বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন আজ ॥ ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে প্রত্যাশা তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভারতীয় চা পাতা চোরাচালান রোধে চুনারুঘাটে বিশেষ আইন শৃংখলা সভা অনুষ্টিত চুনারুঘাটে অনশন করে স্ত্রীর মর্যাদা পেল রিতু শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের তফসীল ঘোষণা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিক্ষোভ নবীগঞ্জে জাতীয় পার্টি থেকে ১৫ নেতাকর্মীর গণফোরামে যোগদান হবিগঞ্জ জেলা আ.লীগের সম্মেলনকে স্বাগত জানিয়ে ছাত্রলীগের প্রচার মিছিল বানিয়াচংয়ে টিসিবি’র পেঁয়াজ বিক্রি ॥ উপচে পড়া ভীড় শহরতলীর নোয়াগাও গ্রামে টমটম চার্জে অবৈধ বিদ্যুত সংযোগ ব্যবহার করার দায়ে আদালতে মামলা নবীগঞ্জে পৌর বিএনপির ৭নং ওয়ার্ড কমিটি গঠিত ॥ দেলোয়ার সভাপতি ও কুরুশ সম্পাদক ও আলমগীর সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত
বাহুবলে টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে করাঙ্গী নদীতে বন্যা ॥ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত

বাহুবলে টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে করাঙ্গী নদীতে বন্যা ॥ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত

বাহুবল প্রতিনিধি ॥ বাহুবলে টানা বৃষ্টিতে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। পাহাড়ি এলাকা থেকে নেমে আসা বৃষ্টির পানিতে করাঙ্গী নদীতে বন্যা দেখা দিয়েছে। নদীতে পানির স্রোতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বিভিন্ন স্থানে ভাঙনের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। রাত জেগে মানুষ ঝুকিপূর্ণ বাঁধ পাহারা দিচ্ছে। উপজেলার অন্ততঃ ২০টি গ্রামে বন্যার পানি প্রবেশ করায় মৌসুমী ফসলসহ বিভিন্ন ফসলাদির ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ওপরদিকে, বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। গতকাল সোমবার দিনভর উপজেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরে এ পরিস্থিতি দেখা গেছে।
সোমবার উপজেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেছে গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে জনজীবনে স্থবিরতা নেমে এসেছে। কোথাও কোথাও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে রাস্তাঘাট পানিতে ডুবে গেছে। উপজেলার মাঝামাঝি স্থান দিয়ে বয়ে যাওয়া করাঙ্গী নদীতে পাহাড়ি ঢলের পানি নেমে নদী উত্তাল হয়ে উঠেছে। নদীর একপাশে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ না থাকায় অন্ততঃ ২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। নদীর অপরপাশের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধেরও বিভিন্ন স্থান রয়েছে হুমকির মুখে। যে কোন সময় একাধিক ভাঙন সৃষ্টি হয়ে জনবসতিসহ ফসলাদি তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের বড়গাঁও, শফিয়াবাদ, সাহানগর, গাংপাড়, রশিদপুর, পূর্ব ভাদেশ্বর, কসবাকরিমপুর, ডুমগাও, নোয়াগাঁও, পুরান মৌড়ি, জয়নাবাদ, বাহুবল, উত্তরসুর, কবিরপুর, মানিকা প্রভৃতি গ্রামের নিম্নাঞ্চল ইতোমধ্যে প্লাবিত হয়েছে। এছাড়াও নদীর ওপর পাড়ের নিজগাঁও, পশ্চিম ভাদেশ্বর, ইসলামপুর ও দশকাহনিয়া গ্রামের বিভিন্ন স্থানে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধা ভাঙনের আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। যে কোন সময় ওইসব ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ ভেঙে জনবতিসহ ফসলাদি তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
এদিকে, উপজেলা সদরস্থ দীননাথ ইনস্টিটিউশন সাতকাপন সরকারি হাইস্কুল ও ভাদেশ্বর ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করাঙ্গী নদীতে সৃষ্ট বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর অধিকাংশ ক্লাশরুমে পানি প্রবেশ করায় শিক্ষার্থীদের ক্লাশগ্রহণ মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া বাহুবল বাজার সংলগ্ন করাঙ্গী নদীর ব্রীজের একপাশের মাঠি ধ্বসে পড়ায় যান চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। উপজেলা সদরের ঝুঁকিপূর্ণ এ ব্রীজটি দিয়েই প্রতিদিন শত শত ছোট-বড় যানবাহন চলাচল করছে।
ওপরদিকে, সোমবার দিনভর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়েশা হকসহ প্রশাসনের লোকজন করাঙ্গী নদীর ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ, বন্যা কবলিত এলাকা ও রাস্তাঘাট পরিদর্শন করেছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com