রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জে স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্স অনুষ্ঠিত ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি’র নির্বাচন ॥ শামছুল হুদা-আলমগীর প্যানেলের নিঙ্কুশ বিজয় নবীগঞ্জের ঘোলডোবা এম সি উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি বিলুপ্ত মাধবপুরে দোকান থেকে ১১ বস্তা ভিজিডির চাল জব্দ যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি ব্যবহারে গ্যাসের ভূমিকা শীর্ষক কনফারেন্সে এমপি আবু জাহির শহরের পুরাতন খোয়াই নদীতে ২৫০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ সামাজিক সংগঠন ‘বন্ধু মেলা’ এর আহ্বায়ক কমিটি গঠন মাধবপুরে দু’মাদক পাচারকারীকে ভ্রাম্যমান আদালতের কারাদন্ড অসাধু বিদ্যুৎ কর্মচারীদের সহযোগিতায় শহরের অর্ধশতাধিক অবৈধ টমটম গ্যারেজ নবীগঞ্জে বিয়ের প্রস্তাবে সম্মতি না দেয়ায় দুই বোনকে পিঠিয়ে আহত
শায়েস্তাগঞ্জে বিক্রিত ভূমির কাগজ সৃজন করে পুনরায় বিক্রির অভিযোগে মামলা

শায়েস্তাগঞ্জে বিক্রিত ভূমির কাগজ সৃজন করে পুনরায় বিক্রির অভিযোগে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জালিয়াতির মাধ্যমে কাগজ সৃষ্টি করে জমি দলিল করে দেয়ার অভিযোগ এনে ৯ জনকে আসামী করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শায়েস্তাগঞ্জে বসবাসরত নাসিরনগর উপজেলার ধরমন্ডল গ্রামের মোঃ জজ মিয়ার পুত্র মোঃ সেলিম মিয়া বাদী হয়ে গত ২৬ আগস্ট হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। অভিযুক্তরা হচ্ছেন শায়েস্তাগঞ্জের চরনুর আহমদ গ্রামের সৈয়দ অলিউর রহমান, সৈয়দ আনিসুর রহমান, সৈয়দ সফিকুর রহমান, সৈয়দ আজিজুর রহমান, সৈয়দা জাহানারা বেগম, বিরামচর গ্রামের আহম্মদ আলী, মোঃ আব্দুল হান্নান, মোঃ আব্দুল আওয়াল ও সুঘর গ্রামের মোঃ আতর আলী।
মামলার বিবরণে জানা যায়, বাদী মোঃ সেলিম মিয়ার ব্যবসা প্রতিষ্টান শায়েস্তাগঞ্জে বাজারের হোটেলে সৈয়দ অলিউর রহমান প্রায়ই আসা যাওয়া করতেন। সে সুবাদে শায়েস্তাগঞ্জে একটি বাসার জায়গা দেখার জন্য তিনি সৈয়দ অলিউরকে বলেন। এর কিছুদিন পর সৈয়দ অলিউর তাদের পৈত্রিক যৌথ জায়গা কেনার প্রস্তাব দেন। এতে তিনি রাজি হয়ে আলাপ আলোচনাক্রমে শায়েস্তাগঞ্জ বরচর মৌজার জেএল নং-১৫২, এসএ ১৬৮৩, আরএস ডিপি ২৫৫ খতিয়ান এসএ ৫০৪০, আরএস ৪৯০০ দাগে ৯২ শতক জায়গার মধ্যে সাড়ে ৯ শতক জায়গার মুল্য ১৪ লাখ টাকা সাব্যস্ত হয়। সে অনুযায়ী ২০১৮ সনের ৯ জুলাই অভিযুক্ত আতর আলীর বাড়িতে কমিশন বসিয়ে অভিযুক্তরা জমি দলিল করে দেন। দলিল নং-৩৭৬২/১৮ইং। ওই দিন অন্যান্যদের সম্মুখে সৈয়দ অলিউর রহমানের নিকট সাড়ে ১০ লাখ টাকা দেয়া হয়। বাকী সাড়ে ৩ লাখ টাকার মধ্যে সৈয়দ অলিউর রহমানের নামে ১লাখ টাকা এবং অভিযুক্ত আব্দুল হান্নান মিয়ার নামে আড়াই লাখ টাকার দু’টি চেক দেয়া হয়। পরবর্তীতে আমাকে জায়গার দখল সমজিয়ে দেয়ার জন্য অভিযুক্তদের বললে তারা টালবাহানা শুরু করে। পরে তিনি খোজ নিয়ে জানতে পারেন ওই দাগের ৯২ শতক জমির মধ্যে ৬৭ শতক জায়গা মহা-সড়কের জন্য অধিগ্রহণ করা হয়েছে। বাকী ২৫ শতক জায়গার মধ্যে ১২ শতক জায়গা আব্দুল ওয়াদুদ গং এবং ১৩ শতক জায়গা মোজাম্মেল হক এর নিকট বিক্রি করা হয়েছে। তারা আর এস পর্চা মুলে দখলে রয়েছেন। বাদীর দাবী অন্যজনের নিকট বিক্রি করার পর অভিযুক্তরা জাল জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে কাগজপত্র সৃজন করে জাল দলিল সম্পাদক করে দিয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com