বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ১২:১২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
মাধবপুরে চা-বাগানে কাকাতো ভাইয়ের হাতে জেঠাতো ভাই খুন যুক্তরাজ্যে গাড়ির নাম্বার প্লেটের রেজিষ্ট্রেশন নিয়ে জটিলতা ॥ আইনি লড়াইয়ে জয়ী হলেন এনটিভির ইউরোপ ব্যুরো চিফ ফারছু আহমেদ চৌধুরী শহরে প্রকাশ্যে ছাত্রলীগ নেতা আসিফ চৌধুরীকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেছে দূর্বৃত্তরা আজমিরীগঞ্জে হাওর থেকে যুবতীর বিকৃত লাশ উদ্ধার নবীগঞ্জে ছাতল বিলের ইজারা সমিতির সদস্যদের স্বাক্ষর জাল ইউএনও বরাবর অভিযোগ বানিয়াচঙ্গের এক মহিলাকে বিদেশ পাঠানোর নামে পাচারের অভিযোগ স্কুল-কলেজের সামনে বখাটেদের উৎপাত বন্ধে পুলিশকে কঠোর হওয়ার নির্দেশ হবিগঞ্জে ‘বিবর্তন বিজ্ঞান চক্র’র উদ্যোগে ২ দিনব্যাপী জ্যোতির্বিজ্ঞান বিষয়ক কর্মশালা সম্পন্ন মাধবপুরে গাছ থেকে পড়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু বাহুবলে প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা আকবর আলী আর নেই
দাবি আদায় করতে গিয়ে পৌরবাসীকে জিম্মি না করতে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীদের প্রতি জিকে গউছের আহ্বান

দাবি আদায় করতে গিয়ে পৌরবাসীকে জিম্মি না করতে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীদের প্রতি জিকে গউছের আহ্বান

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ তাদের বেতন ভাতা সরকারী কোষাগার থেকে পাওয়ার দাবিতে যে আন্দোলন করছে তা যৌক্তিক। তবে তাদের দাবি আদায় করতে গিয়ে নাগরিক সেবা বন্ধ করে পৌরবাসীকে জিম্মি না করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন হবিগঞ্জ পৌরসভার পদত্যাগকারী মেয়র আলহাজ্ব জি কে গউছ। তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদপত্রে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বলেন, সারাদেশের ৩২৭টি পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণ তাদের বেতন ভাতা সরকারী কোষাগার থেকে পাওয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে গত এক সপ্তাহ যাবত ঢাকায় অবস্থান করে যে আন্দোলন করছেন তা যৌক্তিক। দেশের অধিকাংশ পৌরসভায় আর্থিক সক্ষমতা না থাকার কারণে সময় মত পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণ তাদের বেতন ভাতা পান না। ফলে তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে হয়। তাই সরকারকে বিষয়টি সহানুভূতির দৃষ্টিতে দেখা উচিৎ এবং তাদের দাবি মেনে নেয়া উচিৎ। আমি তাদের দাবির সাথে একমত পোষণ করছি। তবে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণ তাদের দাবি আদায় করতে গিয়ে পৌরবাসীকে কোনভাবেই জিম্মি করা উচিৎ নয়। গত ৬ দিন যাবত হবিগঞ্জ পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণ তাদের দাবি আদায়ের লক্ষে সকল নাগরিক সেবা বন্ধ রেখেছেন। এতে পৌরবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে পৌর এলাকার সড়ক বাতি না জালানোর কারনে শহর অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। এতে শহরে চুরি ডাকাতিসহ যে কোন ধরনের অনাকাংখিত ঘটনার আশংকা দেখা দিয়েছে। পৌরবাসীর মধ্যে এ নিয়ে উদ্বেগ উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। আমি ২০০৪ সালে হবিগঞ্জ পৌসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর পৌর এলাকার সংলগ্ন মসজিদের ৫ জন মোয়াজ্জিনকে দায়িত্ব দিয়েছিলাম স্ট্রীট লাইটের মেইন সুইচ অন অপ করার জন্য। যাতে কোন ভাবেই শহর অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে না পড়ে। এ জন্য পৌরসভার পক্ষ থেকে তাদেরকে সম্মানী দেয়া হচ্ছে। পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগণ দাবি আদায় করতে ঢাকায় অবস্থান করলেও ওই মোয়াজ্জিনগন তো তাদের সাথে আন্দোলনে অংশ গ্রহন করছেন না। তাই তাদের মাধ্যমে সড়ক বাতিগুলো জালানোর ব্যবস্থা করতে অনুরোধ জানান জি কে গউছ। এতে শহরবাসির মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসবে এবং অনাকাংখিত ঘটনা থেকে শহরবাসি রক্ষা পাবে। স্থানীয় প্রশাসনকেও পৌরবাসীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং আইন শৃংখলা পরিস্থিতি সাভাবিক রাখতে যথাযত ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য তিনি অনুনোধ জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com