মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১০:৩১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
বেলেশ্বরী বারুনীতে জুয়া খেলা নিয়ে ॥ করাব-আষেঢ়া-ফান্দ্রাইল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ২ ॥ আহত ১৫০

বেলেশ্বরী বারুনীতে জুয়া খেলা নিয়ে ॥ করাব-আষেঢ়া-ফান্দ্রাইল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ২ ॥ আহত ১৫০

কাজী মিজানুর রহমান ॥ বেলেশ্বরী বারুরীতে জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে কয়েক গ্রামবাসির সংঘর্ষের ঘটনায় ২ জন নিহত ও পুলিশ সহ শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছে। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ দেড়শতাধিক রাউন্ড রাবার বুলেট ও ২২ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষকালে বারুনীতে বসা দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট ddকরা হয়েছে। নিহতরা হচ্ছে-লাখাই উপজেলার করাব গ্রামের গুলিবদ্ধ রফিক মিয়া (৫০) ও সদর উপজেলার আষেঢ়া গ্রামের মধু মিয়ার স্ত্রী হাদিসা বেগম (৫০)।
সংঘর্ষে আহতরা হচ্ছে-পুলিশ সদস্য সজিব তালুকদার (২৫) ক-৭৩১, নায়েক হাসান মিয়া (২৪) ক-৪৮১ ও মাসুদ রানা (২৫) ক -১০৯৬। অন্যান্য আহরা হচ্ছে- আব্দাল মিয়া (৬০), শিষ আলী (৭০), ইউসুফ মিয়া (২৫), বরকত উল্লা (৫০), আছকির মিয়া (৪০), শাহীন মিয়া (২৮), রহমত উল্লা (৫০), রহিম মিয়া (১৮), আজাদ মিয়া (২৪) কে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বেলেশ্বরী বারুনীতে বিকেলে করাব ও আষেঢ়া-ফান্দ্রাইল গ্রামের লোকজন পৃথক দু’টি জোয়ার বোর্ড বসায়। এ সময় লাখাই থানা পুলিশ তাদের জোয়া খেলাতে বাধা দেয়। এবং এক জুয়ারীকে পুলিশ আটক করে। এক পর্যায়ে আটক জুয়ারীকে ছেড়ে দেয়া হয়। এদিকে জুয়া খেলা নিয়ে সেকানে উপস্থিত লাখাই উপজেলার করাব ও সদর উপজেলার আষেঢ়া-ফান্দ্রাইল গ্রামের লোকজন বিতর্কে লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে করাব গ্রামের পক্ষে আশপাশের গ্রাম ও আষেঢ়া-ফান্দ্রাইল গ্রামের পক্ষে বেকীটেকা, ধল বামকান্দির লোকজন অংশ নেয়। শুরু হয় ভয়াবহ সংঘর্ষ। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে লাকাই ও হবিগহ্জ সদর থানা পুলিশের পুলিশের পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশ প্রায় আপ্রাণ চেষ্টা চালায়। এ সময় পুলিশ সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে দেড় শতাধিক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ও ২২ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। প্রায় ৩ ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের দেড় শতাধিক লোক আহত হয়। গুরুতর আহত হাদীসা বেগম হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে এবং গুলিবিদ্ধ রফিক মিয়ার ভুড়ি বেরিয়ে গেলে গুরুতর অবস্থায় সিলেট নেবার পথে মারা যায়। নিহত হাদীসা মেলায় পানের দোকান দিয়েছিল বলে তার পুত্র সৈয়দ মিয়া জানায়। সে জানায় তার মা সংঘর্ষে নিহত হয়েছে। কেউ কেউ বলছেন হাদিসা বেগম স্ট্রোক করে মারা গেছে।
এব্যাপারে সদর ওসি মোঃ নাজিম উদ্দিন ও লাখাই থানার ওসি মোঃ মোজাম্মেল হক জানান, জুয়া খেলা নিয়ে উভয় পক্ষের এলাকার লোকজন সংগর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রেণে আনে। এলাকার শান্তিশৃংখলা রক্ষায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com