বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ফেইসবুকে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা ॥ লাখাইর সাবেক কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবিবের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন নবীগঞ্জের চেয়ারম্যান মুকুলের বরখাস্তের আদেশ বহাল সমৃদ্ধ দেশ গড়তে যুব সমাজকে কাজে লাগাতে হবে-এমপি আবু জাহির চাঁদাবাজির মামলায় স্বাক্ষী হওয়ায় বাস শ্রমিককে হুমকির অভিযোগ দুই লন্ডনীর বিরুদ্ধে মামলা বিএনপি নেতা নাজমুল হুদা এখন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা পইলে সৈয়দ আহমদুল হক ফুটবল টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনাল শুরু পাঁচপাড়িয়া গ্রামে মরহুম আরফান আলী ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্ট ও আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গের হিয়ালায় জুয়া খেলার অপরাধে ৪ জনের প্রত্যেককে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান নবীগঞ্জের বাউসি গ্রামে দুর্বৃত্তের হামলায় রবি পরিবার গৃহহারা হবিগঞ্জ জেলা ট্রাক ও ট্যাংকলড়ী শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম বিতরণ
হবিগঞ্জে আক্রান্ত ৪৮ জনের ২২ জনই সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী

হবিগঞ্জে আক্রান্ত ৪৮ জনের ২২ জনই সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জে এ পর্যন্ত মোট ৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মাঝে ২২ জনই ডাক্তার, নার্স, প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী। তাদের এত বেশি আক্রান্ত হওয়ার খবরে বিভিন্ন মহলে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ সাধারণ মানুষকে এ বিষয়ে আরও সচেতন হওয়ার বিকল্প নেই বলে তারা মনে করছেন।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্যে জানা যায়, জেলায় প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হয় ৯ এপ্রিল। তিনি নারায়নগঞ্জ থেকে এসেছিলেন। পেশায় ট্রাক চালক। এরপর দীর্ঘদিন জেলায় আর কেউ আক্রান্ত হননি। কিন্তু ২০ এপ্রিল একদিনেই লাখাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন ডাক্তার ও নার্সসহ মোট ১০ জন করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হন। পরদিন ২১ এপ্রিল লাখাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরও একজন নার্স আক্রান্ত হন। ইতিমধ্যে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ২১ এপ্রিল লাখাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে আর দমেনি। প্রতিদিনই বাড়তে থাকে করোনা আক্রান্তের হার। এর সাথে একে একে ডাক্তার, নার্স, প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নাম যুক্ত হতে থাকে। চুনারুঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার ও ব্রাদার এবং মাধবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ব্রাদার করোনায় আক্রান্ত হন। তবে এর মাঝে সদর উপজেলার কোন রোগী সনাক্ত হননি। অবশেষে ২৫ এপ্রিল এলো জেলা সদরের জন্য দুঃসংবাদ। একদিনেই ২০ জন আক্রান্ত হন। তাও আবার ১৫ জনই সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী। ১১ জন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর আধুনিক হাসপাতালের স্টাফ। তাদের মধ্যে রয়েছেন ডাক্তার, নার্স, ল্যাব টেকনিশিয়ান ও এম্বুলেন্স চালক। আর বাকি ৪ জন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারী। তাদের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটসহ আরও ২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। অপরজন নাজির। সবশেষ ২৬ এপ্রিল রাতে একজন সহকারি কমিশনার ভূমি (এসিল্যান্ড) আক্রান্ত হন বলে জানানো হয়। সবমিলিয়ে ডাক্তার, নার্স, প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ ২২ জন সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী করোনা আক্রান্ত হন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com