রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
অবৈধ লেনদেনের অভিযোগে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি ও এক এসআই প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্র হবিগঞ্জ সদর সমিতির ত্রাণ ও স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ সাংবাদিকদের সাথে পরামর্শ সভায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা ॥ সকলে মিলে মিশে কাজ করলে সমাজ থেকে সকল অসংগতি দুর করা সম্ভব শহরতলীর আলমবাজার সংলগ্ন তারা মিয়া জামে মসজিদের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন যুবলীগ সভাপতি ও তার ভাইকে জড়িয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করার প্রতিবাদে সভা নবীগঞ্জে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার সম্পদ গ্রাস করতে মরিয়া প্রভাবশালী মহল আজ আজিজুর রহমান তোতা মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী শহরে দুর্বৃত্তের হামলায় এক ব্যক্তি আহত বৃক্ষ প্রেমিক বানিয়াচঙ্গের ইউএনও মাসুদ রানা মাধবপুরে শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু
বাসর ঘরেই প্রেমের ইতি ঘটলো কলেজ ছাত্রী মরিয়মের!

বাসর ঘরেই প্রেমের ইতি ঘটলো কলেজ ছাত্রী মরিয়মের!

এক্সপ্রেস ডেস্ক ॥ নাটোর নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা সরকারি কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের মাষ্টার্স শেষ বর্ষের ছাত্রী মরিয়ম খাতুন। তারুণ্যের উদ্দীপনায় মেতে থাকা মরিয়মের স্বপ্ন ছিল ভালোবেসে ঘর বাঁধার। দীর্ঘ প্রেমের পর স্বপ্ন পুরণে অনেকটা জোর করে বিয়েও হল পছন্দের মানুষ জাহাঙ্গীর আলমের সাথে। বিয়ের দিন মরিয়মের ছিল না নববধূর সাজ। বাসর ঘরেও ছিলনা কোনও সাজ সজ্জা। সাদামাঠা ভাবেই বিয়ে সম্পূর্ণ হয়। কিন্তু বাসর ঘরেই যে তাদের প্রেমের ইতি ঘটবে কে জানত?
মোবাইলে প্রেমের পর মেয়ের পরিবারের চাপে বৃহস্পতিবার ২৩ জুলাই দুপুরে নাটোর জজকোর্টে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে সম্পূর্ণ হলেও পরদিন শুক্রবার সকালে বাসর ঘর থেকে লাশ হয়ে ফিরল নববধূ মরিয়ম।
নিহত মরিয়ম খাতুন নাটোরের সিংড়া উপজেলার ঢাকঢোর গ্রামের হুমায়ুন আহমেদের মেয়ে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মরিয়ম খাতুনের সাথে একই উপজেলার গোয়াল বাতান গ্রামের আকবর আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।
প্রেমের সম্পর্ক ধরে মাঝে মধ্যেই জাহাঙ্গীর মরিয়মদের বাড়িতে যাওয়াত করত। সে ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার সকালে জাহাঙ্গীর মরিয়মের সাথে দেখা করতে তাদের বাড়িতে যায়। এসময় মরিয়মের পরিবারের লোকজন জাহাঙ্গীরকে আটকে রেখে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে।
একসময় জোরপূর্বক দু’জনকে নাটোর জজকোর্টে নিয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে পড়িয়ে দেয়। এরপর স্বামী-স্ত্রী হিসেবে মরিয়মদের বাড়িতে তাদের দু’জনের বাসর ঘরের ব্যবস্থা করা হয়। তবে বাসর ঘরে ছিলনা কোনও সাজসজ্জা। নববধূ হিসাবে মরিয়মেরও ছিল না কোন সাজ।
রাতে জোর পূর্বক বিয়ে দেওয়া নিয়ে জাহাঙ্গীরের সাথে মরিয়মের তুমুল ঝগড়া হয়। সকালে ঘরের তীরের সাথে গলায় ওড়না পেচানো মরিয়মের ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়।
এ বিষয়ে মরিয়মের বাবা হুমায়ুন আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, রাতে জাহাঙ্গীর তার মেয়েকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার জন্য লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার কথা প্রচার করছে। জাহাঙ্গীরই তার মেয়ের হত্যাকারী।
তবে জাহাঙ্গীর হত্যার কথা অস্বীকার করে বলেন, জোর করে বিয়ে পড়ানো নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। অভিমানে রাতের কোন একসময় মরিয়ম গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। গভীর ঘুমে থাকায় তিনি বিষয়টি টের পাননি।
নিহত মরিয়মের ভাই বাদি হয়ে জাহাঙ্গীরকে অভিযুক্ত করে সিংড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।
সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মন্ডল ঘটনার সত্যত্য নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ মরিয়মের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে এবং জাহাঙ্গীর হোসেনকে আটক করে।
ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে হত্যা না আত্মহত্যা সে বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে বলে মন্তব্য করেন ওসি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com