সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
বানিয়াচংয়ে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ব্যবসায়ীদের স্বপ্ন পুড়ে ছাই ॥ ক্ষতি প্রায় ৩ কোটি টাকা ॥ এমপি মজিদ খানের পরিদর্শন নবীগঞ্জে আ.লীগ নেতাসহ ৫ জনকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত হবিগঞ্জে ডিসির আশ্বাসে বাস চলাচল স্বাভাবিক এমপি আবু জাহিরকে তাক লাগানো সংবর্ধনা দিল গোপায়া ইউনিয়নবাসী ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্ত্বা দেয়ার আহবান জানালেন মোতাচ্ছিরুল ইসলাম ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের নয়া কমিটি মর্তুজ আলী সভাপতি, আব্দুল্লাহ সম্পাদক মৎস্যজীবী লীগের স্বীকৃতিপ্রাপ্তির বর্ষপূর্তি উদযাপন ॥ তাজুল ইসলামকে ¯œানঘাট ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী দেয়ার দাবি আজমিরীগঞ্জে সরকারী ভূমিতে দোকান ঘর নির্মানের চেষ্টা ॥ প্রশাসনের নির্দেশে কাজ বন্ধ মাধবপুরে বাহাদুর হত্যা মামলা অবশেষে পিআইবিতে হস্তান্তর মেয়র প্রার্থী নিলাদ্রী টিটু’র সমর্থনে ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভা
হটলাইনে এসএমএস করলেই বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে খাদ্য-নবীগঞ্জের ইউএনও

হটলাইনে এসএমএস করলেই বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে খাদ্য-নবীগঞ্জের ইউএনও

কিবরিয়া চৌধুরী ॥ করোনা ভাইরাস নামক এক অদৃশ্য শক্তির কারনে শ্রমজীবী মানুষের নেই কোন কর্ম, ঘরে নেই খাবার। ঠিক চিন্তিত হয়ে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে বেচে রয়েছে অসহায় মানুষগুলো।
চোখে মুখে, অসহায়ত্ব নিয়ে বেঁচে আছেন নবীগঞ্জ উপজেলায় হাজার হাজার মানুষ। তবে এই হতাশাগ্রস্থ মানুষের পাশে সার্বক্ষনিক মুহুর্ত নজরে রাখছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল। উপজেলার শেষ আশ্রয়স্থল হিসেবে মানুষের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছেন ইউএনও। ঠিক এমনটাই আভাস মিলেছে উপজেলার গ্রামের মানুষের কন্ঠ থেকে। বরাদ্দকৃত খাদ্য সামগ্রী প্রতিনিয়ত মানুষের দরজার স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে বিতরণ করছেন। থামাতে পারেনি রোদ কিংবা বৃষ্টি। অনেক সময় রাত গভীর হয়ে গেলেও খাদ্য সামগ্রী বাধার মুখে পড়েনা। বরং শত বাঁধা পেড়িয়ে মানুষের দরজায় খাদ্য নিয়ে উপস্থিত হন ইউএনও।
চক্ষু লজ্জার কারণে ত্রাণ নিতে আসতে পারছেন না অনেক মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজন। এসব মানুষ এসএমএস করলেই সেই সব মানুষের বাড়িতে গোপনে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল।
ত্রাণ সহায়তা পেতে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের হটলাইনে এসএমএস পাঠিয়ে দিলেই তাৎক্ষণিক বাসায় পৌঁছে যায় খাদ্য সহায়তা। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসানের নির্দেশনায় ইতিমধ্যে নবীগঞ্জ উপজেলার প্রায় ১ হাজারেরও বেশি নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানো হয়েছে। এ কার্যক্রম অব্যাহত হয়েছে।
বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক সমস্যায় নিমজ্জিত পরিবারকে সহায়তা করতে হটলাইন সেবা চালু করেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান। হটলাইনে (হটলাইন নাম্বার-০১৭৬৬১১৯৬০০, ০১৭৭৯৯৭৬৭০৬, ০১৭২১০৪৭৪৬৭, ০১৭১৬৪০২১৪৮) এসএমএস পাঠালে জেলা প্রশাসন থেকে সংশ্লিষ্ট উপজেলার আবেদনগুলো ফরওয়ার্ড করে পাঠিয়ে দেয়া হয় ইউএনও এর কাছে। নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল আবেদনগুলো যাচাই বাচাই করে সর্বোচ্চ গোপনীয়তা রক্ষা করে একটি স্বেচ্ছাসেবী বিশেষ টিমের মাধ্যমে মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেন আবেদনকারীর বাড়িতে।
নবীগঞ্জের গ্রামের এক গৃহবধূ বলেন, এতদিন কেউ তাদের খোঁজ নেননি। প্রশাসনের খাদ্যদ্রব্য পেয়ে তিনি খুবই খুশি। একই কথা বলেন, অপর এক মহিলা। তিনি বলেন, বাবা দিনমজুর। কয়েকদিন কাজ নেই। প্রায় অনাহারে দিন কাটছিল। পরিচিত একজনের মাধ্যমে ম্যাসেজ পাঠান। এরপর রাতে খাদ্য সামগ্রী পেয়েছেন।
এ ব্যাপারে, নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিশ্বজিত কুমার পাল বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার মাধ্যমে পর্যাপ্ত বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। কেউ অনাহারে থাকবে না। মধ্য শ্রেণির পরিবারের যারা লাইনে দাঁড়িয়ে খাবার নিতে পারবেন না বা যারা চাইতে পারেন না তারাও হটলাইন নম্বার চালুর পর অনেকে সাহায্যের জন্য এসএমএম পাঠান, আমরা যাচাই-বাছাই করে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেই।
ত্রাণের জন্য যেভাবে এসএমএস পাঠাবেন:
এসএমএস করার সময় অবশ্যই নিচে উল্লিখিত তথ্যগুলো প্রদান করতে হবে, ১. নাম, ২. মোবাইল নাম্বার, ৩. উপজেলা উল্লেখ করে পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা, ৪. জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, ৫. পেশা, ৬. কোনো সরকারি সহায়তা ইতোমধ্যে পেয়েছেন কি না।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com