সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:৪০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে হবিগঞ্জ শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে এক যুবক ভর্তি পরিবেশ ও নিরাপত্তায় আপোষহীন শিল্প প্রতিষ্ঠান সায়হাম গ্রুপ পানির অভাবে গুঙ্গিয়াজুরী হাওর বিরান ভূমিতে পরিণত বানিয়াচঙ্গে ডোবা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার শায়েস্তাগঞ্জে আপনজনের উদ্যোগে শিক্ষা সহায়ক উপকরণ বিতরণ বিথঙ্গল জেডিসি উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও স্বেচ্ছারিতার অভিযোগ হবিগঞ্জ জেলা যুবদলের সাথে যুবদলের কেন্দ্রীয় মনিটরিং টিমের কর্মীসভা নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নে গণফোরামের ৭নং ওয়ার্ড কমিটি গঠিত সারা বছরই অরক্ষিত থাকে বানিয়াচঙ্গের শহীদ মিনার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা দ্রুত সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে-এমপি আবু জাহির
শায়েস্তাগঞ্জে রেলওয়ে জংশন থেকে ৪৭টি ব্ল্যাক টিকেটসহ এক কালোবাজারী গ্রেফতার

শায়েস্তাগঞ্জে রেলওয়ে জংশন থেকে ৪৭টি ব্ল্যাক টিকেটসহ এক কালোবাজারী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শায়েস্তাগঞ্জে রেলওয়ে জংশন থেকে ৪৭টি টিকেটসহ আব্দুল কাইয়ূম (৩৫) নামে কালোবাজারীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পূর্বে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোঃ ইয়াছিনুল হকের নেতৃত্বে এসআই মোবারক হোসেন, এসআই সানা উল্লাহ, আতিকুল আলম, রাহাদ খান, জুলহাস উদ্দিনসহ একদল পুলিশ শায়েস্তাগঞ্জে রেলওয়ে জংশনে অভিযান চালায়। এ সময় ট্রেনের টিকেট কালোবাজারে বিক্রিকালে পুলিশ আব্দুল কাইয়ূমকে গ্রেফতার করেন।
পরে তার দেয়া স্বীকারোক্তিতে জংশন প্লাটফর্মে তার টং দোকান থেকে আরো বেশ কিছু টিকেট উদ্ধার করে পুলিশ। সবমিলে কাইয়ূম এর নিকট থেকে পারাবত ট্রেনের ১২টি, উদয়ন ট্রেনের ৮টি, উপবন ট্রেনের ১৪টি, জয়ন্ত্রিকা ট্রেনের ৯টি, পাহাড়িকা ট্রেনের ৬টি ও কালনী ট্রেনের ১৪ নিয়ে মোট ৪৭টি টিকেট ও দুইটি মোবাইল, নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। ৪৭টি টিকেটে আসন ছিল ৬৩টি। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।
ওসি মোঃ ইয়াছিনুল হক জানান- শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকার তালুগড়াইয়ের বাসিন্দা কালোবাজারী আব্দুল কাইয়ূম রেলওয়ে কলোনী স্কুলের গেইটে দাড়িয়ে এক ট্রেন যাত্রীর কাছে ব্ল্যাকে টিকেট বিক্রি করছিল। এ সময় সময় পুলিশ তাকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। তিনি আরো জানান, সে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ট্রেনের টিকেট কালোবাজারী মাধ্যমে বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। টিকেট কালোবাজারীতে বিক্রি হওয়ায় যাত্রীরা জংশনের এসে ট্রেনের টিকেট না পেয়ে দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। জনগণের দুর্ভোগ লাঘবে পুলিশ এ অভিযান পরিচালনা করেছে। এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে।
উল্লেখ্য, জংশনের টিকেট কাউন্টারে টিকেট না পাওয়া গেলেও কাইয়ূমের কাছে অতিরিক্তি টাকায় টিকেট পাওয়া যেত। বাধ্য হয়ে প্রতিটি টিকেটে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা বেশী দিয়ে যাত্রীররা ক্রয় করতেন। সে গ্রেফতার হওয়ার পর পুলিশের কাছে এমন তথ্য বের হয়ে এসেছে। কাউয়ূম এসব টিকেট স্টেশনের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাধ্যমে কাউন্টার থেকে ক্রয় করে তার দোকানে নিয়ে কয়েকটি জর্দার কৌঠায় রাখত। এখান থেকে কতিপয় দালালের মাধ্যমে টিকেটগুলো বিক্রি করে আসছে।
এদিকে স্টেশন মাস্টার জাহাঙ্গীর আলম বলেন- পুলিশের অভিযান ট্রেনযাত্রীদের উপকারে আসবে। এতে করে কালোবাজরীদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। জনস্বার্থে পুলিশের এ ধরণের অভিযান অব্যাহত রাখার জন্য তিনি দাবী জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com