সোমবার, ১৩ Jul ২০২০, ১০:৪২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
বানিয়াচংয়ে ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার আজমিরীগঞ্জে রাস্তা ডুবে গ্রামে ঢুকছে কুশিয়ারার পানি শায়েস্তাগঞ্জে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ৯ লক্ষাধিক টাকার চেক বিতরণ করেছেন এমপি আবু জাহির সরকার কর্তৃক বরখাস্ত হলেও দলীয় পদে বহাল তবিয়তে মুকুল হবিগঞ্জে আরো ১০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নাভানা গ্রুপের অক্সিজেন কনসেনটেটর প্রদান মাধবপুরে মসজিদ ভাঙার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাপা ক্ষোভ চুনারুঘাটে ট্রাক্টরের ধাক্কায় নারী নিহত ॥ ট্রাক্টর আটক শায়েস্তাগঞ্জের চোরাই মোটর সাইকেলসহ ২ ব্যক্তি আটক জলাবদ্ধতা ও সমস্যামুক্ত হবিগঞ্জ জেলা চাই গ্রুপ আয়োজিত ॥ অনলাইন ভিত্তিক সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতার বিজয়ীর পুরস্কৃত করলেন মেয়র
ভারতীয় নাগরিকের পিটুনীতে বাংলাদেশী খুন ॥ লাশের অপেক্ষায় স্বজনরা

ভারতীয় নাগরিকের পিটুনীতে বাংলাদেশী খুন ॥ লাশের অপেক্ষায় স্বজনরা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ভারতীয় নাগরিকদের হাতে নির্মমভাবে খুন হয়েছেন বাংলাদেশী নাগরিক লোকমান হোসেন (৩২)। হত্যার ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে ভারত। ফলে যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়ার পরও লাশ দেশে আনা সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে নিহতের স্বজনরা অপেক্ষার প্রহর গুনছেন কখন আসবে লোকমানের লাশ গরুচোর অপবাদ দিয়ে লোকমানকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। লোকমান হোসেন হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার মালঞ্চপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাসিমের ছেলে।
বিজিবি-৫৫ ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক লে. কর্ণেল সামিউননবী জানান, ২৪ মের পর থেকেই আমরা চেষ্টা করছে লাশ দেশে ফেরত আনার জন্য। আমরা ভারতীয় পক্ষকে লাশের সাথে এফআইআর, পোস্টমর্টেম ও কোভিড-১৯ পরীক্ষার কপি দেয়ার জন্য জানাই। বুধবার তারা পোস্টমর্টেম ছাড়া এবং এফআইআর এর আংশিক কপিসহ লাশ নিয়ে আসে। কিন্তু আমরা তা গ্রহণ না করে তিনটি কাগজ দেয়ার কথা জানাই। বৃহস্পতিবার দুুপুরে পুনরায় লাশ ফেরতের সময় নির্ধারন করা হলেও এবার তারা এফআইআর ছাড়াই লাশ দেয়ার চেষ্টা করে। ফলে আমরা তা গ্রহণ করিনি।
তিনি আরও জানান, আমাদের পুলিশ বিভাগের লোকজন ধারনা করছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ এই খুনের ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। তাই এফআইআর এর কপি দিচ্ছে না। একটি এফআইআর করতে আধা ঘন্টার বেশী সময় লাগার কথা নয়। তবে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে লোকমানের কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। তিনি আশাবাদী লাশ যথাশীঘ্র দেশে নিয়ে আসা হবে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ মে অবৈধ ভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মোহনপুর এলাকায় তার ফুফুর বাড়ি যাচ্ছিলেন লোকমান। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের গোপালনগর পৌঁছাতেই একদল ভারতীয় নাগরিক লোকমান হোসেনকে পথরোধ করে গরুচোর সন্দেহে এলোপাতাড়ি পিটাতে থাকে। এসময় সে চোর না; বেড়াতে এসেছে এমন আকুতি বার বার জানালে ও পাষন্ডদের মন গলেনি। এলোপাপাড়ি পিটুনিতে তার মৃত্যু হয়। ভারতীয় কয়েকটি গনমাধ্যমে লোকমানের আকুতির ভিডিও প্রচার হয়েছে। তবে গরুচোর সন্দেহ গনপুটুনীতে তার মৃত্যুর খবর ত্রিপুরার গনমাধ্যম সম্প্রচার করে। মৃত ভেবে ভারতীয়রা লোকমানকে বাংলাদেশ সীমান্তের অদূরে একটি জঙ্গলে ফেলে রাখে।
খবর পেয়ে পশ্চিম ত্রিপুরা রাজ্যের সিধাই থানা পুলিশ মূমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে লোকমানের মৃত্যু হয়। বুধবার বিকালে বিজিবি-বিএসএফ এর পতাকা বৈঠক হয় ১৯৯৪/৪ এস পিলারে নিকট বাংলাদেশের মোহনপুুুর নামক স্থানে। ভারতের পক্ষে বিএসএফ এর ১২০ ব্যাটালিয়নের মোহনপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার ইন্সপেক্টর শশি কান্ত ও বাংলাদেশের পক্ষে নেত্বত্বদেন ৫৫ বিজিবির ধর্মঘর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার দেলোয়ার হোসেন। বৈঠকে জানানো হয়, বুধবারই ভারতের পশ্চিম ত্রিপুরা রাজ্যের মোহনপুর সীমান্ত দিয়ে লাশ হস্তান্তর করার কথা ছিল। কিন্তু ভারতীয় পুলিশ ময়না তদন্ত, সুরতহাল রিপোর্ট আনুসাঙ্গিক কাগজপত্র ছাড়া লাশ হস্তান্তর করতে চাইলে বাংলাদেশের বিজিবি-পুলিশের প্রতিনিধিরা অস্বীকৃতি জানায়।
বৃহস্পতিবার বিজিবির ধর্মঘর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার দেলোয়ার হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটায় লোকমানের লাশ ভারত আমাদের কাছে হস্তান্তর করবে। কিন্তু এফআইআর এর কপি না থাকায় আমরা লাশ গ্রহণ করতে পারছিনা। তবে আমরা অপেক্ষায় রয়েছে সন্ধ্যা নাগাদ ভারতীয় পক্ষ আমাদের কাছে লাশ হস্তান্তর করবে।
নিহতের পরিরার সূত্র জানায়, লোকমান মিয়া বাড়ির পাশ দিয়ে অবৈধ পথে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতের মোহনপুরে তার ফুফুর বাড়ি যাইতে ছিলেন। পতিমধ্যে ভারতীয় নাগরিকদের রোষানলে পরে নির্মম ভাবে খুন হয় সে।
নিহতের ছোট ভাই হুমায়ুন মিয়া বলেন, আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে। ভারতীয় গনমাধ্যমে প্রচার হয়েছে। অথচ তারা কাগজ পত্র ছাড়া লাশ ফেরত দিতে চায়। এ ব্যাপারে হত্যকারীদের যেন বিচার হয় তার দাবী করেন তিনি।
তিনি আরও জানান, আমরা লোকমানের লাশের জন্য প্রতিদিন অপেক্ষায় থাকি। কিন্তু লাশ আসছে না। বৃহস্পতিবার আমরা সারাদিন বৃষ্টির মাঝেও বসে বসে অপেক্ষা করছি কখন আসবে লাশ।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com