শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১২:৪১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়িতে বিজিবির অভিযান রকেট লাঞ্চারের ১৮টি গোলা উদ্ধার হবিগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ম্যারাথন এর উদ্বোধন সাতছড়ি উদ্যানে পূর্বের ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে উদ্ধার হওয়া রকেট লাঞ্চারের গোলাগুলো খুব বিপজ্জনক আলোচনায় কাহালু ও চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র নোয়া হাটি সংবর্ধনা সভায় মেয়র সেলিম ॥ আমি হবিগঞ্জ পৌরবাসীর ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে চাই হবিগঞ্জ পৌরসভার নব-নির্বাচিত ২ কাউন্সিলরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নবীগঞ্জে মাদকাসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ॥ হুমকির মুখে নিরিহ পরিবার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়রের সঙ্গে ব্যাংকারদের শুভেচ্ছা বিনিময় নবীগঞ্জে শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ প্রতিযোগীতায় ॥ ২৩ বিজয়ী
নবীগঞ্জে মেশিন দিয়ে চলছে ধান কাটা

নবীগঞ্জে মেশিন দিয়ে চলছে ধান কাটা

কিবরিয়া চৌধুরী, হবিগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জ উপজেলায় বোরো ধান কাটা পুরোদমে শুরু হয়েছে। প্রশাসনের সহায়তায় ইতিমধ্যে হাওরের প্রায় ৬৫ শতাংশ ধান কাটা হয়েছে। এবার দ্রুত ফসল ঘরে তুলতে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন দিয়ে চলছে ধান কাটা। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ধান কাটার মেশিন পেয়ে খুশি কৃষকরা। জেলা প্রশাসন তদারকি করছে ধানকাটা ব্যবস্থাপনা।
সূত্র জানায়, নবীগঞ্জ উপজেলায় এবার ১৭ হাজার ৭৫০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদ হয়েছে। এখন পুরোদমে বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। দ্রুত ফসল ঘরে তুলতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ১৫টি কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বরাদ্দ হয়েছে এ উপজেলায়। তাই শ্রমিক সংকটের মাঝেও ফসল তুলতে বেগ পেতে হচ্ছে না কৃষকদের। কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিন দিয়ে একদিনেই প্রায় ৫ একর জমির ধান কাটা ও মাড়াই করা যায়।
গজনাইপুর গ্রামের কৃষক আবুল মিয়া বলেন, ‘এক একর জমিতে ধান কাটা মাড়াই করতে খরচ ছিল প্রায় ১০ হাজার টাকা। এখন মেশিন দিয়ে ধান কাটা, মাড়াই ও বস্তাবন্দী করে বাড়িতে নেয়া যাচ্ছে ৬-৭ হাজার টাকার মধ্যে।’
নবীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ.কে.এম মাকসুদুল আলম বলেন, ‘আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ভালো ফলন হয়েছে। ইতমধ্যে বাইরের জেলা থেকে শ্রমিক সংগ্রহ করা হয়েছে। এমনকি প্রত্যেক ইউনিয়নে শ্রমিকদের তালিকা করে দল গঠন করা হয়েছে।’
হবিগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. তমিজউদ্দিন খান বলেন, ‘মাঠে ফলন ভাল হয়েছে। কৃষকদের কোনও সংকট নেই। জেলা প্রশাসক শ্রমিকদেরকে প্রণোদনা দিচ্ছেন, কৃষি বিভাগ মনিটরিং করছে। ৮০ ভাগ ধান পাকতে সময় লাগবে ১৫ থেকে ২০ দিন। মেশিন ও শ্রমিকের সহায়তায় ধান কাটতে সমস্যা নেই।’
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, ‘ফসলের সামান্যতম ক্ষতি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে। নেওয়া হয়েছে সমন্বিত উদ্যোগ। আবহাওয়া ভালো রয়েছে। আশা করি কৃষক সব ধান ঘরে তুলতে পারবে।’

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com