বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ০২:১৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ শহরে একটি মার্কেটের ভাড়া মওকুফ করলেন কাতার প্রবাসি মাসুক চুনারুঘাটের আমুরোড বাজারে সেনাবাহিনী ও প্রশাসনের যৌথ অভিযান ॥ ৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে ৪’হাজার টাকা জরিমানা হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে মঙ্গলরবার মাধবপুরে শ্রমজীবী মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ডাঃ ফাতেমা খানম হবিগঞ্জ সীমান্তে কঠোর নিরাপত্তার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মাধবপুরে বেসকারী হাসপাতালের চিকিৎকদের পিপিই দিলেন ডাঃ মুশফিক চৌধুরী নবীগঞ্জে সংবাদপত্র হকারদের মধ্যে ত্রান বিতরন করেছেন সাবেক এমপি মুনিম চৌধুরী বাবু চুনারুঘাটে গ্রামীণ উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কর্মহীনদের মাঝে আর্থিক সহায়তা দরিদ্রদের মাঝে রোটারি ক্লাব অব শ্রীমঙ্গলের ত্রাণ বিতরণ করোনা সন্দেহে চুনারুঘাটে ২৫ জনের নমুনা আইইডিসিআরে প্রেরন
শহরে চাল ও পেয়াজের দোকানে ডিসি-এসপির ঝটিকা অভিযান ২ ব্যবসায়ীকে ৬ মাসের কারাদন্ড ॥৩৪ ব্যবসায়ীকে আড়াই লক্ষ টাকা জরিমানা

শহরে চাল ও পেয়াজের দোকানে ডিসি-এসপির ঝটিকা অভিযান ২ ব্যবসায়ীকে ৬ মাসের কারাদন্ড ॥৩৪ ব্যবসায়ীকে আড়াই লক্ষ টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হঠাৎ করে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম বেশি রাখায় জেলার বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। গতকাল সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ৩৬ প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও নগদ অর্থদন্ড করে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারকগন।
জানা যায়, বিশ্বে করোনা ভাইরান মহামারী আকার ধারণ করায় কিছু কিছু অতিউৎসাহী ক্রেতারা প্রয়োজনের দ্বীগুণ মালামাল ক্রয় করে মজুদ করা শুরু করেন। আর এই সুযোগে হবিগঞ্জের বিভিন্ন হাট-বাজারে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের মূল্য বাড়িয়ে দেয়। যেখানে গত সপ্তাহে প্রতিটি হাট-বাজারে চালের মূল্য ছিল মোটা ১১৫০ থেকে ১২৫০। আর উন্নতমানের চিকন চালের মূল্য ছিল ১৪শ থেকে ১৫শ টাকা। মিনিকেটসহ অন্যান্য চালের দাম ছিল ১৫শ ৫০ থেকে ১৭শ টাকা। কিন্তু গতকাল বিকেল থেকে হবিগঞ্জ জেলা শহরসহ উপজেলার বাজারগুলোতে অসাধূ ব্যবসায়ীরা কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা অতিরিক্ত মূল্য রাখছেন ক্রেতাদের কাছ থেকে। যা প্রতি বস্তা চালে প্রায় ৫শ থেকে ৬শ টাকা বেশি। গতকাল দুপুরে বিষয়টি জেলা প্রশাসনের নজরে আসলে তাৎক্ষনিক হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান কয়েকটি টিম গঠন করে দেন। প্রতিটি উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মতর্কা, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কে দায়িত্ব দেন। এর পাশাপাশি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা (বিপিএম-পিপিএম) এর নেতৃত্বে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। উপজেলা পর্যায়ের অভিযানকালে ৩৪টি মামলা দেয়া হয়।
সকালে হবিগঞ্জ সদরে অভিযান পরিচালনা করে ৩ প্রতিষ্ঠানকে ৮ হাজার টাকা, শায়েস্তাগঞ্জে ৩ প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা, চুনারুঘাটে ৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৮৫ হাজার টাকা, বাহুবলে ৭ প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা, নবীগঞ্জের ৫ প্রতিষ্ঠানকে ৭ হাজার ৫শ টাকা, বানিয়াচঙ্গে ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ৪৫ হাজার, মাধবপুরে ৫ প্রতিষ্ঠানকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক। একই সাথে অন্যান্য ব্যবসায়ীদেরকে সর্তক করে দেয়া হয়।
এছাড়া রাত সাড়ে ৯টার দিকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যাহ শহরের চৌধুরী বাজারে ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় পেয়াজের অতিরিক্ত মূল্য রাখার দায়ে মিঠুন স্টোরের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ মনফর আলীকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন। একই সময়ে অতিরিক্ত মূল্যে চাল বিক্রির দায়ে রামকৃষ্ণ খাদ্য ভান্ডারের ম্যানেজার বিপ্লব রায়কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। সেই সাথে ওই চালের আড়তে মজুদ রাখা ২১০ বস্তা চাল শুক্রবার প্রকাশ্য নিলামে বিক্রির জন্য আদেশ দেন।
নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্রেট শামসুদ্দিন মোঃ রেজা পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি মজুদ ও অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রির দায়ে চৌধুরী বাজারস্থ ওই দুই ব্যবসায়ীকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪০ ধারা অনুযায়ী ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। অভিযানকালে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মোঃ মাসুক আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম সহযোগীতা করে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com