সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
এমপি আবু জাহির এর প্রচেষ্টায় হবিগঞ্জে হতে যাচ্ছে করোনা পরীক্ষার ল্যাব জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক নবীগঞ্জে মাসিক আইনশৃংঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত লাখাইয়ে পরীক্ষায় ফেল করায় কিশোরী আত্মহত্যা করোনায় চুনারুঘাটে সেলুন ব্যবসায়ীরা দিশেহারা নবীগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ৭৯.৩১% জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৬ জন ভারতীয় নাগরিকদের হাতে নিহত বাংলাদেশীর লাশ ৬ দিন পর বিজিবির কাছে হস্তান্তর হবিগঞ্জে দুই গ্রামবাসির সংঘর্ষে আহত ৫০ নবীগঞ্জে পুলিশের হস্তক্ষেপে সংঘাত থেকে রক্ষা পেল গ্রামবাসী বানিয়াচঙ্গে কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা ॥ লম্পট গ্রেফতার
আউশকান্দিতে ড্রেনেজ ব্যবস্থার দাবিতে উত্তেজনা “শ্রীহট্ট” অর্থনৈতিক জোনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকাবাসী

আউশকান্দিতে ড্রেনেজ ব্যবস্থার দাবিতে উত্তেজনা “শ্রীহট্ট” অর্থনৈতিক জোনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকাবাসী

ছনি চৌধুরী, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নে অবস্থিত অর্থনৈতিক জোন শ্রীহট্ট এর আশপাশ এলাকায় শীতকালের শুকনো মৌসুমেও সামান্য বৃষ্টিতে পানি বন্দি ৪টি গ্রামের মানুষ। এর প্রতিবাদে ভুক্তভোগী জনতা শেরপুর অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট” এর কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। সোমবার দুপুরে “শ্রীহট্ট” অর্থনৈতিক জোন এর কাজ বন্ধ করে দেন এলাকাবাসী। এনিয়ে এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল বনগাঁও ঢালারপাড়, দীঘরব্রাহ্মন গ্রাম, পাহাড়পুরে পাশেই অবস্থিত শেরপুর অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট”। এই অর্থনৈতিক জোনে নেই পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা। এর ফলে ৪টি গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবারের বাড়ি ঘর জলাবদ্ধতায় পরিণত হয়েছে। পানিবন্দী অবস্থায় জীবনযাপন করছেন ৪ গ্রামের শতাধিক পরিবারের লোকজন। এ ব্যাপারে কোনো প্রতিকার না পেয়ে নিরুপায় হয়ে সোমবার ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নারী পুরুষ সকাল থেকে অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট” মূল গেইটে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান ধর্মঘট করে কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। পানি নিস্কাশনে ড্রেনেজ ব্যবস্থার দাবিতে অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট” কাজ বন্ধ করে অচল করে দেয়া হয়েছে নির্মান কাজ।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, “শ্রীহট্ট” অর্থনৈতিক জোন এর নির্মান কাজের ফলে এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানি জমাট হয়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্ঠি হয়েছে। জলাবদ্ধতার জন্য অনেকের বাড়ির ফসলের বিভিন্ন জাতের গাছ পালা মরে গেছে। ধর্মঘটকারীরা পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত নির্মাণ কাজ করতে দিবেন না বলে হুশিয়ারী দেন।
অবস্থান ধর্মঘটকারীদের মধ্যে ঢালারপাড় গ্রামের বৃদ্ধ সুশীল সুত্রধর (৬০) জানান, আমাদের শেষ আশ্রয় মাথাগোজার জায়গা বসত বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে আছে। আমাদের সবজি খেত, ধানি জমি, বাড়ি সবই তলিয়ে গেছে বৃষ্টির পানিতে। কোন উপায় না দেখে আমরা ওই জায়গায় অবস্থান নিয়েছি। আমাদের কোন ব্যবস্থা না করলে কাজ করতে দিবো না। একই গ্রামের কাঞ্চল মালা (৬৫) জানান, ৭ সদস্যের পরিবারের মধ্যে বাচ্চা কাচ্চা নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি। মনোয়ারা বেগম (৬০) জানান, আমরা আর কোন উপায় না পেয়ে অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট” এ অবস্থান নিয়েছি। বৃদ্ধ নীলমনি সুত্রধর জানান, আমাদের দাবী সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করবে ততক্ষণ ওই স্থানে অবস্থান করবো। কারন পানির জন্য গ্রামে বাস করা সম্ভব নয়, দীঘরব্রাহ্মন গ্রামের বিশিষ্ট মুরুব্বী আকলিছ মিয়া (৭০) জানান, আমাদের বাড়ি ঘরে পানি উঠে মাথা গুজার জায়গাটাও নেই। উপকারের আশায় জায়গা দিয়ে এখন মহা সর্বনাশ হয়েছে। সরকারের কাছে আমাদের আকুল আবেদন জীবন বাঁচাতে অতি দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করেন।
অবস্থান ধর্মঘট ও বিক্ষোভের খবর পেয়ে অসহায়দের সাথে আউশকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন একাত্বতা প্রকাশ করেন।
এ ব্যাপারে শেরপুর অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্ট” এর দায়িত্বে নিয়োজিত প্রকৌশলী রবিউল হোসেন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পানি নিষ্কাশনে ড্রেনেজ ব্যবস্থার দাবীতে শেরপুর অর্থনৈতিক জোন “শ্রীহট্র” এর কাজ স্থানীয় লোকজন বন্ধ করে দিয়েছে। বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com