মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ফেইসবুকে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা ॥ লাখাইর সাবেক কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবিবের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন নবীগঞ্জের চেয়ারম্যান মুকুলের বরখাস্তের আদেশ বহাল সমৃদ্ধ দেশ গড়তে যুব সমাজকে কাজে লাগাতে হবে-এমপি আবু জাহির চাঁদাবাজির মামলায় স্বাক্ষী হওয়ায় বাস শ্রমিককে হুমকির অভিযোগ দুই লন্ডনীর বিরুদ্ধে মামলা বিএনপি নেতা নাজমুল হুদা এখন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা পইলে সৈয়দ আহমদুল হক ফুটবল টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনাল শুরু পাঁচপাড়িয়া গ্রামে মরহুম আরফান আলী ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্ট ও আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গের হিয়ালায় জুয়া খেলার অপরাধে ৪ জনের প্রত্যেককে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান নবীগঞ্জের বাউসি গ্রামে দুর্বৃত্তের হামলায় রবি পরিবার গৃহহারা হবিগঞ্জ জেলা ট্রাক ও ট্যাংকলড়ী শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম বিতরণ
বানিয়াচংয়ে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালকরা

বানিয়াচংয়ে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালকরা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং সদরসহ উপজেলা জুড়ে বিভিন্ন রাস্তায় প্রতিদিন প্রায় কয়েক শতাধিক বখাটে বেপরোয়া মোটরসাইকেল ড্রাইভ করছে। উঠতি বয়সী কিশোর, যুবক সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কিছু উচ্ছৃংখল কর্মীরা এমন বেপরোয়া বাইক চালিয়ে পথচারীসহ স্কুল কলেজ গামী ছাত্র/ছাত্রীদের করছে বিরক্ত। এদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না শিশুসহ বৃদ্ধরাও। এমন ভীতিকর পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে প্রশাসনের কোন নজরদারী চোখে পড়ছেনা। বানিয়াচং উপজেলার এক শ্রেণির উচ্ছৃংখল যুবকরা মোটরবাইকে চড়েই বেপরোয়া হয়ে উঠছে। সময় হাতে না নিয়ে দ্রুত কর্মস্থল বা কাংখিত স্থানে পৌছতে অনেকে বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালান। অনেক সময় এর আরোহীর সংখ্যা দুইয়ের বেশি হয়। আবার চালানোর সময় কানের মধ্যে মোবাইল ফোনে কথাও বলেন চালকরা। বানিয়াচংয়ে গুরুত্বপুর্ণ রাস্তা সহ উপজেলার বিভিন্ন রাস্তায় খুব দ্রুত গতিতে আক্রমনাত্বক ভাবে মোটরসাইকেল চালিয়ে জনমনে আতংক সৃষ্টি করছে এরা। বিভিন্ন স্কুল কলেজের সামনে এসে বেপরোয়া ভাবে মোটরসাইকেল চালিয়ে শিক্ষার্থীদের নজরে আসার চেষ্টা করে বাইক চালকরা। এমন বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে নিজে যেমন দুর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে তেমনি পথচারীদেরও প্রতিনিয়িত করছে আহত। মোটরবাইক রেসের মত চালকদের হেলে দুলে চালানোর দৃশ্য দেখে মানুষ হতভম্ব হয়ে যান। জনবহুল এমনকি হাট-বাজারে এসে কানের কাছে জোরে গাড়ির হর্ণ বাজিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে চালকরা। অধিকাংশ বাইকে আবার হাইড্রোলিক হরণ লাগানো। বেশিরভাগ এসব বাইক চালকরা সমাজের সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান। এমনকি রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী হওয়ায় তাদের কেউ কিছুই বলারও সাহস পায়না। এদের অধিকাংশরই নেই ড্রাইভিং লাইসেন্স। নেই গাড়ির সঠিক কাগজপত্রও। এরা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে এবং রাজনৈতিক পরিচয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। কেহই এদের ব্যাপারে মুখ খুলে কিছু বলছে না, প্রতিবাদও করেনা। আড়ালে তাদের ঘৃণা আর অভিসম্পাত করেই নীরব থাকে ভুক্তভোগী মানুষ।
গত সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন রাস্তায় বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল দুর্ঘটনার খবর পাওয়া গেছে। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও বাইক দূর্ঘটনায় আহতের ঘটনা ঘটলেও থানা পুলিশ কেন এদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছে না বিষয়টি অনেকেরই বোধগম্য নয়। পথচারী রুমান আহমেদ জানান, মোটরসাইকেল চালকদের কিসের যেন তাড়া থাকে। তারা একটু সময় কোথাও দাঁড়াতে রাজি নয়। বরং সময় বাঁচাতে তীব্র হর্ণ দিয়ে বেপরোয় গতিতে রাস্তার উপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালায়। এদের এই দৌরাত্ম বন্ধ করতে তিনি আদালতের নির্দেশনা ও জরিমানা কার্যকরের তাগিদ দেন। ব্যবসায়ী জামিল হোসেন জানান, মোটরসাইকেল চালকদের মধ্যে এক ধরণের ক্ষমতার দাপট দেখানোর প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। এসব থেকে পরিত্রান পাওয়া দরকার।
শিক্ষার্থী আনিসুর রহমান জানান, অনেক চালকরা মনে করেন মোটরসাইকেল মানেই গতি। বেশি গতি উঠালে যে নিয়ন্ত্রনের বাহিরে চলে যায়, সেটা তাদের মাথায় থাকেনা।
এসব বিষয়ে বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রঞ্জন কুমার সামন্ত বলেন, বিষয়টি সত্যিই উদ্বেগজনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। থানা পুলিশের পক্ষ থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায়ই চেকপোষ্ট বসিয়ে এ সকল বখাটে ও লাইসেন্স বিহীন মোটরসাইকেল আটক করে মামলা দেয়া হচ্ছে। অধিকাংশ হোন্ডা চালকরা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছে। থানা পুলিশ এ সকল চালকদের বিরুদ্ধে আগের চাইতে আরো কঠোর অভিযান পরিচালনা করবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com