সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ০৪:৪৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাবেক অর্থমন্ত্রী কিবরিয়া হত্যার ১৫ বছর আজ ॥ হত্যা মামলার বিচার শুরু হলেও চার্জ গঠন হয়নি বিস্ফোরক মামলার নবীগঞ্জে পুলিশ কোপানোর ঘটনার সাড়ে ৪ মাসেও অধরা সন্ত্রাসী মুছা ও পারভেজ শহরের বিদ্যুৎ বিল খেলাপীর বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ১২ লাখ টাকা জরিমানা ও মামলা নবীগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানসহ সদস্যরা অবরুদ্ধ ॥ উত্তেজনা শায়েস্তাগঞ্জে আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় এমপি আবু জাহির ॥ কিছু সংখ্যক অপরাধীদের জন্য যাতে উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত না হয় সেজন্য সতর্ক থাকতে হবে নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় আটক এপিপি আবুল কালামের জামিন শুনানী আজ গ্রেফতারকৃত ভূয়া এএসপি রাহুলের সহযোগীদের অনুসন্ধানে মাঠে পুলিশ শহরবাসীকে ধুলোবালির কবল থেকে রক্ষা করতে হবিগঞ্জ পৌরসভার ওয়াটার ¯েপ্র ট্রাক চালু অনলাইন পত্রিকা ‘হবিগঞ্জ জার্নাল’ এর আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ শচীন্দ্র কলেজে-অতিরিক্ত পুলিশ শেখ সেলিম ॥ গ্রাম্য, দাঙ্গা, ইভটিজিং, মাদক প্রতিরোধে শিক্ষার্থীদের গনসচেতা সৃষ্টি করতে হবে
কচুর লতি কুড়িয়ে জীবন যাচ্ছে আসুলতার ॥ ৮০ পেরিয়ে গেলেও জুটেনি বয়স্ক বা বিধবা ভাতা

কচুর লতি কুড়িয়ে জীবন যাচ্ছে আসুলতার ॥ ৮০ পেরিয়ে গেলেও জুটেনি বয়স্ক বা বিধবা ভাতা

আবুল কাসেম, লাখাই থেকে ॥ স্বামী সন্তান নেই। মাথা গোজার জন্য নিজের ভিটেটি ও নেই। নেই বলতে কিছুই নেই। পরের বসত ঘরে কোন রকম রাত পার করে সাত সকালেই দুই মুঠো ভাত জুগার করার তাগিদে প্রতিদিনেই বেরিয়ে যান বৃদ্ধা। কচুর লতি বিক্রি করে আর মানুষের ধারে ধারে ভিক্ষা করে বয়সের বাড়ে নোয়ে পড়া বৃদ্ধা এভাবেই জীবন পার করে নিচ্ছেন। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এমনি অসহায় এক বৃদ্ধার দেখা মিলে লাখাই উপজেলার বুল্লা বাজারে। নাম তার আসুলতা সরকার। বয়স তার আনুমানিক (৮০)। বাজারের দোকানের পাশে বসে কি যেন ভাবছে আর দীর্ঘশ্বাস ফেলছে। তখনই জিজ্ঞাসা করা হয় তাকে। আপনার বাড়ি কোথায়। আপনার নাম কি। এ সময় কোন উত্তর মিলছে না। শ্রবণ শক্তি কম তাকায় দুই-এক বার জিজ্ঞাসা করার এক পর্যায়ে ওই বৃদ্ধা হাউ মাউ করে কেঁদে ফেলেন। অকপটে এ সময় তিনি এ প্রতিনিধি কে বলেন প্রায় ৩০ বছর আগে স্বামীকে হারান তিনি। স্বামী রায় চাঁন সরকারের জীবিত কালীন সময়ে তার ঔরসজাত এক মেয়ে পানিতে ডুবে আরেক মেয়ে বিয়ের দেওয়ার পর অসুক বিসুকে মারা যায়। এর পর থেকে পেটের ভাত যোগাতে এলাকায় আনাছে কানাছে কচুর লতি কুড়িয়ে বিক্রি করে আর ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবন পার করে আসছেন আসুলতা। এখন আমার নেই বলতে কিছুই নেই। যা ছিল সবই হারিয়ে পেলেছি। বাবা এখন শুধু সবই স্মৃতি।
এর পর থেকেই এ প্রতিনিধি ওই বৃদ্ধার খোঁজ নিতে গত শনিবার (১০ জানুয়ারি) উপজেলার ভাটি এলাকার গোপালপুর গ্রামে গিয়ে সুনন্দ সরকারের বাড়িতে দেখা মিলে আসুলতার। ঘরের একটি করে মাটিতে এক টুকরো কম্বল যেন তেন একটা ছোট ছাদর গায়ে দিয়ে ঘুমিয়ে রয়েছে। বাড়ির মালিক সুনন্দ সরকারের স্ত্রী মালতী সরকারের কাছে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে আসুলতার কথা জিজ্ঞাসা করলে ঘুম থেকে ডেকে নিয়ে আসেন এই বৃদ্ধাকে। মালতী সরকার জানান, আমাদের দূরসম্পর্কের আত্মীয় আসুলতার কেউ না তাকার সুবাধে দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বাড়িতে থাকছেন। একেইত স্বামীর সংসারে আমরা অভাব অনটনে ভুগছি। যে কারনে আসুলতার খাবার যোগান দেওয়া আমদের কষ্ট হয়ে যায়। এই বৃদ্ধ বয়সে আসুলতা এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে গিয়ে কচুর লতি কুড়িয়ে বিক্রি করে যা-ই পায় তা দিয়ে কোন রকম বেছে খেয়ে দিন কাটায়। যে দিন লতা কুড়িয়ে পায় নি সে দিন ভিক্ষা করে ডাল চাল নিয়ে আসে। কান্না জরিত কন্ঠে আসুলতা সরকার বলেন, আমি বয়ষ্ক বা বিধবা ভাতা কিছুই পাইনি। এলাকার কোন চেয়ারম্যান মেম্বার আমার খোজ খবরও নেয় না। গ্রামের রতীশ নামের এক জন বলেন বিধির কি বিধান ঝর বৃষ্টি উপেক্ষা করে খাবার সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন স্থানে যায় এই বয়সে। আসলেই তাকে দেখলে অনেক কষ্ট হয়। ওই গ্রামের পল্লী চিকিৎসক নিশি কান্ত সরকার এ প্রতিনিধি কে জানান, আসুলতা বর্ষার সময় কষ্ট করে কছুুর লতি সংগ্রহ করে সাতরিয়ে এবাড়ি থেকে ওবাড়ি গিয়ে বিক্রি করেন। তিনি নিজেও মাঝে মধ্যে তার নিকট থেকে লতি কিনে তাকেন। তবে আসুলতাকে সবাই বেলি নামে বেশি চিনেন বলে জানান তিনি। গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কানু চন্দ্র দাস বলেন, আমি তাকে ভাল ভাবেই চিনি। তিনি প্রায়ই আমাদের স্কুলে আসেন। যতটুকু পারি সাধ্য অনুযায়ী তাকে যথসামান্ন সাহায্যে সহযোগিতা করে তাকি। সমাজের বৃত্তবানদের ওই অসহায় বৃদ্ধার প্রতি নজর দেওয়া প্রয়োজন বলে জানান তিনি। এ দিকে সাধারণ মানুষেরা মনে করেন সমাজের ধনী বা বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ ও সরকার যদি একটু নজর দেয় তা হলে অবহেলিত অসহায় আসুলতা দুই মুঠো ভাত খেয়ে বেচেঁ থাকতে পারবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com