বুধবার, ২৪ Jul ২০১৯, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে ॥ ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা ॥ প্রতিবাদে হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হবিগঞ্জ সিভিল সার্জনের মৃত্যু মির্জাপুর থেকে প্রেমিক জুটি আটক ॥ কারাগারে প্রেরণ ১০ ইউপি চেয়ারম্যান উপস্থিত না হওয়ায় নবীগঞ্জ উপজেলা সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়নি বার্মিংহামে হবিগঞ্জ নাগরিক সমাজের সাথে মতবিনিময়কালে এমপি আবু জাহির ॥ দেশবিরোধী চক্রান্তকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান মাধবপুরে রাষ্ট্রদূতের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ১ নবীগঞ্জ ও বাহুবলে অসুস্থ রোগীদেরকে চিকিৎসা সহায়তা দিলেন এমপি মিলাদ গাজী চুনারুঘাটে নিখোঁজ প্রেমিক যুগল প্রেমিকের মা-সহ ৩ জন আটক নবীগঞ্জের দেবপাড়ায় নিহা ফ্যাশন উদ্বোধন করলেন এমপি মিলাদ গাজী বানিয়াচঙ্গে ২৮ মাস বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক
অবিরাম বৃষ্টিতে হবিগঞ্জ শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন ॥ চলমান অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম চালিয়ে যাবার আহ্বান জনধারণের

অবিরাম বৃষ্টিতে হবিগঞ্জ শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন ॥ চলমান অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম চালিয়ে যাবার আহ্বান জনধারণের

SAMSUNG CAMERA PICTURES

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গত দুদিনের অবিরাম বৃষ্টিতে হবিগঞ্জ শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ফলে পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন শহরের মানুষ। এলাকাবাসির অভিযোগ, সামান্য বৃষ্টি হলেই হবিগঞ্জ শহর পানিতে তলিয়ে যায়। গত ৪/৫ বছর ধরেই এমন অবস্থা চলে আসছে। হবিগঞ্জ শহরের প্রধান সড়ক সার্কিট হাউজ, পুলিশ সুপারের ও জেলা প্রশাসকের বাস ভবনসহ জালাল স্টেডিয়াম, শ্যামলী, সিনেমা হল, পুরান মুন্সেফী, চিরাকান্দি, নোয়াবাদ, চৌধুরী বাজার, শায়েস্তানগরসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকা বৃষ্টিতেই তলিয়ে গেছে।
সম্প্রতি ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে বিভিন্ন এলাকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। যেসব ড্রেনের উপর অবৈধ স্থাপনা রয়েছে সেগুলো উচ্ছেদ না করা হলে হবিগঞ্জ শহরের জলা বদ্ধতা দূর হবে না বলে জানান ভোক্তভোগীরা। সার্কিট হাউজের প্রধান সড়কে কোমর পানি থাকায় যান-বাহন চলাচলে দূর্ঘটনা ঘটছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে সার্কিট হাউজ এলাকায় একটি কাঠাল বোঝাই পিকআপ ভ্যান উল্টে মহিলাসহ ৫ যাত্রী আহত হয়েছে। এ ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি দূর্ঘটনা ঘটেছে ওই এলাকায়।
শায়েস্তানগর এলাকার আজিজুর রহমান, রাজু মিয়া, সিনেমা হল এলাকার শফিকুর রহমান, চৌধুরী বাজার এলাকার কামাল মিয়া, শ্যামলী এলাকার উজ্জল মিয়াসহ অসংখ্য পানিবন্দি লোকজন জানান, সরকারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ যদি নিয়মিতভাবে চালিয়ে যেত তাহলে শহরে জলাবদ্ধতা থাকত না। এখনও অনেক অবৈধ স্থাপনা রয়ে গেছে। গত ২ দিন ধরে তাদের বাসায় হাটু পানি হয়ে আছে। ফলে তারা ঘর থেকে দৈন্দনিন কাজে বাহিরে আসতে পারছেন না।
পানি নিষ্কাশনের বড় ড্রেনগুলো ময়লা আর্বজনা দিয়ে ঢেকে ফেলায় পানি দ্রুত নিষ্কাশন হচ্ছে না। অনেকে আবার ড্রেনের উপর দেয়াল তৈরি করে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছেন। ফলে অল্প বৃষ্টিতে শহরের নিন্মাঞ্চল তলিয়ে যায়। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সাবেক এমপি মরহুম আবু লেইছ মুবিন চৌধুরীর বাসা, শায়েস্তানগর হকার্স মার্কেট, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও এর পাশের এলাকা, ট্রাফিক সর্দার বাড়ি, শায়েস্তানগর কবরস্থান, পুলিশ ফৌজদারী কোর্ট, পুরাতন পৌরসভা সড়কসহ বিভিন্ন এলাকায় হাটু পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে এসব এলাকার মানুষকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। ময়লা আর্বজনার পানি মাড়িয়ে অনেক মুসল্লী নামাজে যেতে পারছেন না বলে অভিযোগ করেন। যদি নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে অবৈধ স্থাপনায় ড্রেনেজের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে জলাবন্ধতা আর থাকবে না।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com