শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১২:২১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়িতে বিজিবির অভিযান রকেট লাঞ্চারের ১৮টি গোলা উদ্ধার হবিগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ম্যারাথন এর উদ্বোধন সাতছড়ি উদ্যানে পূর্বের ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে উদ্ধার হওয়া রকেট লাঞ্চারের গোলাগুলো খুব বিপজ্জনক আলোচনায় কাহালু ও চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র নোয়া হাটি সংবর্ধনা সভায় মেয়র সেলিম ॥ আমি হবিগঞ্জ পৌরবাসীর ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে চাই হবিগঞ্জ পৌরসভার নব-নির্বাচিত ২ কাউন্সিলরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নবীগঞ্জে মাদকাসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ॥ হুমকির মুখে নিরিহ পরিবার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়রের সঙ্গে ব্যাংকারদের শুভেচ্ছা বিনিময় নবীগঞ্জে শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ প্রতিযোগীতায় ॥ ২৩ বিজয়ী
মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলীর স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে মিনা’র দৌড়ঝাপ

মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলীর স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে মিনা’র দৌড়ঝাপ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলী আহম্মেদ তানজীর উল্লাহ সিদ্দীকি জুমনের স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে মিনা নামে এক যুবতী আবেদন জানিয়েছে। পঞ্চগ্রাম জেলার তেতুলিয়া উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের মৃত বাদশা মিয়ার কন্যা মোছাম্মৎ মিনা মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট আবেদন জানিয়েছে।
লিখিত অভিযোগে জানা যায়-ময়মনসিংহ জেলার গফরগাও সদর উপজেলার গফরগাঁও গ্রামের আমান উল্লাহর ছেলে মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলী আহম্মেদ তানজীর উল্লাহ সিদ্দীকীর সাথে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় মোছাম্মৎ মিনা’র। এক পযার্য়ে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। জুমন তার স্ত্রীর কথা গোপন রেখে মিনাকে বিয়ে করবেন বলে আশ্বস্থ করেন। প্রেমের এক পর্যায়ে একে অপরকে কাছে পেতে ব্যাকুল হয়ে উঠে। গত ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সময়ে জনৈক মৌলভীর মাধ্যমে বিবাহ করে ঢাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়া স্বামী-স্ত্রী হিসাবে জানুয়ারী ২০১৪ পর্যন্ত মিনা ও জুমন বসবাস করে আসছিল। এমন কি মাঝে-মধ্যে মাধবপুর উপজেলায় প্রকৌশলীর স্টাফ কোয়ার্টারের বাসায় মিনাকে নিয়ে অবস্থান করতেন জুমন। চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারী ঢাকার বাসায় অবস্থান করার পর ১৬ জানুযারী প্রকৌশলী জুমন মাধবপুর চলে আসে। ওই দিন বিকাল পর্যন্ত মোবাইলে দু’জনের আলাপ হলেও ওই দিন সন্ধ্যা থেকে প্রকৌশলীর মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে মিনা ছুটে আসে মাধবপুরে। অপর দিকে মাধবপুরের বাসায় ১ম স্ত্রী অবস্থান করায় বিপাকে পড়ে প্রকৌশলী। সাহায্য নেয় এক উপজেলা যুবলীগ নেতা ও মাধবপুর থানার একজন এস.আই’র। তারা মিনাকে বাসায় ডুকতে না দিয়ে মিনাকে মাধবপুর উপজেলা সদরের মুন্সী টাওয়ারে এক বাসায় নিয়ে যায়। তারা মিনাকে কয়েক দিনের মধ্যে রেজিষ্ট্রি কাবিন করে প্রকৌশলীর ঘরে তুলে আনবে এমন আশ্বাস দিয়ে পরদিন মাইক্রো যোগে ঢাকায় ফেরত যেতে বাধ্য করে। কিন্তু প্রকৌশলী জুমন কয়েক মাস মিনার সাথে কোন যোগাযোগ না রাখায় সে সুবিচারের আশায় উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাশিদুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তিনি কোন অভিযোগ পান নি। তবে এর আগে এক মহিলা তার সাথে দেখা করে প্রকৌশলীর সাথে তার বিয়ে হয়েছে বলে মৌখিকভাবে অবহিত করে।
এদিকে উপজেলা প্রকৌশলী আহম্মেদ তানজীর উল্লাহ সিদ্দীকি জুমনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, প্রায় সময়ই একটি মেয়ে আমাকে মোবাইলে বিরক্ত করেছে। আমি মোবাইল রিসিভ না করায় সে বিভিন্ন নাম্বার থেকে ফোন করে আমাকে ফোন দিত। এক পর্যায়ে অতিষ্ট হয়ে আমি ৩/৪ মাস পূর্বে মাধবপুর থানায় জিডি এন্ট্রি করেছি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com