মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২০, ০১:৫৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
নবীগঞ্জে ছাত্রদলের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ ॥ আহত অর্ধশতাধিক ॥ চেয়ার ও মোটর সাইকেল-দোকান ভাংচুর ॥ আটক ২ নবীগঞ্জের চাঞ্চল্যকর জ্যোস্না হত্যা মামলায় ১৬ জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ ॥ ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেছে ষড়যন্তকারীরা-মিজান মাধবপুর ও চুনারুঘাট সীমান্ত দিয়ে অবাধে আসছে ভারতীয় পণ্য ॥ সক্রিয় নারী পুরুষের বিশাল সিন্ডিকেট ॥ লোকসানে বাজার হারাচ্ছে দেশীয় পণ্য বাণিজ্য মেলায় বিক্রি হচ্ছে নকল কসমেটিকস ও মেয়াদউত্তীর্ণ ড্রিংকস এমপি আবু জাহির এর সভাপতিত্বে সংসদীয় সাব কমিটির সভা অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে প্যানেল চেয়ারম্যানের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন মহাসড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ চুনারুঘাট থেকে ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক ॥ বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান মাধবপুর উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়ন আ.লীগের কমিটি গঠন শহরের পুরান মুন্সেফী এলাকায় ২ শতাধিক অসহায় লোকদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সকল ইউনিট কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা
বামকান্দি গ্রামে সংঘর্ষ আহত অর্ধশতাধিক

বামকান্দি গ্রামে সংঘর্ষ আহত অর্ধশতাধিক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লুকড়া ইউনিয়নের বামকান্দি গ্রামে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের লোকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় ৩৫ জনকে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় আশংকা জনক অবস্থায় আরো ৩ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে কর্তব্যরত চিকিৎসক।
আহত সূত্র জানায়, গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলার বামকান্দি গ্রামের মৃত ডুগাই মিয়ার পুত্র ফুল মিয়ার মাছের খাল থেকে একই গ্রামের মৃত আজগর আলীর পুত্র এনামুলসহ তার লোকজন মাছ ধরতে যায়। এ সময় ফুল মিয়া তাদের মাছ ধরতে বাধা দেয়। এতে ফুল ও এনামের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এর জের ধরে ফুল মিয়া ও এনামের লোকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পরে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দু’ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়। খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহত অবস্থায় কামাল মিয়া (২৫), রং বাহার (৪০), মাসুক মিয়া (৩৫), রফিক মিয়া (২৪), ফেরদৌস মিয়া (২৫), মাহাতাব মিয়া (৩০), আকল মিয়া (৮০), লাউছ মিয়া (৪৫), মানিক মিয়া (২৫), সালমা (৪৫), কদ্দুছ মিয়া (৪০), উজ্জ্বল মিয়া (১৭), ছুরুক মিয়া (৬০), সফিক (৩০), ফুরুক আহমেদ (৩৫), রফিকুল ইসলাম (৪৫), জোবায়ের মিয়া (২০), রুমেল (১৬), আশিকুর রহমান (৩৫), মাতব্বর মিয়া (৪৫), রকিব (২৪), সাইদুর (২৫), শাহ আলম (২২)কে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় আশংকা জনক অবস্থায় কামাল মিয়া (২৫), আকল মিয়া (৮০) ও জালাল মিয়া (২৮)কে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। আহত অন্যান্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানা যায়। পরে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে এসে রোগীর আত্মীয়-স্বজনরা ডাক্তার ও স্টাফদের সাথে অশোভন আচরন করে। এদিকে, সদর হাসপাতালে ওই সংঘর্ষিত ঘটনার সংবাদটি স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিক সংগ্রহ করতে গেলে মাহফুজ নামে এক যুবক তাদের বাধা প্রদান করে। এক পর্যায়ে মাহফুজ উত্তেজিত হয়ে এক সাংবাদিকের ক্যামেরা ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এ সময় অন্যান্য সাংবাদিকরা এগিয়ে আসলে মাহফুজ সাংবাদিকদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com