বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০৩:৪৯ অপরাহ্ন

আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টে রোগী মৃত্যু পথ যাত্রী

আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টে রোগী মৃত্যু পথ যাত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ শহরের আধুনিক সদর হাসপাতাল সংলগ্ন আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টে এক রোগীকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছিল। ভাগ্যিস ডাক্তারের তাৎক্ষনিক পরামর্শে অন্য একটি ক্লিনিকে পরিক্ষা করানোর পর ওই রোগী নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পান।
শহরের রাজনগর এলাকার বাসিন্দা খালেদ চৌধুরী গতকাল হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। আত্বীয়স্বজনরা তাৎক্ষনিক তাকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার প্রদীপ কুমার দাস ও ডাক্তার আশরাফ উদ্দিন খালেদ চৌধুরীর গায়ে স্যালাইন পুস করার জন্য ব্যবস্থা পত্র দেন এবং তার রক্তের কয়েকটি পরিক্ষা করানোর জন্য পরামর্শ দেন। এ সময় খালেদ চৌধুরীর স্বজনরা পরিক্ষা নিরিক্ষার জন্য আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যান। সেখানে পরিক্ষা শেষে পূণরায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে দেয়া রিপোর্টে উল্লেখ করা হয় খালেদ চৌধুরীর রক্তের পঠাসিয়াম মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যায়। আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে দেয়া রিপোর্টটি সদর হাসপাতালের ডাক্তার প্রদীপ কুমার দাস ও ডাক্তার আশরাফ উদ্দিনের কাছে নিয়ে যান স্বজনরা। ওই ক্লিনিক থেকে দেয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে ডাক্তাররা তাকে চিকিৎসা দেন ও খালেদ চৌধুরীর উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। তবে আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দেয়া রিপোর্টটি ডাক্তার প্রদীপ কুমার দাস ও ডাক্তার আশরাফ উদ্দিনের সন্দেহ হয়। তখন তারা রোগীর আত্বীয় স্বজনকে অন্য কোন ক্লিনিকে নিয়ে আরো একটি পরিক্ষার করে ওই রিপোর্ট দেখার পর ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। সে অনুযায়ী রোগীর স্বজনরা শহরের সবুজবাগ এলাকার মেডিকেয়ার কম্পিউটারাইজ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে পরিক্ষা করেন। ওই পরিক্ষার রিপোর্টে রোগীর অবস্থা স্বাভাবিক বলে জানান মেডিকেয়ারের টেকনোলজিষ্ট। ফলে আল ফালাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে দেয়া রিপোর্টটি সঠিক নয় জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশফাকুল হক চৌধুরী, সিভিল সার্জন নাসির উদ্দিন ভূইয়া ও আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ মহসিন করিমকে অবহিত  করা হয়। বর্তমানে উল্লেখিত ডাক্তারদের চিকিৎসায় খালেদ চৌধুরীর শারিরিক অবস্থা অনেকটা স্বাভাবিক রয়েছে। এদিকে শহরের আনাচে কানাচে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো গড়ে উঠা ক্লিনিকগুলোর বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোদ জানান ভোক্তভূগী রোগীর স্বজনরা।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com