বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
আজমিরীগঞ্জে সম্পত্তির জন্য বাবাকে গলাকেটে হত্যা ॥ স্ত্রী সন্তান পলাতক ॥ মাথা নদীতে আর দেহ ফেলে দেয় জঙ্গলে থামছেই না চোরাচালান ॥ প্রতিদিনই আসছে ভারতীয় পণ্য ॥ এবার সীমান্তে বিপুল পরিমান মোবাইল ফোন ও টুথপেস্ট জব্ধ নবীগঞ্জে শিক্ষিকাকে উত্যক্ত করার দায়ে বখাটের কারাদণ্ড জাতির পিতার দর্শন থেকে তরুণ প্রজন্মকে শিক্ষা নিতে হবে-এমপি আবু জাহির বানিয়াচঙ্গে ইরি বোরো জমি চাষাবাদে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি ॥ মামলা দায়ের ১৩ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল লাখাইয়ে মফিজুল হত্যা ॥ আসামিদের বাড়ি-ঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট মাধবপুরে মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের গণফোরামের রমজানপুর-উমরপুর ওয়ার্ড কমিটি গঠিত হবিগঞ্জ আই.এফ.সি’র দরিদ্রদের মাঝে সেলাই মেশিন ও অসুস্থ রোগীদের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ সেচ প্রকল্পের আয়তন বাড়েনি তবুও এক বছরে আড়াই লাখ টাকার অতিরিক্ত বিল প্রদান
সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চুনারুঘাট উপজেলার সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার আসামি ফজলুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯ সিলেট ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল মেজর মো. শওকাতুল মোনায়েম ও এএসপি নাহিদ হাসানের নেতৃত্বে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থেকে গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় সিলেটের দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হান্নানের ছেলে ফজলুর রহমান (২৪)। র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ সুরমা থানাধীন চন্ডিপুর এলাকা থেকে হবিগঞ্জের সাতছড়ি উদ্যানে চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার ৩নং আসামী ফজলুর রহমান। গ্রেফতারকৃত আসামীকে হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। ফজলুর রহমানের আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেন র‌্যাব-৯ এর মিডিয়া অফিসার মো. সামিউল আলম। প্রসঙ্গত, হবিগঞ্জ সদরের বাতাসর গ্রামের শামীম আহম্মেদ মামুনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল সরকারি বৃন্দাবন কলেজের ওই ছাত্রীর। গত ৭ জানুয়ারি দুপুরে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে ডেকে নিয়ে প্রথমে তাকে ধর্ষণ করে মামুন। পরে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে ফজলুর রহমান, আলী হোসেন, জুনেদ লতিফসহ ৫ জন।
এক পর্যায়ে জঙ্গল থেকে বেরিয়ে চিৎকার করলে, মেয়েটিকে বাড়ি পৌঁছে দেয় আশপাশের লোকজন। গত ৮ জানুয়ারি বুধবার বিকেলে জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন নির্যাতনের শিকার তরুণী। মামলার প্রেক্ষিতে ওই দিনই মামুনকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণ করা হলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com