শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০, ০১:৪১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ফোনে চিকিৎসা দিচ্ছেন ডাঃ ফাতেমা খানম নবীগঞ্জের ডাঃ ফয়সাল চৌধুরী লন্ডনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন নবীগঞ্জে প্রশাসন-সেনাবাহিনীর যৌথ অভিযান ॥ ৬৭ হাজার টাকা অর্থদন্ড নবীগঞ্জের ৫ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা ॥ সমালোচনার ঝড় ॥ প্রেসক্লাবের প্রতিবাদ ও নিন্দা র‌্যাব ৯ এর এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম মধ্যবিত্তদের দোয়ারে নবীগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে দুইটি বাড়ীতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট ॥ মহিলা ও শিশুসহ আহত ১০ ডাঃ ফাতেমা খানম দশ টাকা কেজির চাল হাতে দিয়ে লোকজনকে ঘরে থাকার আহবান জানালেন এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জের বেসরকারি চিকিৎসকদের পিপিই প্রদান করলেন ডাঃ মুশফিক চৌধুরী মাধবপুরে করোনা সতর্কতা ॥ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সরানো হল বাজার
জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতদের স্বীকারোক্তি চাকরি হারানোর ক্ষোভে ট্রাক চালক ও তার বন্ধুকে মাধবপুরে হত্যা

জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতদের স্বীকারোক্তি চাকরি হারানোর ক্ষোভে ট্রাক চালক ও তার বন্ধুকে মাধবপুরে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চাকরি হারানোর ক্ষোভেই ট্রাক চালক ও তার বন্ধুকে মাধবপুরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে ওই ট্রাকের চাকরিচ্যুত চালক ও তার সহকারী। গতকাল শনিবার সকালে হত্যাকারীদের আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় মাধবপুরের এক দোকানদারকেও আটক করা হয়। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা হত্যার কথা স্বীকার করেছেন।
আটককৃতরা হলেন, সিলেট সদর উপজেলার ধোপাগুল মুড়ারগাও এলাকার ফৌজদার মিয়া তালুকদারের ছেলে মোঃ ইব্রাহিম মিয়া তালুকদার ও বিশ্বনাথের শ্বাসরাম এলাকার রুস্তম আলীর ছেলে ফজর মিয়া। এর আগে শুক্রবার সকালে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার পারাইরচক এলাকা থেকে ছয়টি চাকা খোলা অবস্থায় একটি ট্রাক থেকে দুজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতরা হলেন, চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা বাগদী গ্রামের মো. কাদেরের ছেলে জাহাঙ্গীর মিয়া ও দীন মোহাম্মদের ছেলে রাজু আহমদ। ঘাতকরা ট্রাকটিকে ‘দুর্ঘটনা কবলিত’ করার নাটক সাজালেও শুরুতেই পুলিশের কাছে এটি হত্যাকান্ড বলে মনে হয়েছিল। এরই প্রেক্ষিতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে। পুলিশ ফজরের শ্বশুরবাড়ি থেকে নিহতদের লুন্ঠিত মোবাইল সেট ও ৭০ হাজার টাকা মূল্যের ট্রাকের ৩টি চাকা ও ৫টি রিং মাধবপুর উপজেলার জগদীশপুরের জয়নাল মিয়ার দোকান থেকে উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় টায়ার ক্রেতা ওই উপজেলার বেড়জুড়া গ্রামের আব্দুল কাদিরের ছেলে জয়নাল মিয়াকেও আটক করেছে পুলিশ। আটকদের বরাত দিয়ে এসএমপি’র অতিরিক্ত উপ কমিশনার জেদান আল মূসা (মিডিয়া) জানান, ট্রাকটির মালিক চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থানার আইলদীপুরের আতাউর রহমান। আটক ইব্রাহিম ট্রাকচালক ও ফজর হেলপার ছিলেন। গত ২১ জানুয়ারি ট্রাকটি ঢাকায় নিয়ে গেলে ইব্রাহিমকে বাদ দিয়ে নতুন চালক হিসেবে জাহাঙ্গীরকে চাকরি দেন গাড়ির মালিক। জাহাঙ্গীরের বন্ধু ছিলেন রাজু। সে পেশায় কম্পিউটার অপারেটর ছিলেন।
পরদিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় গাজীপুর থেকে ট্রাকে রিকশার যন্ত্রাংশ নিয়ে সিলেটে আসার সময় জাহাঙ্গীর ও তার বন্ধু রাজুর সফর সঙ্গী হন সাবেক চালক ইব্রাহিম। পথে ঢাকা-সিটে মহাসড়কের মাধবপুর আসার পর জাহাঙ্গীর ও রাজুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এরপর গাড়ি চালায় ইব্রাহিম। গাড়িটি মাধবপুরের জগদীশপুর ও আউশকান্দি হয়ে সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় এনে থামায় তারা। এরপর পরিকল্পনা করে লাশ দু’টি চালক ও হেলপারের সিটে বসিয়ে সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের পারাইরচকে রেখে যায়। ঘটনাটি ‘নিছক দুর্ঘটনা’ সাজাতে ট্রাকটি সড়কের পাশে রেখে খুলে নেয়া হয় ছয়টি চাকা। এরপর জগদীশপুর জয়নালের দোকানে নিয়ে চাকাগুলো বিক্রি করা হয়। খবর পেয়ে ট্রাক মালিক আতাউরসহ নিহতদের স্বজনরা গতকাল শনিবার দুপুরে মগলাবাজার থানায় আসেন। এ ঘটনায় নিহত রাজুর ভাই সুজন বাদী হয়ে আটক তিনজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com