেটারী শায়েস্তাগঞ্জ ষ্টেশন রোডের আকরাম খানের পুত্র ইয়াছির খান ও পৌর শিবিরের সেক্রেটারী চুনারুঘাট উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের ঝাড়– মিয়ার পুত্র হোসাইন আহমেদ, শিবির কর্মী বানিয়াচঙ্গের জাতুকর্ণপাড়ার মইনুদ্দিনের পুত্র নিজাম উদ্দিন এবং শায়েস্তাগঞ্জের নিজগাও গ্রামের হাজী তফাজ্জুল হকের পুত্র আজিজুল হককে আটক করা হয়। গতকাল শায়েস্তাগঞ্জ থানার এসআই মুখলেছুর রহমান বাদী হয়ে আটককৃতকৃত ৪ জন সহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। আটক ৪ জনকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। অপর ৭ জন পলাতক রয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com