বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন আজ ॥ ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে প্রত্যাশা তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভারতীয় চা পাতা চোরাচালান রোধে চুনারুঘাটে বিশেষ আইন শৃংখলা সভা অনুষ্টিত চুনারুঘাটে অনশন করে স্ত্রীর মর্যাদা পেল রিতু শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের তফসীল ঘোষণা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিক্ষোভ নবীগঞ্জে জাতীয় পার্টি থেকে ১৫ নেতাকর্মীর গণফোরামে যোগদান হবিগঞ্জ জেলা আ.লীগের সম্মেলনকে স্বাগত জানিয়ে ছাত্রলীগের প্রচার মিছিল বানিয়াচংয়ে টিসিবি’র পেঁয়াজ বিক্রি ॥ উপচে পড়া ভীড় শহরতলীর নোয়াগাও গ্রামে টমটম চার্জে অবৈধ বিদ্যুত সংযোগ ব্যবহার করার দায়ে আদালতে মামলা নবীগঞ্জে পৌর বিএনপির ৭নং ওয়ার্ড কমিটি গঠিত ॥ দেলোয়ার সভাপতি ও কুরুশ সম্পাদক ও আলমগীর সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত
বানিয়াচঙ্গে ২৮ মাস বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক

বানিয়াচঙ্গে ২৮ মাস বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির আনীত অভিযোগ শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক তদন্তে মিথ্যা প্রমানিত হওয়ার পরও বানিয়াচঙ্গে ২৮ মাস বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন এক প্রধান শিক্ষক। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড এর সচিব মোস্তফা কামাল আহমদ স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে মুরাদপুর এসইএস ডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় এর পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে অবহিত করা হলেও অদ্যাবধি অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন (মহসিন) কে বেতন-ভাতা প্রদান করা হয়নি। উল্টো এখতিয়ার বর্হিভূতভাবে প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেনকে সাময়িক বহিস্কার করেছেন অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তৈয়বুর রহমান চৌধুরী। স্কুলটির প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন জানান, বিগত ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি সম্পুর্ন অন্যায়ভাবে আমাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন। পরবর্তীতে আমার বিরুদ্ধে সিলেট শিক্ষা বোর্ডে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ এনে চূড়ান্ত বরখাস্তের জন্য আবেদন করেন। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সিলেট এর আপিল এন্ড আর্বিট্রেশন কমিটি আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ তদন্তের জন্য প্রধান শিক্ষক, বিকেজিসি হবিগঞ্জ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার লাখাই এবং প্রধান শিক্ষক বানিয়াচং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় বানিয়াচংকে দায়িত্ব দেয়া হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির দেয়া প্রতিটি অভিযোগ ওই কমিটি খতিয়ে দেখে সিলেট শিক্ষা বোর্ড এর কাছে তাদের তদন্তের রিপোর্ট পেশ করেন। উক্ত তদন্তে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি কর্তৃক আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের কোন সত্যতা পায়নি। এরই প্রেক্ষিতে গত ২০১৯ সনের ৬ মে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সিলেট এর চেয়ারম্যান এর আদেশক্রমে সচিব মোঃ মোস্তফা কামাল আহমদ এর স্বাক্ষরিত পত্রে আমাকে স্বপদে পুর্নবহালসহ বিধি মোতাবেক বেতন ভাতা প্রদানের জন্য বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে অবহিত করা হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গত ৩০মে আমাকে স্বপদে বহাল দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরকে অবহিত করেন। ১ মাসের ব্যবধানে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি পুনরায় বোর্ডের আদেশ উপেক্ষা করে এখতিয়ার বর্হিভূতভাবে পূর্বের আনীত অভিযোগের আলোকে গত ৩০ জুন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) কাওছার শোকরানার যোগসাজশে আমাকে স্বপদে পুর্নবহাল না করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন আরো জানান, সম্পুর্ন অন্যায়ভাবে দীর্ঘ ২৮ মাস যাবৎ আমার বেতন-ভাতা আটকিয়ে মানসিক যন্ত্রনা দেয়া হচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাওছার শোকরানাকেও আমার বেতন-ভাতাদি দেয়ার জন্য সিলেট শিক্ষা বোর্ডের সচিব মোস্তফা কামাল আহমদ লিখিতভাবে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বার বার পত্র প্রেরন করেন। তারপরও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। এদিকে আমি বৈধ প্রধান শিক্ষক থাকার পরও সোনালী ব্যাংক বানিয়াচং শাখার ম্যানেজার অনিয়মতান্ত্রিকভাবে আমার স্বাক্ষর ব্যতিরেকেই শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন বিলসহ অন্যান্য কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। যা সম্পূর্ন নীতি বহিঃভূত। বর্তমানে দীর্ঘদিন যাবৎ বেতন-ভাতাদি না পাওয়ায় আমার পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন কাটাতে হচ্ছে। এ বিষয়ে আমি জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com