বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণে বিপুল পরিমাণ মাদক ধ্বংস শহরে টমটম স্ট্যান্ডের দখল নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ব্যবসায়ী রশিদের দাফন সম্পন্ন শায়েস্তাগঞ্জের ২ পা হারানো স্কুল ছাত্রী নদীকে মানবিক সহায়তা নবীগঞ্জে অবৈধ যানবাহন আটকে পুলিশের অভিযান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডাব্লিউএইচও এর কো-চেয়ারম্যান মনোনীত হওয়ায় হবিগঞ্জ পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের আনন্দ র‌্যালী বাহুবল সন্তান নিয়ে পালিয়ে যাওয়া পিতার কবল থেকে শিশু উদ্ধার তাসনোভা-শামীম ফাউন্ডেশন ও মরহুম আব্দুল মালেক এন্ড আয়াত আলী স্মৃতি সংঘের যৌথ উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ হবিগঞ্জে বাড়ছে ঠান্ডা জনিত রোগ এক সপ্তাহে ৩৫০ শিশু আক্রান্ত হবিগঞ্জে নতুন করে ৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শেখ হাসিনা দেশকে এমনভাবে গড়তে চান যেন সারাবিশ্ব অবাক হয়ে দেখে-এমপি আবু জাহির
বানিয়াচঙ্গে এমপি মজিদ খানের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ॥ বিশেষ প্রকল্পের মাধ্যমে হাওর অঞ্চলকে উন্নত করা হবে

বানিয়াচঙ্গে এমপি মজিদ খানের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ॥ বিশেষ প্রকল্পের মাধ্যমে হাওর অঞ্চলকে উন্নত করা হবে

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান বেসরকারী সদস্যদের বিল ও বেসরকারী সিদ্ধান্ত প্রস্তাব সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হওয়ায় তাকে বিশাল গণসংবর্ধনা দিয়েছে বানিয়াচং উপজেলা আওয়ামীলীগ। গতকাল উপজেলা পরিষদ মাঠে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আমীর হোসেন মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খানের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম. এ মান্নান এমপি। তিনি বক্তৃতায় বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু ষড়যন্ত্র থেমে নেই। যারা এদেশের স্বাধীনতা চায়নি, যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করেছে; সেই স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনও শেখ হাসিনার সরকার ও বাংলাদেশের জনগণের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তাই শুধু ঘরে বসে থাকলে চলবেনা। স্বাধীনতা বিরোধী, দেশ বিরোধী ও দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি বিরোধী রাজাকার শক্তির বিরুদ্ধে সকলকে রাজপথে নেমে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। প্ররিকল্পনা মন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনা খুব সাহসী মানুষ। তিনি আমাকে বলেছেন, মান্নান সাহেব; হাওরের মানুষকে বিচ্ছিন্ন রাখলে চলবেনা। হাওরের যেখানে রাস্তা দরকার সেখানে রাস্তা করেন। রাস্তা করা সম্ভব না হলে প্রয়োজনে ফ্লাইওভার করেন। যেখানে ব্রীজ দরকার সেখানে ব্রীজ করেন। এভাবে হাওর অঞ্চলকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করুন। হাওর বেষ্টিত হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ অঞ্চলকে উন্নত করতে শেখ হাসিনার নির্দেশে বিশেষ প্রকল্পের আওতায় আনার ঘোষনা দেন। তিনি সুনামগঞ্জ জেলাকে রেল যোগাযোগের মাধ্যমে ময়মনসিংহ জেলার সাথে সংযুক্ত করার ঘোষনাও দেন। তিনি সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বানিয়াচং উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ বানিয়াচংবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনারা মজিদ খানের মত ভালো মানুষকে সংবর্ধিত করে একটি মহৎ কাজ করেছেন। আপনারা প্রমাণ করেছেন আপনাদের প্রতিনিধিকে আপনারা ভালোবাসেন। এই অনুষ্ঠানে আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে এনে আমাকেও সম্মানিত করেছেন। এজন্য আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আপনাদের মজিদ ভাই, মুশফিক ভাই, জাহির ভাইসহ সকলের সাথে আমার যোগাযোগ থাকবে। বানিয়াচং, আজমিরীগঞ্জসহ হবিগঞ্জের উন্নয়নে যা যা করা দরকার তাদের পরামর্শে সব করবো। তিনি বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জের উন্নয়নে যেসব প্রজেক্ট দরকার তা করে প্রস্তাব প্রেরণের জন্য এমপি আব্দুল মজিদ খানকে নির্দেশ প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত ব্যক্তিত্ব আব্দুল মজিদ খান এমপি তার বক্তৃতায় বানিয়াচং আগমনের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বানিয়াচংয়ের গড়ের খাল খননসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরে এসব প্রকল্প পাশে মন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, মহাজোটের স্বার্থে হবিগঞ্জ-২ আসনটি মহাজোটের প্রার্থীকে ছেড়ে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জের আওয়ামীলীগসহ নৌকা প্রেমী নেতা-কর্মী ও জনগন এটা মেনে নিতে পারেননি। তাই মহাজোট প্রার্থী থাকা সত্ত্বেও আমাকে নৌকা মার্কায় প্রথমবার বিজয়ী করার পর দ্বিতীয় ও তৃতীয় বার শেখ হাসিনা নৌকার মনোনয়ন দিয়ে প্রার্থী করেন। বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জের জনগণ প্রত্যেকবারই নৌকায় ভোট দিয়ে এমপি নির্বাচিত করেন। এটা একমাত্র বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জের আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরে শক্তিশালী অবস্থানের কারণেরই সম্ভব হয়েছে। যেভাবে এখানে আওয়ামীলীগ সুশৃংখল ও শক্তিশালী আছে সেভাবে থাকলে আগামী পঞ্চাশ বছরেও কেউ বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জে নৌকাকে পরাজিত করতে পারবেনা। অনুষ্ঠানে হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, মজিদ খান সাহেবের জন্য আজকের এই বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান প্রমাণ করে বানিয়াচংয়ে আওয়ামীলীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন সুসংগঠিত আছে। এখানে নৌকার কোন বিকল্প নেই। বর্তমানে নেই, ভবিষ্যতেও নেই।
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। এই উন্নয়ন কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করেন।
অনুষ্ঠানে বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চৌধুরী তার বক্তব্যে বানিয়াচং প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণ, অফিসার্স ক্লাব ভবন নির্মাণ, উপজেলা সদরে একটি আধুনিক অডিটোরিয়াম নির্মাণ, হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের রত্মা ও সুটকী ব্রীজ নির্মাণ, বানিয়াচং-মার্কুলী সড়ক পাকাকরণ, ১৩নং মন্দরী, ১৪নং মুরাদপুর ও ১৫নং পৈলারকান্দি ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তা আবুড়াসহ পাকাকরণ ও ১২নং সুজাতপুর ইউনিয়নের রত্না নদীতে এবং ১৩নং মন্দরী ইউনিয়নে ব্রীজ নির্মাণের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হবিগঞ্জ পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও ১৩ নং মন্দরী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শামছুল হক, জেলা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সভাপতি অ্যডভোকেট সিরাজুল হক, জেলা যুবলীগের সভাপতি আতাউর রহমান সেলিম, জেলা স্বোচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সৈয়দ কামরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মিয়া, ৮নং খাগাউড়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহ্ শওকত আরেফীন সেলিম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পরিকল্পনা মন্ত্রী এম.এ মান্নান ও সংবর্ধিত ব্যক্তিত্ব সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুল মজিদ খান এমপিকে সোনালী নৌকার সম্মাননা ক্রেস্ট, মানপত্র ও ফুলের তোড়া প্রদান করা হয়। জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের শুরু করা হয়। শুরুতেই কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সুস্থতার জন্য মোনাজাত করা হয়। এর পূর্বে দুপুরে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি হবিগঞ্জ সার্কিট হাউসে সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ৬ লেনের কাজ এডিপি অনুমোদনের পরপরই শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ হস্তক্ষেপে অনেক ছড়াই উত্রাই পেরিয়ে বাস্তবায়নের পথে এটি। জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান, সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান প্রমুখ।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com