শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯, ০৫:৪০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সদর উপজেলার যমুনাবাদে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু চুনারুঘাটে চোরাই সেগুন কাঠ উদ্ধার যুক্তরাজ্যে হবিগঞ্জবাসীর উদ্যোগে ঈদ পূনর্মিলনী “আনন্দ সন্ধ্যা” নবীগঞ্জের বনকাদিপুর আমজাদ ॥ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আর নেই বঙ্গবন্ধু ছিলেন আধুনিক বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা ॥ এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জে বিষাক্ত সাপের কামড়ে গৃহবধু আহত সীমেরগাঁও গ্রামে সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধ ২ জনসহ আহত ১০ সৌদি আরবের জেদ্দা কনস্যুলেট এর উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালন ॥ বিশেষ অতিথি হিসাবে মন্ত্রী মাহবুব আলীর যোগদান মাধবপুরে সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী গ্রেপ্তার নবীগঞ্জ উপজেলা ও পৌর জাতীয় পার্টির ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্টিত
মাধবপুরে জোড়া খুন করে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে সন্ত্রাসীরা

মাধবপুরে জোড়া খুন করে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে সন্ত্রাসীরা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মাধবপুরে জোড়া খুন করেও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে সন্ত্রাসীরা। এ ছাড়া হত্যা মামলা তুলে না নিলে একটি মামলার বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে ওই সন্ত্রাসী চক্র।
রোববার বিকেলে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন সন্ত্রাসী হামলায় নিহত মাধবপুর উপজেলার নিজনগর গ্রামের কলেজ ছাত্র সোহেলের মা খোর্শেদা খাতুন। সম্মেলনে খোর্শেদা খাতুনের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে শোনান তানভীর আলম ফরহাদ।
খোর্শেদা খাতুন অভিযোগ করেন, সন্ত্রাসীরা তার একমাত্র সন্তানকে খুন করে এবং ওই খুনের ঘটনা ঢাকতে আরও একটি খুন করে।
শুধু তা-ই নয়, সন্ত্রাসীরা প্রভাবশালী হওয়ায় রহস্যজনক কারণে পুলিশ কোন আসামীকে গ্রেফতার করছে না। এমনকি, তার ছেলে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্রও জব্দ করেনি পুলিশ। উপরুন্ত ওই আগ্নেয়াস্ত্র নিয়েই সন্ত্রাসীরা বাদী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়- ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল ‘ধর্মঘর মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি’র সদস্যরা ধর্মঘরের একটি দিঘির টেন্ডার লাভ করে।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই রাতেই ধর্মঘর ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে ফরিদ মিয়ার নেতৃত্বে ২৫/৩০ জনের একদল সন্ত্রাসী বন্দুক, পাইপগান, তীর-ধনুক ও ককটেলসহ অন্যান্য অস্ত্র নিয়ে ধর্মঘর বাজারে ‘ধর্মঘর মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি’র সদস্যদের উপর হামলা চালায়।
এ হামলায় আহত গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক কলেজ ছাত্র সোহেলকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় সোহেলের পিতা আব্দুর রউফ বাদী হয়ে মাধবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
খোর্শেদা খাতুন আরও বলেন, সোহেল খুন হওয়ার খবর পেয়ে সন্ত্রাসী ফরিদ মিয়াসহ অন্যান্য সন্ত্রাসীরা মাধবপুর উপজেলার কুখ্যাত ও আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার, একাধিক মামলার পলাতক আসামী স্থানীয় দেবনগর গ্রামের আব্দুল জাহের ওরফে কালা ডাকাতকে হত্যা করে।
এদিকে সোহেল হত্যাকান্ডের পরদিন কালা ডাকাতকে হত্যার অভিযোগে সোহেলের পিতা আব্দুর রউফসহ কয়েকজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ মামলায় নিহত সোহেলের পিতাসহ কয়েকজন আদালতে হাজির হলে তাদের জামিন না-মঞ্জুর হয়।
একদিকে একমাত্র ছেলে হারা ও অন্যদিকে স্বামী কারাগারে থাকায় খুবই কষ্টে এবং নিরাপত্তাহীনতায় দিনযাপন করছেন খোর্শেদা খাতুন। এ ছাড়া সোহেল হত্যা মামলার আসামীরা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। হত্যা মামলা তুলে না নিলে হুমকি দিচ্ছে প্রাণনাশের।
সম্মেলনে সোহেল ও কালা হত্যার রহস্য উদঘাটন, সন্ত্রাসী গডফাদারদের অবৈধ অস্ত্র জব্দ এবং সোহেলের খুনীদের গ্রেফতারের দাবি জানান খোর্শেদা খাতুন ও তার পরিবার।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com