মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ হবিগঞ্জে ড্যান্ডি নেশায় ঝুঁকছে টোকাই শিশুরা প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীর সাথে মেয়র সেলিমের শুভেচ্ছা বিনিময় নয়া জেলা প্রশাসক ইসরাত জাহানের দায়িত্ব গ্রহণ এমপি পুত্র ইফাত জামিলের আইন বিষয়ে ¯œাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন হবিগঞ্জ পৌর নির্বাচন ৭দিন আগে অনুষ্ঠিত হলেও শহরে বিরাজ করছে নির্বাচনী আমেজ! পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে আছে হবিগঞ্জ শহর ! এগুলো পরিস্কারের দায়িত্ব কার ? জন দূর্ভোগ ॥ নবীগঞ্জ-মুক্তাহার ব্রীজ বানিয়াচংয়ে প্রেমিকের ব্যবসা প্রতিষ্টানে প্রেমিকার অনশন ॥ সালিশে নিষ্পত্তির শর্তে মুরুব্বীদের জিম্মায় নবীগঞ্জে খোলা জায়গায় পশু জবাই করে বিক্রি ॥ পরিবেশ দুষিত হচ্ছেন পত্রিকায় লিখে কোন লাভ হবে না। কর্তারা তাদের ম্যানেজ নবীগঞ্জে অসহায় ব্যক্তির অর্ধশতাধিক গাছ কর্তন
হবিগঞ্জ শহরে ঠেকানো যাচ্ছে না দোকান চুরি

হবিগঞ্জ শহরে ঠেকানো যাচ্ছে না দোকান চুরি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কোনোভাবেই ঠেকানো যাচ্ছে না হবিগঞ্জ শহরে দোকান চুরি। ব্যবসায়ীরা একের পর এক সভা করে ব্যবসায়ীদের সচেতন হওয়ার পাশাপাশি চোরদের তালিকা পুলিশের হাতে দিলেও চোর ধরতে পারছে না পুলিশ। ব্যবসায়ীদের দাবির প্রেক্ষিতে আগের চেয়ে পুলিশের টহল জোরদার করা হলেও চোররাও থেমে নেই। এ যেনো চোর পুলিশ খেলা চলছে। সচেতন মহল মনে করেন রাত্রিকালীন পাড়া মহল্লায় সিএনজি ও মোটর সাইকেল দিয়ে পুলিশী টহল না থাকায় চোরদের কৌশলের কাছে পুলিশ অসহায় হয়ে পড়ছে। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, পুলিশ রাত্রিকালীন প্রধান সড়ক দিয়ে টহল দিয়ে যাবার সময় সাইরেন বাজিয়ে যাওয়ায় চোরের দল সতর্ক হয়ে যায়। ফলে কয়েকদিন ধরে প্রধান সড়কে চুরি না হলেও গত সোমবার রাতে সিনেমাহল বাজার এলাকায় এক রাতে ৩ দোকানে চুরি সংঘটিত হয়েছে। চোররা ওই তিন দোকান থেকে নগদ টাকাসহ প্রায় কয়েক লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা হলেন, ফারদিন এন্টার প্রাইজের মালিক ফয়ছল চৌধুরী, শাহরিয়া টেলিকমের মালিক রাজন মিয়া ও কামাল স্টোরের মালিক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সৈয়দ আলী। তারা জানান, গত সোমবার রাতে দোকান বন্ধ করে যার যার মতো করে বাসায় চলে যান। সকালে এসে দেখেন দোকানের তালা ভাঙ্গা। ভেতরে প্রবেশ করে দেখেন বেনসন, স্টার ফিল্ডার, গোল্ড লিফ সিগারেটের কার্টুনসহ মুদিমাল ও নগদ টাকা এ ছাড়াও মোবাইল ফোনের কার্ড, মোবাইল ফোন নেই। খবর পেয়ে পুলিশ ও ব্যকস সমিতির নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে যান। এ বিষয়ে ব্যকস সমিতির সভাপতি আলহাজ¦ শামসুল হুদা বলেন, একের পর চুরি হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু পুলিশ কোনো কিছুই করতে পারছে না। এখন পর্যন্ত একজন চোরও ধরা পড়েনি। এরকম চলতে থাকলে চোরের হাতে সবকিছু দিয়ে ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হবে। এরপরও যদি পুলিশ ব্যবস্থা না নেয় তাহলে সকল ব্যবসায়ী রাস্তায় নেমে আন্দোলন করবে।
প্রসঙ্গত, গত দুই সপ্তাহে আরও ৭-৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুঃসাহসিক চুরি হয়েছে। কিন্তু একটি চুরির বিষয়ে কিছুই উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। সূত্র জানিয়েছে, শহরের গোসাইপুর, সিনেমা হল, শ্যামলী, ইনাতাবাদ, অনন্তপুর ও শায়েস্তানগর ইদগাঁহ সড়কসহ বিভিন্ন এলাকায় চিহ্নিত কয়েকজন চোর রয়েছে। যাদের কেউ কেউ কারাগার থেকে বের হয়ে এখন প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে। যাদের বেশিরভাগই জুয়া ও মাদক সেবনের সাথে জড়িত। তারা জুয়া ও মাদকের টাকা যোগান দিতেই এসব চুরি সংঘটিত করছে বলে জানা গেছে। তবে পুলিশ জানিয়েছে, চোরদের ধরতে পুলিশ সার্বক্ষনিক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com